kalerkantho

বৃহস্পতিবার ।  ১৯ মে ২০২২ । ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৭ শাওয়াল ১৪৪৩  

বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয়

পঞ্চম শ্রেণি : অধ্যায়ভিত্তিক প্রশ্ন

ওয়াহিদা নার্গিস, প্রধান শিক্ষক, খিলগাঁও স্টাফ কোয়ার্টার সরকারি, প্রাথমিক বিদ্যালয়, ঢাকা

১৫ মে, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৫ মিনিটে



পঞ্চম শ্রেণি : অধ্যায়ভিত্তিক প্রশ্ন

শিল্পির চোখে ্রিটিশ শাসনামলের ছবি

দ্বিতীয় অধ্যায়

ব্রিটিশ শাসন

সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন

[পূর্ব প্রকাশের পর]

২০।     সিপাহি বিদ্রোহ সংঘটিত হওয়ার দুটি কারণ লেখো।

          উত্তর : সিপাহি বিদ্রোহ সংঘটিত হওয়ার দুটি কারণ হলো : ক) সেনাবাহিনীতে সিপাহি পদে ভারতীয়দের সংখ্যাধিক্য ছিল। সেখানে ৫০ হাজার ব্রিটিশ ও তিন লাখ ভারতীয় সিপাহি ছিল এবং

          খ) ভারতের বিভিন্ন এলাকার সেনাদের মধ্যে সামাজিক বিশৃঙ্খলা তৈরি হয়।

বিজ্ঞাপন

২১। বিদ্রোহী বাঙালি সিপাহিদের কখন ও কোথায় ফাঁসি দেওয়া হয়েছিল?

          উত্তর : বিদ্রোহী বাঙালি সিপাহিদের ১৮৫৭ সালে ঢাকার বাহাদুর শাহ পার্কে ফাঁসি দেওয়া হয়েছিল।

২২। বঙ্গভঙ্গ কাকে বলে?

          উত্তর : ব্রিটিশরা ভারতীয় জাতীয় চেতনার প্রসারে ভীত হয়ে পড়ে ১৯০৫ সালে বাংলা প্রদেশকে ভাগ করার যে সিদ্ধান্ত নেয় তাকে বঙ্গভঙ্গ বলে।

২৩। কেন বঙ্গভঙ্গ রদ করা হয়?

          উত্তর : বঙ্গভঙ্গের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ শুরু হলে ১৯১১ সালে বঙ্গভঙ্গ রদ করা হয়।

২৪। ব্রিটিশ শাসনের দুটি খারাপ দিক সম্পর্কে লেখো।

          উত্তর : ব্রিটিশ শাসনের দুটি খারাপ দিক হলো :

          ক) ‘ভাগ কর শাসন কর’ নীতির ফলে এ দেশের মানুষের মধ্যে জাতি-ধর্ম-বর্ণ ও অঞ্চলভেদে বিভেদ সৃষ্টি হয় এবং

          খ) অনেক কারিগর বেকার ও অনেক কৃষক গরিব হয়ে যায় এবং বাংলায় দুর্ভিক্ষ দেখা দেয়।

২৫। নারীশিক্ষার প্রসারে কে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন?

          উত্তর : নারীশিক্ষার প্রসারে এ সময় বেগম রোকেয়া গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন।

২৬। ১৯৪৭ সালে কোন দুটি আলাদা রাষ্ট্রের জন্ম হয়?

          উত্তর : ১৯৪৭ সালে পাকিস্তান ও ভারত নামে দুটি আলাদা রাষ্ট্রের জন্ম হয়।

২৭। কিভাবে এই দুটি রাষ্ট্রের জন্ম হয়?

          উত্তর : ভারতীয়দের বারবার আন্দোলনের ফলে ইংরেজরা ভারত ত্যাগ করতে বাধ্য হওয়ায় এই দুটি রাষ্ট্রের জন্ম হয়।

 

তৃতীয় অধ্যায়

বাংলাদেশের ঐতিহাসিক স্থান ও নিদর্শন

 

১।      শশি ‘ক’ নামক ঐতিহাসিক নিদর্শনে বেড়াতে গিয়েছিল, যা বগুড়া শহর থেকে ১৮ কিলোমিটার উত্তরে করতোয়া নদীর তীরে অবস্থিত। ‘ক’ নামক নিদর্শনটির নাম কী?

          উত্তর : ‘ক’ নামক নিদর্শনটির নাম মহাস্থানগড়।

২।      মহাস্থানগড়ে প্রাপ্ত নিদর্শন খোদাই পাথরটি কত মিটার লম্বা?

          উত্তর : মহাস্থানগড়ে প্রাপ্ত নিদর্শন খোদাই পাথরটি ৩.৩৫ মিটার লম্বা।

৩।      মহাস্থানগড়ে কী ধরনের শিলালিপি পাওয়া গেছে?

          উত্তর : মহাস্থানগড়ে প্রাচীন ব্রাহ্মী শিলালিপি পাওয়া গেছে।

৪।      কোন জেলার উয়ারী ও বটেশ্বর নামক দুটি গ্রামে খ্রিস্টপূর্ব ৪৫০ অব্দের মৌর্য আমলের আগের নিদর্শন পাওয়া গেছে?

