kalerkantho

রবিবার। ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮। ১৬ মে ২০২১। ০৩ শাওয়াল ১৪৪২

অ নু ধা ব ন মূ ল ক প্র শ্ন

অষ্টম শ্রেণি : বাংলা প্রথম পত্র

আতাউর রহমান সায়েম , সহকারী শিক্ষক, আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ মতিঝিল, ঢাকা

১৮ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৫ মিনিটে



অষ্টম শ্রেণি : বাংলা প্রথম পত্র

পড়ে পাওয়া

বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়

 

১।   ‘কালবৈশাখীর ঝড় মানেই আম কুড়ানো’—কথাটির অর্থ ব্যাখ্যা করো।

উত্তর : ‘কালবৈশাখীর ঝড় মানেই আম কুড়ানো’—বলতে আম কুড়ানোর প্রকৃত সময়কে বোঝানো হয়েছে।

সাধারণত বৈশাখ মাসে আম পাকা শুরু হয়। পাকা আম গাছে ঝুলতে থাকে। আর এই সময়টাতেই কালবৈশাখী হয়। ঝড়ের ঝাপটায় পাকা আম টুপটাপ ঝরতে থাকে। গ্রামের দুরন্ত ছেলেমেয়েরা ঝড়ের আভাস পেয়ে উপেক্ষা করে সবাই আম কুড়াতে ছুটে যায়। আলোচ্য উক্তিটি দ্বারা এটাই বোঝানো হয়েছে।

 

২।   বিধু লোকটির কাছে রসিদ চাইল কেন?

উত্তর : বিধুর লোকটির কাছে রসিদ চাওয়ার কারণ হলো স্বীকারোক্তি সংরক্ষণ করা। বিশেষ কিছু হস্তান্তরের ক্ষেত্রে প্রমাণপত্র সংগ্রহ করা বুদ্ধিমান কাজ।

লেখক বাক্সটি কুড়িয়ে পাওয়ার অনেক দিন পর বাক্সের মালিকের সন্ধান পেল এবং বিধুকে ডেকে আনল। লোকটির মৌখিক স্বীকারোক্তি অনুযায়ী তারা বুঝল, সে-ই বাক্সের প্রকৃত মালিক। তাই তাকে বাক্স হস্তান্তর করার সময় ‘বাক্স বুঝে পেয়েছি’ এরূপ স্বীকারোক্তি আদায়ের জন্যই বিধু লোকটির কাছে রসিদ চাইল।

 

৩।   ‘অদেষ্ট, একেই বলে বাবু অদেষ্ট’—জনৈক কাপালির এ কথা বলার কারণ কী?

উত্তর : নিজের দুর্ভাগ্যের কথা স্মরণ করে জনৈক কাপালি প্রশ্নোত্তর কথাটি বলেছে।

কাপালি লোকটি এবং তার পরিবার বন্যায় নিরাশ্রয় হয়ে নির্বিষখোলার গোয়ালদের চালাঘরে আশ্রয় নিয়েছে। এ বর্ষায় তাদের না আছে ভাত, না আছে কাপড়। আর এদিকে পটোল বিক্রি করা টাকা আর মেয়ের বিয়ের জন্য গয়না হাট থেকে ফেরার পথে সে হারিয়ে ফেলেছিল। সেই টাকাগুলো থাকলে বিপদের দিনে তার খুব কাজে লাগত—এ কথা স্মরণ করে সে আলোচ্য কথাটি বলেছে।

 

৪।   ‘যে আগে গিয়ে পৌঁছতে পারে তারই জয়।’—কথাটি দ্বারা কী বোঝানো হয়েছে?

উত্তর : ‘যে আগে গিয়ে পৌঁছতে পারে তারই জয়।’— কথাটি বলতে বৈশাখী ঝড়ের সময় আমগাছের নিচে আগে হাজির হয়ে সবচেয়ে বেশি আম কুড়াতে পারাকে বোঝানো হয়েছে।

গ্রামের ছেলেমেয়েরা বৈশাখী ঝড় শুরু হলে বিপদের কথা ভুলে আমতলায় ছুটে যায়, যে আগে পৌঁছতে পারে তার ভাগেই বেশি পাকা আম হয়। আর যে দেরি করে পৌঁছয়, সে কম আম কুড়াতে পারে। আলোচ্য কথাটি দ্বারা এটাই বোঝানো হয়েছে।

 

৫।   লেখকের মন থেকে কেন ভূতের ভয় চলে যায়?

