kalerkantho

রবিবার । ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৫ ডিসেম্বর ২০২১। ২৯ রবিউস সানি ১৪৪৩

দারিয়ুস দ্য গ্রেট

[ষষ্ঠ শ্রেণির বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় বইয়ের দ্বিতীয় অধ্যায়ে দারিয়ুস দ্য গ্রেটের উল্লেখ আছে]

রিদওয়ান আক্রাম   

১৭ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



দারিয়ুস দ্য গ্রেট

পারস্য উপসাগরের উপকূল ঘেঁষে, উত্তর-পশ্চিম ও দক্ষিণ-পূর্ব কোণ বরাবর দাঁড়িয়ে রয়েছে জাগ্রোস পর্বতমালা। এই পর্বতমালার পাদদেশ থেকে পূর্ব দিকে ভারতীয় প্লেট পর্যন্ত বিস্তৃত ইরানি মালভূমি। ভৌগোলিকভাবে ত্রিকোণাকৃতির এই অঞ্চল ১৯৩৫ সাল পর্যন্ত ‘পারস্য’ নামেই পরিচিত ছিল, যা কি না আজকের দিনে ‘ইরান’ নামে পরিচিত। আর এই অঞ্চলেই প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল পৃথিবীর অন্যতম প্রাচীন পরাশক্তি পারস্য সাম্রাজ্য।

সাম্রাজ্যটি মূলত পারস্য অঞ্চলে ৫৫০ খ্রিস্টপূর্বাব্দ থেকে ৬৫১ সাল পর্যন্ত সময়ের মধ্যে পর্যায়ক্রমিকভাবে উৎপত্তি লাভ করা একাধিক সাম্রাজ্যের সমষ্টি। ঐতিহাসিকরা এই সময়কালকে মোট চারটি প্রধান ভাগে ভাগ করেছেন। আকামেনিদ সাম্রাজ্য (খ্রিস্টপূর্ব ৫৫০-খ্রিস্টপূর্ব ৩৩০), সেলুসিড সাম্রাজ্য (খ্রিস্টপূর্ব ৩১২-খ্রিস্টপূর্ব ৬৩), পার্থিয়ান সাম্রাজ্য (খ্রিস্টপূর্ব ২৪৭-২২৪ খ্রিস্টাব্দ) এবং সর্বশেষ সাসানীয় সাম্রাজ্য (২২৬-৬৫১ খ্রিস্টাব্দ)।

আকামেনিদ সাম্রাজ্যের তৃতীয় সম্রাট দারিয়ুস দ্য গ্রেট। তাঁর শাসনামলে (৫৫২ খ্রিস্টপূর্বাব্দ-৪৮৬ খ্রিস্টপূর্বাব্দ) সাম্রাজ্যের সর্বাধিক বিস্তৃতি ঘটে। এ সময় এটি মধ্য এশিয়াসহ উত্তরে বলকান উপদ্বীপ (রোমানিয়া, বুলগেরিয়া, ইউক্রেন), পশ্চিমে লিবিয়া, মিসর এবং পূর্বে ভারত পর্যন্ত বিস্তৃত ছিল। মানবসভ্যতার ইতিহাসে গুরুত্বপূর্ণ তিনটি সভ্যতা—মেসোপটেমিয়া সভ্যতা, মিসরীয় সভ্যতা ও সিন্ধু সভ্যতা এই সাম্রাজ্যের অন্তর্ভুক্ত ছিল। দারিয়ুস পার্সেপোলিস নগরীর গোড়াপত্তন করেন এবং আরামীয় ভাষাকে দাপ্তরিক ভাষা হিসেবে ঘোষণা করেন।

সম্রাট দারিয়ুস বিভিন্ন পরিমাপের একক নির্ধারণের পাশাপাশি অভিন্ন মুদ্রাও চালু করেন। এ সময় পুরো পারস্যে অসংখ্য রাস্তা তৈরি হয়। পৃথিবীর ইতিহাসে পারসিকরাই সর্বপ্রথম, যারা এশিয়া, ইউরোপ ও আফ্রিকার মাঝে সড়কপথে যোগাযোগ স্থাপন করতে সক্ষম হয়েছিল। পৃথিবীর প্রথম ডাকসেবা এই সম্রাটের হাত ধরেই চালু হয়। এসব কারণে দারিয়ুসকে পারস্য সাম্রাজ্যের সর্বশ্রেষ্ঠ শাসক হিসেবে গণ্য করা হয়।

গ্রিস ও পারস্যের মাঝে বিভিন্ন সময়ে অনেক যুদ্ধ হয়েছিল। সেসব যুদ্ধের প্রথমটি হয়েছিল সম্রাট দারিয়ুসেরই সময়। ৪৯০ খ্রিস্টপূর্বাব্দে এথেন্স থেকে ২৬ মাইল উত্তর-পূর্বে ম্যারাথন এলাকায় এই যুদ্ধ সংঘটিত হয়, যা ইতিহাসে ‘ব্যাটল অব ম্যারাথন’ নামে পরিচিত। যুদ্ধে পারসিকদের পরাজয় হয়।

৪৮৬ খ্রিস্টপূর্বাব্দে সম্রাট দারিয়ুস মারা যান। নিজের তৈরি করা সমাধিক্ষেত্র ‘নাকশে রুস্তম’-এ তাঁকে সমাধিস্থ করা হয়। পার্সেপোলিস থেকে পাঁচ কিলোমিটার উত্তর-পশ্চিমে বর্তমান ইরানের ফারস প্রদেশে অবস্থিত এই সমাধিক্ষেত্রে চারজন সম্রাট—দারিয়ুস দ্য গ্রেট, জারজিস, আর্তাজারজিস এবং দ্বিতীয় দারিয়ুসের সমাধি রয়েছে।                 



সাতদিনের সেরা