kalerkantho

রবিবার । ২ অক্টোবর ২০২২ । ১৭ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

ফণীমনসা

[ষষ্ঠ শ্রেণির বিজ্ঞান বইয়ের তৃতীয় অধ্যায়ে ফণীমনসার উল্লেখ আছে]

১৫ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ফণীমনসা

ফণীমনসা Cactaceae পরিবারের এক ধরনের ক্যাকটাসজাতীয় উদ্ভিদ। ইংরেজিতে এটি Prickly pear নামে পরিচিত। এরা খুব ধীরে ধীরে বেড়ে ওঠে এবং কোনো রকম ক্ষতি না করলে এটি বহু বছর পর্যন্ত বেঁচে থাকতে পারে। গ্রিকরা কাঁটাওয়ালা এই গাছকে ‘ক্যাকটাস’ বলত।

বিজ্ঞাপন

উত্তর আমেরিকা, ক্যালিফোর্নিয়া, আরিজোনা, মেক্সিকোতে ক্যাকটাস বেশি ছিল। প্রায় দুই শত বছর আগে পর্তুগিজরা এজাতীয় উদ্ভিদকে ভারতীয় উপমহাদেশে নিয়ে আসে বলে ধারণা করা হয়।

ফণীমনসা সমুদ্রের কাছাকাছি এলাকার গ্রামীণ ঝোপ, পর্বতের খাঁজে ও বালুময় মাটিতে ভালো জন্মে। সুদূর ক্যারিবিয়া ও আমেরিকা আদি আবাস হলেও আমাদের প্রাকৃতিক পরিবেশের সঙ্গে মানিয়ে গেছে। এখন এ উদ্ভিদ উষ্ণমণ্ডলীয় এলাকায় ছড়িয়ে গিয়ে অভিযোজিত হয়ে গেছে। আমাদের দেশে প্রায় সব জেলায় বাড়ির বাগানে এই গাছ দেখা যায়। গ্রাম এলাকায় বেড়া দিতে বা বাড়ির শোভাবর্ধন করতে লাগানো হয় ফণীমনসা। সড়ক ও বাঁধের ঢালে ভূমিক্ষয় রোধ করতেও এই গাছ লাগানো হয়। এর বৈজ্ঞানিক নাম Opuntia dillenii.

ফণীমনসা এক থেকে তিন মিটার পর্যন্ত লম্বা হয়। এটি এমন একটি গাছ, যার কাণ্ড পাতার মতো হয়। কাণ্ড সবুজ হওয়ায় পাতার কাজ চালিয়ে নেয়। আকৃতিতে কাণ্ড খাটো ও চ্যাপ্টা। কাঁটাওয়ালা এই চ্যাপ্টা অংশকে বলা হয় এরিওল। এই কাণ্ড বা এরিওল অত্যন্ত রসালো হয়ে থাকে। প্রতি এরিওলে অনেকগুলো কাঁটা গুচ্ছময়ভাবে সন্নিবেশিত থাকে। কাঁটার রং হলুদ। ফণীমনসার পাতা ছোট। দৈর্ঘ্যে চার থেকে ছয় মিলিমিটার পর্যন্ত হয়, যা কিছুদিনের মধ্যেই ঝরে যায়। গ্রীষ্মে এরিওল অংশে ছোট ছোট ফুলের কুঁড়ি আসে। কুঁড়ি পূর্ণতা পেলে তাতে উজ্জ্বল হলুদ রঙের মাঝারি আকৃতির ফুল ধরে। ফুলের দৈর্ঘ্য প্রায় আট সেন্টিমিটার। প্রতিটি ফুলে অসংখ্য পুংকেশর থাকে। ফুল থেকে ফল হয়। ফল পাকলে বেগুনি বর্ণ ধারণ করে। এই ফল বহুবীজী।

ফণীমনসাকে মরুভূমির গাছও বলা হয়ে থাকে। মরুভূমিতে পানি কম থাকায় এদের কাণ্ড পানি মজুদ রাখে বলে কাণ্ড স্ফীত। এদের ‘পর্ণকাণ্ড’ও বলে।

ফণীমনসাতে ক্যালসিয়াম, পটাসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ ইত্যাদি খনিজ মৌল থাকে। আমেরিকার আদিবাসীরা এর ফল ও ফুল খাবার হিসেবে ব্যবহার করে। ফুল থেকে প্রাপ্ত তেল সুগন্ধি তৈরিতে ব্যবহার করা হয়। কাণ্ডের রস পোড়া ক্ষত নিরাময়ে ব্যবহার করা যায়।

ইন্দ্রজিৎ মণ্ডল

[আরো বিস্তারিত জানতে পত্রপত্রিকায় ফণীমনসা সম্পর্কিত লেখাগুলো পড়তে পারো]



সাতদিনের সেরা