kalerkantho

বুধবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৩ রবিউস সানি     

আমার শৈশব আজি আছে উনুনতলায়

কামরুল আলম সিদ্দিকী

১১ জুন, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



একদিন খেয়া থেকে

সুরমা কালি ভরা কলমের সাথে

নির্মল বিলের জলে হারিয়ে এসেছি যে শৈশব

তাকে কি পাওয়া যায় বলো আর কামরূপ নগর।

একদিন বেলিগুল্মতলে কুড়িয়ে কুড়িয়ে

আমাদের যে শৈশব বানিয়ে দিত ভোরের সৌরভে;

সেই আলুথালু বেলা বলো কতকাল আর থাকবে

কে জানে আমার নৈঃশব্দ্যের ঝুলিতে।

বলো সখি তোমরা যে চোখ ভরে নিয়ে এসেছ

প্রিয় প্রিয় উঠানের মরমিয় ধূলি,

তোমরা কি পেরেছ ধুতে ওই জীবনী

বুড়িগঙ্গা টেমস হাডসন রাইনে।

আমি তো পারি না তুমিও পারো না ধুয়ে দিতে,

আমার কাদামাটি এখনো আমার পায়ে

ফুল হয়ে ফুটে আছে;

কণ্ঠে পেঁচিয়ে আছে এখনো বালকবেলার এক বনলতা,

ছাড়াতে গেলেই পুরনো রক্তনালি যেন ছিঁড়ে ছিঁড়ে আসে।

এই কামাখ্যা প্রতিদিন আমার বনলতা ধরে টান দিয়ে দিয়ে

বহায় গঙ্গাস্রাব।

মক্তবের একঝাঁক সই এখনো আমার দুই কানে

নীরব-নৈঃসঙ্গ্যে বাঁশঝাড়ের একঝাঁক ভোরের পাখির মতো

তোলে পবিত্র কলরব,

বলো সেই সুরে এই ধুমাধুম নগরে কে আর কান পাতে আজ,

কার মনে বাজে কার পৃথিবীতে হারানো দিনের শান।

উজানের বাঁধে শুকনো বর্ষার সাথে উপোস নদীর পেটে

মিশে গেল আমাদেরও শৈশব।

হারানো মায়ের মরমিয় চোখ দুটো কেবল

এখনো যেন দুমুখো উনুন হয়ে আমার জন্য সারাবেলা স্বপ্ন রাঁধে।

আমার শৈশব আজও আছে উনুনতলায়

মাতাহীন আগুনের পাশে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা