kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০২২ । ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

এইচএসসি পরীক্ষা : অধ্যায়ভিত্তিক প্রশ্ন ফিন্যান্স, ব্যাংকিং ও বিমা প্রথম পত্র

মোহাম্মদ জয়নাল আবেদীন, প্রভাষক, হিসাববিজ্ঞান বিভাগ সিদ্ধেশ্বরী কলেজ, ঢাকা

৭ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৬ মিনিটে



এইচএসসি পরীক্ষা : অধ্যায়ভিত্তিক প্রশ্ন ফিন্যান্স, ব্যাংকিং ও বিমা প্রথম পত্র

অঙ্কন : শেখ মানিক

ষষ্ঠ অধ্যায়

দীর্ঘমেয়াদি অর্থায়ন

জ্ঞানমূলক প্রশ্ন

[পূর্ব প্রকাশের পর]

 

৫৭।   বোনাস শেয়ার কী?

     উত্তর : কোম্পানির সঞ্চিত তহবিল যদি পরিমাণে বেশি হয়ে থাকে, তাহলে ওই অর্থ কতগুলো শেয়ারে বিভক্ত করে সাধারণ শেয়ারহোল্ডারদের মধ্যে আনুপাতিক হারে বিনা মূল্যে বণ্টন করা হয় তাকে বোনাস শেয়ার বলে।

৫৮।   লভ্যাংশ শেয়ার কী?

     উত্তর : শেয়ারহোল্ডারদের মাঝে লভ্যাংশ হিসাবে নগদ অর্থের পরিবর্তে যদি সাধারণ শেয়ার আনুপাতিক হারে বণ্টন করা হয় তাকে লভ্যাংশ শেয়ার বলে।

বিজ্ঞাপন

৫৯।   অধিকার শেয়ার কী?

     উত্তর : কোম্পানি অতিরিক্ত মূলধন সংগ্রহের উদ্দেশ্যে নতুন শেয়ারবাজারে ছাড়ার আগে বর্তমানে সাধারণ শেয়ারহোল্ডারদের ক্রয়ের আমন্ত্রণ জানানো হয়। শেয়ার বিক্রয়ের ক্ষেত্রে খোলাবাজারে বিক্রয়ের আগে বর্তমান

     শেয়ারহোল্ডারদের এই অধিকারের জন্য এটিকে অধিকার শেয়ার বলে।

৬০।   ঋণ মূলধন কী?

     উত্তর : বন্ডসহ ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে নিয়োজিত সর্বপ্রকার গৃহীত দীর্ঘমেয়াদি ধার বা ঋণকে ঋণ মূলধন বলে।

৬১।   বন্ড বা ঋণপত্র কী?

     উত্তর : পাবলিক লি. কোম্পানি যে দলিলের মাধ্যমে ঋণ গ্রহণ করে থাকে তাকে বন্ড বা ঋণপত্র বলে। এরূপ ঋণপত্রে লিখিত মূল্য, সময়, সুদের হার, অন্যান্য শর্ত উল্লেখ থাকে।

৬২।   বন্ড বা ঋণপত্র কয় প্রকার?

     উত্তর : বন্ড বা ঋণপত্র প্রধানত দুই প্রকার, যথা : পরিশোধ্য বন্ড/ঋণপত্র ও অপরিশোধ্য বন্ড/ঋণপত্র।

৬৩।   বন্ড বা ঋণপত্রের ব্যয় কী?

     উত্তর : ঋণ গ্রহণের মাধ্যমে দীর্ঘমেয়াদি তহবিল সংগ্রহের কর-পরবর্তী বর্তমানের ব্যয়কে বন্ড বা ঋণপত্রের ব্যয় বলে।

৬৪।   মূলধনের কোন কোন উৎসর ব্যয় স্থির বা নির্ধারিত?

     উত্তর : বন্ড বা ঋণপত্রের ওপর প্রদত্ত সুদ এবং অগ্রাধিকার শেয়ারের ওপর প্রদত্ত লভ্যাংশের ব্যয় স্থির বা নির্ধারিত।

৬৫।   কোন মূলধন ব্যয়ের ক্ষেত্রে আয়কর বিবেচনা করা হয়?

     উত্তর : বন্ড বা ঋণপত্রের ব্যয়ের ক্ষেত্রে আয়কর বিবেচনা করা হয়।

৬৬।   কোন ধরনের সিকিউরিটির পরিশোধ মূল্য নির্ণয় করতে হয়?