          উত্তর : নরসিংদী জেলার উয়ারী ও বটেশ্বর নামক দুটি গ্রামে খ্রিস্টপূর্ব ৪৫০ অব্দের মৌর্য আমলের আগের নিদর্শন পাওয়া গেছে।

৫।      কোন সভ্যতাটি সমুদ্র বাণিজ্যের সঙ্গে সম্পর্কিত ছিল?

          উত্তর : উয়ারী-বটেশ্বর সভ্যতাটি সমুদ্র বাণিজ্যের সঙ্গে সম্পর্কিত ছিল।

৬।      ঐতিহাসিক স্থান ও নিদর্শনগুলো থেকে আমরা কী জানতে পারি?

          উত্তর : ঐতিহাসিক স্থান ও নিদর্শনগুলো থেকে আমরা অতীতের সংস্কৃতি ও সভ্যতা সম্পর্কে জানতে পারি।

৭।      পাল রাজা ধর্মপালের শাসনামলে নির্মিত হয়েছিল এমন একটি ঐতিহাসিক নিদর্শন কোনটি?

          উত্তর : পাল রাজা ধর্মপালের শাসনামলে নির্মিত হয়েছিল এমন একটি ঐতিহাসিক নিদর্শন পাহাড়পুর।

৮।      পাহাড়পুর নিদর্শনটি আর কী নামে পরিচিত?

          উত্তর : পাহাড়পুর নিদর্শনটি ‘সোমপুর মহাবিহার’ নামেও পরিচিত।

৯।      কোন নিদর্শনটি অষ্টম শতকের রাজা মানিক চন্দ্রের স্ত্রীর কাহিনির সঙ্গে জড়িত?

          উত্তর : ময়নামতী নিদর্শনটি অষ্টম শতকের রাজা মানিক চন্দ্রের স্ত্রীর কাহিনির সঙ্গে জড়িত।

১০।    ময়নামতীতে কাদের আবাসন সুবিধাসহ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের নিদর্শন পাওয়া গেছে?

          উত্তর : ময়নামতীতে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের আবাসন সুবিধাসহ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের নিদর্শন পাওয়া গেছে।

১১ ।    সতেরো শতকের ঐতিহাসিক নিদর্শন কী কী?

          উত্তর : সোনারগাঁ ও লালবাগ কেল্লা সতেরো শতকের ঐতিহাসিক নিদর্শন।

১২।     সোনারগাঁ কোথায় অবস্থিত?

          উত্তর : ঢাকার দক্ষিণ-পূর্ব দিকে নারায়ণগঞ্জ জেলার মেঘনা নদীর তীরে সোনারগাঁ অবস্থিত।

১৩।     সোনারগাঁ কাদের রাজধানী ছিল?

          উত্তর : সোনারগাঁ প্রাচীন বাংলার মুসলমান সুলতানদের রাজধানী ছিল।

১৪।     পানামনগর কখন ও কাদের সুতা বাণিজ্যের কেন্দ্র হিসেবে গড়ে ওঠে?

          উত্তর : পানামনগর উনিশ শতকে হিন্দু বণিকদের সুতা বাণিজ্যের কেন্দ্র হিসেবে গড়ে ওঠে।

১৫। কে কখন লোকশিল্প জাদুঘর প্রতিষ্ঠা করেন?

          উত্তর : শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিন ১৯৭৫ সালে লোকশিল্প জাদুঘর প্রতিষ্ঠা করেন।

১৬।     কোথায় ও কখন লালবাগ কেল্লা নির্মাণ করা হয়?

          উত্তর : ১৬৭৮ সালে ঢাকার দক্ষিণ-পশ্চিমে বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে লালবাগ কেল্লা নির্মাণ করা হয়।

১৭।     লালবাগ কেল্লা দুর্গটি কিসের তৈরি?

          উত্তর : লালবাগ কেল্লা দুর্গটি সম্পূর্ণ ইটের তৈরি।

১৮। কোন ঐতিহাসিক নিদর্শনের দুর্গের মাঝখানে মোগল শাসকরা খোলা জায়গায় তাঁবু টানিয়ে বসবাস করতেন?

          উত্তর : লালবাগ কেল্লার দুর্গের মাঝখানে মোগল শাসকরা খোলা জায়গায় তাঁবু টানিয়ে বসবাস করতেন।

১৯।     ‘ক’ নামক নিদর্শনটি বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে অবস্থিত বাংলার নবাবদের রাজপ্রাসাদ। এটি কোন ঐতিহাসিক নিদর্শন?

          উত্তর : এটি আহসান মঞ্জিল নামক ঐতিহাসিক নিদর্শন।

 ২০। কে কখন এই প্রাসাদটি নির্মাণ করেন?

          উত্তর : মোগল আমলে জামালপুর পরগনার জমিদার শেখ এনায়েতউল্লাহ এই প্রাসাদটি নির্মাণ করেন।



সাতদিনের সেরা