kalerkantho

শুক্রবার । ৮ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৩ জুলাই ২০২১। ১২ জিলহজ ১৪৪২

অষ্টম অধ্যায়-বিজ্ঞান

মো. মিকাইল ইসলাম নিয়ন, সহকারী শিক্ষক, ঝিনুক মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, চুয়াডাঙ্গা সদর চুয়াডাঙ্গা

২০ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৫ মিনিটে



তৃতীয় অধ্যায়

ব্যাপন অভিস্রবণ

ও প্রস্বেদন

জ্ঞানমূলক প্রশ্ন

১।        ভেদ্য পর্দা কাকে বলে?

            উত্তর : যে পর্দা দিয়ে দ্রাবক ও দ্রব উভয়ের অণু সহজে চলাচল করতে পারে তাকে ভেদ্য পর্দা বলে।

২।        ব্যাপন কাকে বলে?

            উত্তর : যে ভৌত প্রক্রিয়ায় কোনো পদার্থের অণুগুলো অধিক ঘনত্বের স্থান থেকে কম ঘনত্বের স্থানে বিস্তার লাভ করে তাকে ব্যাপন বলে।

৩।        ইমবাইবিশন কাকে বলে?

            উত্তর : কলয়েডধর্মী বিভিন্ন পদার্থ (উদ্ভিদের ক্ষেত্রে কোষপ্রাচীর) যে প্রক্রিয়ায় নানা ধরনের তরল পদার্থ (উদ্ভিদের ক্ষেত্রে পানি) শোষণ করে তাকে  ইমবাইবিশন বলে।

৪।        সালোকসংশ্লেষণ কাকে বলে?

            উত্তর : সবুজ উদ্ভিদ যে প্রক্রিয়ায় সূর্যালোকের উপস্থিতিতে ক্লোরোফিলের সহায়তায় কার্বন ডাই-অক্সাইড ও পানি থেকে শর্করাজাতীয় খাদ্য প্রস্তুত করে এবং উপজাত হিসেবে অক্সিজেন উৎপন্ন করে সেই প্রক্রিয়াকে সালোকসংশ্লেষণ বলে।

৫।        প্রস্বেদন কাকে বলে?

            উত্তর : উদ্ভিদের দেহাভ্যন্তর থেকে পাতার মাধ্যমে বাষ্পাকারে পানি নির্গমন হওয়ার প্রক্রিয়াকে প্রস্বেদন বলে।

৬।        দ্রাবক কাকে বলে?

            উত্তর : দ্রব যাতে দ্রবীভূত হয় তাকে দ্রাবক বলে।

৭।        দ্রবণ কাকে বলে?

            উত্তর : দ্রব ও দ্রাবকের মিশ্রণকে দ্রবণ বলে।

৮।        অভিস্রবণ কাকে বলে?

            উত্তর : একই দ্রব ও দ্রাবক বিশিষ্ট দুটি ভিন্ন ঘনত্বের দ্রবণ একটি অর্ধভেদ্য পর্দা দ্বারা পৃথক থাকলে যে ভৌত প্রক্রিয়ায় দ্রাবক কম ঘনত্বের দ্রবণ থেকে অধিক ঘনত্বের দ্রবণের দিকে ব্যাপিত হয় তাকে অভিস্রবণ বলে।

৯।        উদ্ভিদে পরিবহন কাকে বলে?

            উত্তর : উদ্ভিদের মূলরোম দ্বারা শোষিত পানি ও খনিজ লবণ মূল থেকে পাতায় পৌঁছানো এবং পাতায় তৈরি খাদ্যবস্তু সারা দেহে ছড়িয়ে পড়াকে পরিবহন বলে।

১০।      কোষরস কী?

            উত্তর : কোষস্থিত পানি ও দ্রবীভূত খনিজ লবণকে একত্রে কোষরস বলা হয়।

১১।      অর্ধভেদ্য পর্দা কী?

            উত্তর : যে পর্দা দিয়ে শুধু দ্রবণের দ্রাবক অণু চলাচল করতে পারে; কিন্তু দ্রব অণু চলাচল করতে পারে না তাকে অর্ধভেদ্য পর্দা বলে।

১২। কোন মাধ্যমে অভিস্রবণ প্রক্রিয়া ঘটে?

            উত্তর : অভিস্রবণ প্রক্রিয়া শুধু তরল মাধ্যমে ঘটে।

১৩। অধিক ঘনত্ব থেকে কম ঘনত্বের দিকে গমন প্রক্রিয়াটি কী?

            উত্তর : অধিক ঘনত্ব থেকে কম ঘনত্বের দিকে গমন প্রক্রিয়াটি হলো ব্যাপন।

১৪।      উদ্ভিদ সালোকসংশ্লেষণের মাধ্যমে কোন গ্যাস ত্যাগ করে?

            উত্তর : উদ্ভিদ সালোকসংশ্লেষণের মাধ্যমে অক্সিজেন গ্যাস ত্যাগ করে।

১৫। পত্ররন্ধ্র কাকে বলে?

            উত্তর : উদ্ভিদের পাতায় অসংখ্য ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র ছিদ্র থাকে, যা দিয়ে উদ্ভিদ তার খাদ্য প্রস্তুতের জন্য বায়ু থেকে কার্বন ডাই-অক্সাইড টেনে নেয় তাকে পত্ররন্ধ্র বলে।

১৬।      ব্যাপন চাপ কাকে বলে?

