kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৬ অক্টোবর ২০২২ । ২১ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

বাংলা

পঞ্চম শ্রেণি : অধ্যায়ভিত্তিক প্রশ্ন

আতাউর রহমান সায়েম, সিনিয়র সহকারী শিক্ষক, আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ মতিঝিল, ঢাকা

১১ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কবিতা

ফুটবল খেলোয়াড়

জসীমউদ্দীন

►  নিচের কবিতাংশটুকু পড়ে ক, খ ও গ ক্রমিকের প্রশ্নের উত্তর লেখো :

     আমাদের মেসে ইমদাদ হক ফুটবল খেলোয়াড়,

     হাতে পায়ে মুখে শত আঘাতের ক্ষতে খ্যাতি লেখা তার।

     সন্ধ্যাবেলায় দেখিবে তাহারে পটি বাঁধি পায়ে হাতে,

     মালিশ মাখিছে প্রতি গিঁটে গিঁটে কাত হয়ে বিছানাতে।

     মেসের চাকর হয় লবেজান সেঁক দিতে ভাঙা হাড়ে,

     সারা রাত শুধু ছটফট করে কেঁদে কেঁদে ডাক ছাড়ে।

     আমরা তো ভাবি ছ মাসের তরে পঙ্গু সে হলো হায়,

     ফুটবল-টিমে বল লয়ে কভু দেখিতে পাব না তায়।

বিজ্ঞাপন

ক)   ইমদাদ হক কে? সে কোথায় থাকে?

খ)   কবিতাংশটির মূলবক্তব্য লেখো।

গ)   ইমদাদ হকের হাড় ভাঙলে কেমন অবস্থার সৃষ্টি হয়? তিনটি বাক্যে লেখো।

 

উত্তর :

ক)   ইমদাদ হক একজন ফুটবল খেলোয়াড়। সে কবি জসীমউদ্দীনের মেসে থাকে।

 

খ)   কবিতাংশে একজন ফুটবল খেলোয়াড় ইমদাদ হকের খেলার প্রতি ভালোবাসা প্রকাশ পেয়েছে। সারা দিন খেলার পর সন্ধ্যায় হাতে-পায়ে পটি বেঁধে সে মেসে হাজির হয়। কাত হয়ে গিঁটে গিঁটে মালিশ মাখে। মেসের চাকর তার সেবাযত্ন করতে করতে ক্লান্ত হয়ে পড়ে। সারা রাত শুধু বিছানায় শুয়ে সে ছটফট করে।

 

গ)   ইমদাদ হকের হাড় ভাঙলে কেমন অবস্থার সৃষ্টি হয়েছিল, তিনটি বাক্যে নিচে তা উল্লেখ করা হলো—

     i. ইমদাদ হক প্রতিদিন খেলতে গিয়ে হাত-পায়ের হাড় ভেঙে ফিরে আসে।

     ii. তার মেসের চাকর ভাঙা হাড়ে সেঁক দিতে দিতে ক্লান্ত হয়ে পড়ে।

     iii. হাত-পায়ের হাড় ভাঙা ব্যথায় সে সারা রাত শুধু ছটফট করে কেঁদে কেঁদে ডাক ছাড়ে।



সাতদিনের সেরা