kalerkantho

সোমবার । ২৭ জুন ২০২২ । ১৩ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৬ জিলকদ ১৪৪৩

জানা-অজানা

ফারাও

[ষষ্ঠ শ্রেণির বাংলা চারুপাঠ বইয়ের নীলনদ আর পিরামিডের দেশ গল্পে ফারাওদের উল্লেখ আছে]

ইন্দ্রজিৎ মণ্ডল   

১৯ মে, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ফারাও

প্রাচীন মিসরের রাজাদের বলা হতো ফারাও। ফারাওরা ইতিহাস বিখ্যাত হয়েছেন তাঁদের কীর্তির জন্য। ফারাওরা যে শুধু রাজা ছিলেন তা নয়, তাঁরা ছিলেন মিসরের ঈশ্বরও! ফারাও শব্দটি এসেছে প্রাচীন গ্রিক ভাষা থেকে। প্রাচীন মিসরের ‘পের-ও’ থেকে ফারাও শব্দটি এসেছে, যার আক্ষরিক অর্থ ছিল রাজার বাড়ি বা মহান নিবাস।

বিজ্ঞাপন

কিন্তু গ্রিক-রোমান কর্তৃক বিজয়ের আগ পর্যন্ত প্রাচীন মিসরীয় রাজবংশের রাজাদের প্রচলিত উপাধি হিসেবেই ফারাও শব্দটি ব্যবহার করা হতো।

৫০০০-৩২০০ খ্রিস্টপূর্বাব্দ পর্যন্ত সময়ে মিসরকে প্রাক-রাজবংশীয় যুগ বলা হয়। এ সময় মিসর কতগুলো ছোট ছোট নগররাষ্ট্রে বিভক্ত ছিল। এগুলোকে বলা হয় নোম। ৩২০০ খ্রিস্টপূর্বাব্দে ‘মেনেস’ নামের এক রাজা সমগ্র মিসরকে একত্র করে একটি নগররাষ্ট্র গড়ে তোলেন। দক্ষিণ মিসরের ‘মেস্ফিস’ হয় এর রাজধানী। এভাবে মিসরে রাজবংশের সূচনা হয়। মিসরের প্রথম নরপতি ও পুরোহিত মেনেসই (নারমার) প্রথম ফারাওয়ের মর্যাদা লাভ করেন। মিসরীয় সভ্যতার গোড়াপত্তন হয় এই মেনেসের নেতৃত্বেই।

প্রাচীন মিসরের নতুন রাজ্যের সময় ফারাওরা ধর্মীয় এবং রাজনৈতিক নেতা ছিলেন। ‘বড় বাড়ি’ বলতে তখন রাজাদের বাড়িকে বোঝানো হতো। যদিও মিসরের শাসকরা সাধারণত পুরুষ ছিলেন, ফারাও শব্দটা বিরলভাবে মহিলা শাসকদের ক্ষেত্রেও ব্যবহার করা হতো। ফারাওরা বিশ্বাস করতেন যে মরণের পর তাঁদের আত্মা দেবতা হরুসের সঙ্গে মিলে যাবে।

তাঁরা নিজেদের সূর্যের বংশধর মনে করতেন। নিজেদের দেবতা বলে মনে করায় তাঁরা বংশের বাইরে কাউকে বিবাহ করতেন না। ফলে ভাই-বোনদের মধ্যেই বিবাহ সম্পন্ন হতো। ফারাওয়ের মৃত্যুর পরও জীবন আছে বলে বিশ্বাস করতেন। তাই তাঁদের মৃত্যুর পর পিরামিড বানিয়ে তাঁর নিচে সমাধিকক্ষে তাঁদের দৈনন্দিন জীবনের ভোগ-বাসনার সমস্ত সরঞ্জাম রাখতেন। মৃতদেহকে পচন থেকে বাঁচাবার জন্য তাঁরা দেহকে মমি বানিয়ে স্বর্ণালংকারে মুড়ে সমাধিকক্ষের শবাধারে রাখা হতো।

ফারাওদের পোশাক অতি বৈচিত্র্যময় ছিল। তবে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য হলো তাঁদের পরিহিত মুকুট। তাঁরা সাদা এবং লাল রঙের মুকুট পরতেন। মিসর থেকে উদ্ধারকৃত নার্মার প্যালেট থেকে এ তথ্য মেলে।

ফারাও পদটি ছিল বংশানুক্রমিক। অর্থাৎ ফারাওয়ের সন্তানই হতো উত্তরাধিকার সূত্রে ফারাও। সর্বশেষ ফারাও ছিলেন সপ্তম ক্লিওপেট্রা। প্রায় তিন হাজার বছর ধরে টিকে ছিল ফারাওদের শাসন। খ্রিস্টপূর্ব ৩০ অব্দে রোমানরা মিসর দখল করে নিলে ফারাও শাসনের অবসান হয়।

 

[আরো বিস্তারিত জানতে পত্রপত্রিকায় ফারাও সম্পর্কিত লেখাগুলো পড়তে পারো]

 



সাতদিনের সেরা