            উত্তর : ব্যাপনকারী পদার্থের অণু-পরমাণুগুলোর গতিশক্তির প্রভাবে এক প্রকার চাপের সৃষ্টি হয়, যার প্রভাবে অধিক ঘনত্বযুক্ত স্থান থেকে কম ঘনত্বযুক্ত স্থানে অণুগুলো ছড়িয়ে পড়ে। এ চাপকে ব্যাপন চাপ বলে।

১৭।      জাইলেম কী

            উত্তর : জাইলেম উদ্ভিদের একটি পরিবহন টিস্যু, যার মাধ্যমে উদ্ভিদ দেহে রসের ঊর্ধ্বমুখী পরিবহন হয়।

১৮।      ফ্লোয়েম কী

            উত্তর : ফ্লোয়েম হচ্ছে উদ্ভিদের একটি পরিবহন টিস্যু, যার মাধ্যমে পাতায় তৈরি খাদ্যরসের নিম্নমুখী পরিবহন হয়।

১৯। উদ্ভিদ এককোষী মূলরোম দিয়ে মাটি থেকে কী শোষণ করে?

            উত্তর : পানি ও পানিতে দ্রবীভূত খনিজ লবণ।

২০। স্টার্চ, সেলুলোজ কোন গুণের জন্য পানি শোষণ করতে পারে?

            উত্তর : স্টার্চ, সেলুলোজ কলয়েডধর্মী গুণের জন্য পানি শোষণ করতে পারে।

চতুর্থ অধ্যায়

উদ্ভিদের বংশ বৃদ্ধি

১।        ফুল কাকে বলে?

            উত্তর : বৃতি, পুষ্পাক্ষ, দল, পুংস্তবক ও স্ত্রীস্তবক—এই পাঁচটি অংশ নিয়ে গঠিত উদ্ভিদের যে রঙিন অংশ পরাগায়ণের জন্য পতঙ্গকে আকৃষ্ট করে তাকে ফুল বলে।

২।        পরাগরেণু কোথায় উৎপন্ন হয়?

            উত্তর : পরাগধানীতে পরাগরেণু উৎপন্ন হয়।

৩।        পরাগধানী কাকে বলে?

            উত্তর : পুংস্তবক বা পুংকেশরের শীর্ষের থলির মতো অংশকে পরাগধানী বলে।

৪।        অযৌন জনন কী?

            উত্তর : যে জনন প্রক্রিয়ায় দুটি ভিন্নধর্মী জননকোষের মিলন ব্যতীত সম্পন্ন হয় তা-ই অযৌন জনন।

৫।        রাইজোম কী?

            উত্তর : যেসব পরিবর্তিত কাণ্ড মাটির নিচে সমান্তরালভাবে অবস্থান করে এবং খাদ্য সঞ্চয়ের জন্য স্ফীত হয় তাদের রাইজোম বলে।

৬।        পুষ্পমঞ্জরি কাকে বলে?

            উত্তর : গাছের ছোট একটি শাখায় ফুলগুলো বিশেষ একটি নিয়মে সাজানো থাকে। ফুলসহ এই শাখাকে পুষ্পমঞ্জরি বলে।

৭।        প্রকৃত ফল কাকে বলে?

            উত্তর : শুধু গর্ভাশয় ফলে পরিণত হলে তাকে প্রকৃত ফল বলে।

৮।        অঙ্কুরোদগম কাকে বলে?

            উত্তর : বীজ থেকে শিশু উদ্ভিদ উৎপন্ন হওয়ার প্রক্রিয়াকে অঙ্কুরোদগম বলে।

৯।        নীরস ফল কাকে বলে?

            উত্তর : যে ফলের ফলত্বক পাতলা ও পরিপক্ব হলে ত্বক শুকিয়ে ফেটে যায় তাকে নীরস ফল বলে।

১০।      মিষ্টি আলু কিভাবে প্রজনন ঘটায়?

            উত্তর : মিষ্টি আলু মূলের মাধ্যমে প্রজনন ঘটায়।

১১।      প্রজনন কাকে বলে?

            উত্তর : যে জটিল প্রক্রিয়ায় জীব তার প্রতিরূপ বা বংশধর সৃষ্টি করে তাকে প্রজনন বলে।

১২। অঙ্গজ প্রজনন কাকে বলে?

            উত্তর : কোনো ধরনের অযৌন রেণু বা জননকোষ সৃষ্টি না করে দেহের অংশ খণ্ডিত হয়ে বা কোন অঙ্গ রূপান্তরিত হয়ে যে প্রজনন ঘটে তাকে অঙ্গজ প্রজনন বলে।

১৩।      পরাগায়ণ কাকে বলে?

            উত্তর : ফুলের পরাগধানী থেকে পরাগরেণুর একই ফুলে অথবা একই জাতের অন্য ফুলের গর্ভমুণ্ডে স্থানান্তরিত হাওয়াকে পরাগায়ণ বলে।

১৪। সরল ফল কাকে বলে?

            উত্তর : ফুলের একটি মাত্র গর্ভাশয় থেকে যে ফলের উৎপত্তি তাকে সরল ফল বলে।



সাতদিনের সেরা