kalerkantho

মঙ্গলবার । ৪ মাঘ ১৪২৮। ১৮ জানুয়ারি ২০২২। ১৪ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

ডিপথেরিয়া

[পঞ্চম শ্রেণির আমার বাংলা বইয়ের ‘অবাক জলপান’ নাটকে ডিপথেরিয়ার উল্লেখ আছে]

৯ ডিসেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ডিপথেরিয়া

ডিপথেরিয়ার জীবাণু

ডিপথেরিয়া হলো একটি ব্যাকটেরিয়া সংক্রমিত রোগ, যা করাইনিব্যাকটেরিয়াম ডিপথেরির কারণে হয়ে থাকে। এই রোগ সাধারণত শীতকালে হয়। পাঁচ বছর এবং এর নিচের বাচ্চাদের উপর এই রোগের প্রভাব বেশি। করাইনিব্যাকটেরিয়াম ডিপথেরি ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণের ফলে গলার পেছন দিকটা পুরু আস্তরণ দ্বারা ঢেকে যায়। এর ফলে খাবার খেতে বা গিলতে খুব সমস্যা হয়। যদিও ব্যাকটেরিয়াটি বিশেষত নাক ও গলায় প্রভাব ফেলে, তবে কিছু ক্ষেত্রে এটি ত্বকেও সংক্রমণ ঘটাতে পারে।

মানুষই এই রোগের একমাত্র পোষক। সাধারণত আক্রান্ত ব্যক্তির হাঁচি-কাশির মাধ্যমে কিংবা ত্বকের ডিপথেরিয়ায় আক্রান্ত ব্যক্তির সরাসরি সংস্পর্শে এই রোগ অন্য কোনো সুস্থ ব্যক্তিতে ছড়ায়। এ ছাড়া অসম্পূর্ণ টিকাদান কর্মসূচি, ভঙ্গুর স্বাস্থ্যব্যবস্থা, অস্বাস্থ্যকর ঘিঞ্জি পরিবেশ, জনসংখ্যাধিক্য, স্বাস্থ্যবিধি সম্পর্কে পর্যাপ্ত জ্ঞানের অভাব এই রোগের বিস্তারে গুরুত্বপূর্ণ নিয়ামক হিসেবে কাজ করে। এই রোগের উপসর্গের মধ্যে জ্বর, গলাব্যথা, নাক দিয়ে পানি বা রক্ত মিশ্রিত পানি পড়া, অস্বস্তিভাব, গলা ভেঙে কর্কশ হওয়া, কাশি হওয়া, ঢোক গিলতে ব্যথা বা কষ্ট হওয়া, গলা ফুলে যাওয়া, শ্বাস নেওয়ার সময় শব্দ হওয়া, শ্বাসকষ্ট, ক্লান্তি বা অবসন্নতা বা দেহ নিস্তেজ হয়ে যাওয়া, মুখের তালু, আলাজিহ্বা প্রভৃতি স্থানে সাদাটে-ধূসর, পুরু আস্তরণ পড়া প্রভৃতি।

ডিপথেরিয়া প্রতিরোধের অন্যতম উপায় হচ্ছে এই রোগের টিকা নেওয়া। এই রোগের টিকাকে বলে ডিপিটি ভ্যাকসিন (উচঞ ঠধপপরহব)। টিকা প্রদান করলে বাচ্চাদের ডিপথেরিয়ার পাশাপাশি ধনুষ্টঙ্কার ও হুপিং কাশি রোগেরও প্রতিরোধক্ষমতা জন্মায়।

বাংলাদেশে সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচি ও গণসচেতনতার কারণে ডিপথেরিয়া নির্মূল করা অনেকাংশে সম্ভব হয়েছে। এ দেশে সর্বশেষ ১৯৭৬ সালে গলায় ডিপথেরিয়া এবং ১৯৮৩ সালে ত্বকের ডিপথেরিয়া রোগী শনাক্ত হওয়ার রেকর্ড আছে। তবে ২০১৭ সাল থেকে কক্সবাজারের রোহিঙ্গা আশ্রয়শিবিরে এই রোগের অস্তিত্ব পাওয়া যায় এবং চার হাজারের বেশি রোহিঙ্গা আক্রান্ত হয়।

 

  ►   ইন্দ্রজিৎ মণ্ডল

[আরো বিস্তারিত জানতে মেডলাইনপ্লাস মেডিক্যাল এনসাইক্লোপিডিয়া ও পত্রপত্রিকায় ডিপথেরিয়া সম্পর্কিত লেখাগুলো পড়তে পারো।]



সাতদিনের সেরা