     উত্তর : শুধুমাত্র পরিশোধ্য সিকিউরিটি (যেমন—পরিশোধ্য বন্ড/ঋণপত্র এবং পরিশোধ্য অগ্রাধিকার শেয়ার)-এর পরিশোধ মূল্য নির্ণয় করতে হয়।

৬৭। কোন ধরনের সিকিউরিটির পরিশোধ মূল্য নির্ণয় করতে হয় না?

     উত্তর : সাধারণ শেয়ার, অপরিশোধ্য বন্ড/ঋণপত্র এবং অপরিশোধ্য অগ্রাধিকার শেয়ারের পরিশোধ মূল্য নির্ণয় করতে হয় না। কারণ এগুলোর নির্দিষ্ট কোনো মেয়াদ নেই। অনির্ধারিত মেয়াদের জন্য এগুলো ইস্যূ করা হয়।

৬৮।   ওয়ারেন্ট কী?

     উত্তর : শেয়ার ক্রয়ের এক ধরনের অধিকার, যার মাধ্যমে ক্রেতাকে বন্ড ক্রয়ে উৎসাহিত করা হয় তাকে ওয়ারেন্ট বলে।

৬৯।   পরিবর্তনযোগ্য সিকিউরিটি কী?

     উত্তর : যেসব বন্ড বা অগ্রাধিকার শেয়ার প্রাথমিকভাবে বাজারে বিক্রি করা হয় কিন্তু নির্দিষ্ট সময় পরে সাধারণ শেয়ারে রূপান্তর করা হয় তাকে পরিবর্তনযোগ্য সিকিউরিটি বলে।

৭০।   আয়কর সমন্বয় কী?

     উত্তর : কোম্পানির ক্ষেত্রে আয় থেকে আয়কর বাদ দেওয়াকে আয়কর সমন্বয় বলে।

৭১।   কর্পোরেট ট্যাক্স/আয়কর কী?

     উত্তর : একটি কোম্পানির আয়ের ওপর প্রযোগ্য আয়করের হারকে কর্পোরেট ট্যাক্স/আয়কর বলে।

৭২।   ব্যক্তিগত আয়কর কী?

     উত্তর : একজন ব্যক্তির আয়ের ওপর প্রযোগ্য আয়করের হারকে ব্যক্তিগত আয়কর বলে।

৭৩।   লভ্যাংশ আয়কর কী?

     উত্তর : একটি কোম্পানির লভ্যাংশের ওপর প্রযোগ্য আয়করের হারকে লভ্যাংশ আয়কর বলে।

৭৪।   সাধারণ শেয়ার মূলধনের ব্যয় কী?

     উত্তর : ফার্মের প্রত্যাশিত লভ্যাংশ থেকে এটির শেয়ার মূল্য নির্ণয়ের জন্য বিনিয়োগকারী যে হারে বাট্টা করে থাকে তাকে সাধারণ শেয়ার মূলধনের ব্যয় (cost of common stock equity) বলে।

৭৫।   মূলধনের কোন উৎসর ব্যয় অনির্ধারিত বা পরিবর্তনশীল?

     উত্তর : সাধারণ শেয়ারের ওপর প্রদত্ত লভ্যাংশের ব্যয় অনির্ধারিত বা পরিবর্তনশীল। এটি ব্যয় স্থির নয়।

৭৬।   নতুন ইস্যুকৃত সাধারণ শেয়ারের ব্যয় কী?

     উত্তর : নিট অবমূল্যায়িত এবং আনুষঙ্গিক উত্তরণ ব্যয়ই হলো নতুন ইস্যুকৃত সাধারণ শেয়ারের ব্যয়।

৭৭।   কোম্পানির প্রথম দাবিদার কে?

     উত্তর : কোম্পানির প্রথম দাবিদার হলো বন্ডহোল্ডার বা ঋণপত্রের মালিকগণ।

৭৮।   কোম্পানির শেষ দাবিদার কে?

     উত্তর : কোম্পানির শেষ দাবিদার হলো সাধারণ শেয়ারহোল্ডাররা বা সাধারণ শেয়ার মালিকগণ।

৭৯।   অমূল্যায়িত শেয়ার কী?

