kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৯ শ্রাবণ ১৪২৮। ৩ আগস্ট ২০২১। ২৩ জিলহজ ১৪৪২

আদমশুমারি

[একাদশ-দ্বাদশ শ্রেণির বাংলা সাহিত্যপাঠ বইয়ের ‘অপরিচিতা’ গল্পে আদমশুমারির উল্লেখ আছে]

২২ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আদমশুমারি

কোনো দেশের বা কোনো নির্দিষ্ট অঞ্চলের মানুষ গণনাকেই মূলত আদমশুমারি বলে। একে একটি দেশের জনসংখ্যার সরকারি গণনা হিসেবে গণ্য করা হয়। বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর পরিচালিত বৃহত্তম পরিসংখ্যানিক কর্মকাণ্ড হচ্ছে ‘আদমশুমারি ও গৃহগণনা’।

জাতিসংঘের সংজ্ঞা অনুযায়ী, নির্দিষ্ট সময়ে আদমশুমারি একটি জনগোষ্ঠীর বা দেশের জনসংখ্যা গণনার সামগ্রিক প্রক্রিয়ায় তথ্য সংগ্রহ, তথ্য একত্রীকরণ এবং জনমিতিতে অর্থনৈতিক ও সামাজিক তথ্যাদি প্রকাশ করা বোঝায়। পৃথিবীর প্রায় সব দেশেই নিজস্ব আদমশুমারির ব্যবস্থা রয়েছে। বাংলাদেশও এর ব্যতিক্রম নয়।

ইংল্যান্ডের রাজা প্রথম উইলিয়াম ১০৮৬ সালে ডুমস ডে বুক নামে জমি অথবা জমিতে বসবাসকারী মানুষের একটি জরিপ পরিচালনা করেন। এটি ইতিহাসের সর্বপ্রথম নথিভুক্ত আমদশুমারি হিসেবে পরিচিত। যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম আদমশুমারি পরিচালিত হয় ১৭৯০ সালে এবং পরবর্তীকালে ইংল্যান্ড ও ফ্রান্সে আদমশুমারি পরিচালিত হয় ১৮০১ সালে।

বাংলাদেশে ১৯৭৪ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অধীনে প্রথম আদমশুমারি ও গৃহগণনা হয়। পরবর্তীকালে ১৯৮১, ১৯৯১, ২০০১ ও ২০১১ সালে যথাক্রমে দ্বিতীয়, তৃতীয়, চতুর্থ ও পঞ্চম আদমশুমারি ও গৃহগণনা অনুষ্ঠিত হয়। ২০১৩ সালে জাতীয় সংসদে পাস হওয়া ‘পরিসংখ্যান আইন-২০১৩’ অনুযায়ী ‘আদমশুমারি ও গৃহগণনার নাম পরিবর্তন করে ‘জনশুমারি ও গৃহগণনা’ করা হয়। ২০১১ সালের আদমশুমারি অনুযায়ী বাংলাদেশের মোট জনসংখ্যা ১৪ কোটি ২৩ লাখ ১৯ হাজার।

‘জনশুমারি ও গৃহগণনা ২০২১’ চলতি বছর সংঘটিত হওয়ার কথা। এর মাধ্যমে দেশের খানার সংখ্যা, খানায় বসবাসকারী সদস্যদের সংখ্যা, আর্থ-সামাজিক ও জনতাত্ত্বিক বৈশিষ্ট্য নিরূপণ করা হবে। এসব তথ্য দেশের সঠিক পরিকল্পনা প্রণয়ন, নীতিনির্ধারণ ও টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

এ ছাড়া প্রথমবারের মতো মাল্টিমোড (মোবাইল অ্যাপ, ওয়েব অ্যাপ, পিক অ্যান্ড ড্রপ, পেপার বেজড, কল সেন্টার ইত্যাদি) পদ্ধতিতে তথ্য সংগ্রহ করা হবে। এর মাধ্যমে দেশে সীমিত আকারে ই-সেন্সাস পরিচালনা করা হবে। এ শুমারিতে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে অবস্থানরত বিদেশি নাগরিক এবং বিদেশে অবস্থান ও ভ্রমণরত বাংলাদেশি নাগরিকদেরও গণনা করা হবে। কিন্তু করোনার জন্য ‘জনশুমারি ও গৃহগণনা ২০২১’ এখনো বাস্তবায়িত হয়নি।

ইন্দ্রজিৎ মণ্ডল



সাতদিনের সেরা