উত্তর : লেখকের মন থেকে ভূতের ভয় চলে যাওয়ার কারণ হলো—লেখক ও তার বন্ধু বাদল টাকার বাক্স কুড়িয়ে পেয়েছে, যা তাদের মনে শিহরণ সৃষ্টি করে।

তেঁতুলগাছে ভূত থাকে বলে গ্রামে প্রচলিত আছে। গ্রামের মানুষ এ প্রথাকে মান্য করে। লেখক ও তার বন্ধু বাদল সন্ধ্যার সময় তেঁতুলতলা দিয়ে বাড়ি ফিরছিল। এমন সময় তারা একটি বাক্স কুড়িয়ে পায়। ফলে ভূতের ভয় তাদের মনে প্রবেশের বদলে অজানা শিহরণের সৃষ্টি হয়। মূলত এ কারণেই লেখকের মন থেকে ভূতের ভয় চলে যায়।

 

৬।   লেখক ও তার বন্ধুরা গুপ্ত মিটিংয়ে বসে কেন?

উত্তর : লেখক ও তার বন্ধুরা গুপ্ত মিটিংয়ে বসে কুড়িয়ে পাওয়া বাক্সের যথাযথ ব্যবস্থা করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করার জন্য।

লেখক ও তার বন্ধু বাদল ওই টিনের সবুজ বাক্স কোথায় রাখা হবে, কিভাবে তা প্রকৃত মালিকের হাতে পৌঁছে দেবে—এসব উপায় স্থির করার জন্যই লেখক তার বন্ধুদের সঙ্গে গোপন পরামর্শ করেছিল। তাদের এই পরামর্শ পরবর্তী সময়ে কাজে লেগেছিল।

 

৭।   বিধুর কেন ঘুড়ির মাপে কাগজ কেটে নিয়ে আসার নির্দেশ দিল?

উত্তর : বিধুর ঘুড়ির মাপে কাগজ কেটে নিয়ে আসার নির্দেশ দেওয়ার কারণ হলো—কুড়িয়ে পাওয়া বাক্সের প্রকৃত মালিকের সন্ধান পাওয়ার জন্য বিজ্ঞানের ব্যবস্থা করা।

লেখক ও তার বন্ধুরা যখন বাক্সের প্রকৃত মালিককে খুঁজে বের করার বিড়ম্বনা নিয়ে জল্পনা-কল্পনা করছে, তখন বিধু এ সমস্যা সমাধানের জন্য বিজ্ঞাপন দেওয়ার কথা চিন্তা করল। তারা যে বাক্স কুড়িয়ে পেয়েছে তা সবার কাছে বলে বেড়ানোর চেয়ে বিজ্ঞাপন দেওয়াটা যুক্তিসংগত। তাই আসন্ন বিড়ম্বনার নিরসন ও সহজ উপায়ে বাক্সের মালিকের খোঁজ পাওয়ার জন্য বিজ্ঞাপনের ব্যবস্থা করে বিধু তার বন্ধুদের ঘুড়ির মাপে কাগজ কেটে নিয়ে আসার নির্দেশ দেয়।

 

৮।   ‘ওর নয় রে, লোভে পড়ে এসেছে।’—বিধু কেন এ কথা বলেছিল?

উত্তর : ‘ওর নয় রে, লোভে পড়ে এসেছে।’—বিধু এ কথা বলেছিল কালোমতো যে লোকটি বাক্সের দাবিদার হয়ে এসেছিল তার সম্পর্কে সে মূলত বাক্সের প্রকৃত মালিক নয়।

লেখক ও তার বন্ধুরা মিলে কুড়িয়ে পাওয়া বাক্সের প্রকৃত মালিকের সন্ধান বের করার জন্য বিজ্ঞাপন দেয়। বিজ্ঞাপন দেওয়ার তিন দিন পর কালোমতো রোগা এক লোক এসে বাক্সের মালিকানা দাবি করে। কিন্তু ওই ব্যক্তি বাক্সের প্রকৃত বর্ণনা দিতে ব্যর্থ হয়। এর দ্বারাই বোঝা যায়, সে বাক্সের প্রকৃত মালিক নয়। এ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতেই বিধু আলোচ্য কথাটি বলেছিল।