     উত্তর : যেসব শেয়ারের লিখিত মূল্য উল্লেখ নেই, বছরের শেষে কারবারের সম্পত্তি থেকে দায় বাদ দেওয়ার পর এই ধরনের শেয়ারের লিখিত মূল্য নির্ধারিত হয় তাকে অমূল্যায়িত শেয়ার বলে। এ ধরনের শেয়ার কোম্পানির উদ্যোক্তাদের মধ্যে বিতরণ করা হয়।

৮০।   বহি মূল্য কী?

     উত্তর : একটি কোম্পানির মোট সম্পত্তি বা মূলধন থেকে সর্বপ্রকার দায়দেনা বাদ দেওয়ার পর যে অবশিষ্ট মূল্য থাকে তাকে কোম্পানির মোট পরিশোধিত শেয়ারের সংখ্যা দ্বারা ভাগ দিলে যে মূল্য পাওয়া যাবে তাকে শেয়ারপ্রতি বহি মূল্য বলে।

৮১।   লিখিত মূল্য/সমমূল্য কী?

     উত্তর : কোনো একটি আর্থিক সম্পদের হিসাববিজ্ঞানের নিয়মানুযায়ী উদ্বৃতপত্রে যে মূল্য উল্লেখ করা হয় তাকে লিখিত মূল্য বা সমমূল্য বলা হয়। সিকিউরিটি যখন বাজারে ছাড়া হয়, তখন লিখিত মূল্য, অর্থনৈতিক মূল্য ও বাজারমূল্য একই থাকে।

৮২। বাজার বা বিক্রয় মূল্য কী?

     উত্তর : একটি পূর্ণ প্রতিযোগিতামূলক বাজারে কোনো শেয়ার বা সিকিউরিটি যে মূল্যে লেনদেন হয় তাকে বাজারমূল্য বা বিক্রয় মূল্য বলে।

৮৩।   অর্থনৈতিক মূল্য কী?

     উত্তর : বিনিয়োগকারী ভবিষ্যৎ আয়ের আশায় বর্তমানে যে অর্থ বিনিয়োগ করে, তা-ই হলো ওই সম্পদের অর্থনৈতিক মূল্য। অর্থাৎ ভবিষ্যতে প্রাপ্তব্য অর্থের জন্য বর্তমানে যে পরিমাণ অর্থ বিনিয়োগ করা হয় তাকে অর্থনৈতিক মূল্য বলে।

৮৪।   অবসায়ন মূল্য কী?

     উত্তর : কোনো একটি আর্থিক সম্পদের অবসায়ন মূল্য বের করতে হলে প্রথমে ওই সম্পদের বর্তমান বাজারমূল্য নির্ণয় করতে হবে। বাজারমূল্য বের করার পর তা হতে সর্বপ্রকার দায়দেনা পরিশোধ করার পর যে অবশিষ্ট অর্থ থাকে তা হলো অবসায়ন মূল্য। অবসায়ন মূল্যকে মোট পরিশোধিত শেয়ার দ্বারা ভাগ দিলে শেয়ার প্রতি অবসায়ন মূল্য পাওয়া যাবে।

৮৫।   চলমান মূল্য কী?

     উত্তর : একটি কোম্পানি বর্তমান কারবার পরিচালনায় আছে এবং ভবিষ্যতে থাকবে এরূপ ফার্মের ভবিষ্যতে প্রাপ্ত সম্ভাব্য সব নগদ প্রবাহকে বাট্টাকরণ করলে যে মূল্য পাওয়া যাবে তাকে চলমান মূল্য বলে। চলমান মূল্য সব সময় ওই সময়কার বাজার মূল্যের সাথে পরিবর্তন হয়ে থাকে।

৮৬।   ব্রেকআপ মূল্য কী?

     উত্তর : কোনো ফার্মের সিকিউরিটির বৃহৎ অংশ হতে আলাদা ছোট অংশের বিক্রয় মূল্যকে ব্রেকআপ মূল্য বলে। কোম্পানির ব্যবস্থাপনা ও ব্যবসায় পরিচালনার ক্ষেত্রে যদি কোনো একটি অংশ আলাদাভাবে ক্ষতির সম্মুখীন হয়, তাহলে পুরো অংশটি বিক্রয় করার চেয়ে ছোট অংশটি আলাদাভাবে বিক্রয় করাই শ্রেয়। সম্পদের অতিরিক্ত এই অংশের বিক্রয় মূল্যই হলো breakup value.



সাতদিনের সেরা