kalerkantho

বুধবার । ১২ মাঘ ১৪২৮। ২৬ জানুয়ারি ২০২২। ২২ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

শ্রবণশক্তি

[পঞ্চম শ্রেণির প্রাথমিক বিজ্ঞান বইয়ের দ্বিতীয় অধ্যায়ে শ্রবণশক্তির উল্লেখ আছে]

৬ ডিসেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শ্রবণশক্তি

মানুষ, অন্য প্রাণী, পাখি বা পতঙ্গের কানে বা শ্রবণেন্দ্রিয়ের মাধ্যমে শোনার ক্ষমতাকে তার শ্রবণশক্তি বলে। মানুষসহ বিভিন্ন প্রাণীর শ্রবণশক্তির মাত্রা নানা রকম হয়। এই মাত্রাকে তার শ্রবণসীমা (Hearing range) বলে। মানুষের শ্রবণসীমা ২০-২০,০০০ হার্জ, কুকুরের ৫০-৪৬০০০ হার্জ, বিড়ালের ৩০-৫০০০০ হার্জ।

বিজ্ঞাপন

বাদুড়ের শ্রবণসীমা ৩০০০-১০০০০০ হার্জ।

শ্রবণশক্তি একজন স্বাভবিক মানুষের সবচেয়ে বড় বৈশিষ্ট্য। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য অনুযায়ী বর্তমানে বিশ্বের মোট জনসংখ্যার ৫ শতাংশ মানুষ স্বাভাবিকের তুলনায় কানে কম শোনে। বিজ্ঞানীদের ধারণা, ৬৫ বছর বয়সের পরে এক-তৃতীয়াংশ মানুষ স্বাভাবিক শ্রবণশক্তি হারিয়ে ফেলে। দক্ষিণ এশিয়া, এশিয়া প্যাসিফিক ও আফ্রিকার সাব-সাহারা অঞ্চলের মানুষের মাঝে শ্রবণশক্তি হারানোর মাত্রা সবচেয়ে বেশি।

সাধারণত জন্মগত ও পারিপার্শ্বিক কারণে শ্রবণশক্তি কমে যায়। একটি শিশু গর্ভাবস্থায় বা জন্মের সময় শ্রবণত্রুটি নিয়ে জন্মাতে পারে। সাধারণত মা-বাবার জেনেটিক কারণে এবং গর্ভাবস্থায় বা জন্মের সময় কিছু জটিলতার কারণে শ্রবণশক্তি হারাতে পারে। যেমন—গর্ভাবস্থায় মাতৃ রুবেলা, সিফিলিস বা অন্য কোনো ইনফেকশনের কারণে, কম ওজন নিয়ে জন্মালে, জন্মের সময় অক্সিজেন স্বল্পতার কারণে শ্বাসকষ্ট হলে শিশু শ্রবণশক্তি হারাতে পারে।

পারিপার্শ্বিক কারণে যেকোনো বয়সের মানুষের শ্রবণশক্তি হ্রাস পেতে পারে। কারণগুলোর মধ্যে ভাইরাস বা ব্যাকটেরিয়ার মাধ্যমে মস্তিষ্কে মেনিনজাইটিস সংক্রমণ, হামজাতীয় রোগের সংক্রমণ, কানের দীর্ঘস্থায়ী সংক্রমণ, কানে তরলজতীয় পদার্থ জমে থাকা, মাথা বা কানে আঘাত পাওয়া, অতিরিক্ত শব্দ যেমন—পেশাগত কারণে যন্ত্রপাতির অতিরিক্ত শব্দ, হঠাৎ কোনো বিস্ফোরণ প্রভৃতি উল্লেখযোগ্য।

সামান্য সচেতনতা যেমন উচ্চ আওয়াজে গান না শোনা, জোরে হর্ন না বাজানো, কর্মক্ষেত্রের শব্দদূষণের মাত্রা বেশি হলে যথাযথ শব্দরোধকের ব্যবহার করা ইত্যাদি শ্রবণশক্তি হ্রাস প্রতিরোধ করতে পারে। অন্যদিকে যারা বধির, যথাযথ শ্রবণযন্ত্র ব্যবহারের মাধ্যমে তারাও নিজেদের সীমাবদ্ধতা দূর করতে পারে। শ্রবণশক্তি হ্রাস রোধ এবং বিশ্বজুড়ে শ্রবণশক্তির যত্ন কিভাবে নেওয়া যায়, সে সম্পর্কে সচেতনতা বাড়াতে প্রতিবছর ৩ মার্চ বিশ্ব শ্রবণশক্তি দিবস পালন করা হয়।

   ►   ইন্দ্রজিৎ মণ্ডল

 

[আরো বিস্তারিত জানতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও পত্রপত্রিকায় শ্রবণশক্তি সম্পর্কিত লেখাগুলো পড়তে পারো। ]



সাতদিনের সেরা