kalerkantho

রবিবার। ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮। ১৬ মে ২০২১। ০৩ শাওয়াল ১৪৪২

এসএসসি প্রস্তুতি

পদার্থবিজ্ঞান

আবু জাফর সৈকত, সহকারী শিক্ষক, হাজী সিরাজ উদ্দিন মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়, নারায়ণগঞ্জ

১৬ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



জ্ঞান মূলক প্রশ্ন

একাদশ অধ্যায়

চল তড়িৎ

১। 1 অ্যাম্পিয়ার কাকে বলে?

    উত্তর : শূন্য মাধ্যমে কোনো পরিবাহীর যেকোনো প্রস্থচ্ছেদের মধ্য দিয়ে প্রতি সেকেণ্ডে 1 কুলম্ব আধান প্রবাহিত হলে যে পরিমাণ তড়িৎ প্রবাহের সৃষ্টি হয় তাকে 1 অ্যাম্পিয়ার বলে।

২। পরিবাহী কাকে বলে?

    উত্তর : যেসব পদার্থের মধ্য দিয়ে খুব সহজেই তড়িৎ প্রবাহ চলতে পারে তাদের পরিবাহী বলে।

৩। অপরিবাহী কাকে বলে?

    উত্তর : যেসব পদার্থের মধ্য দিয়ে তড়িৎ প্রবাহ চলতে পারে না তাদের অপরিবাহী বা অন্তরক বলে।

৪। অর্ধপরিবাহী কাকে বলে?

    উত্তর : যেসব পদার্থের তড়িৎ পরিবহন ক্ষমতা সাধারণ তাপমাত্রায় পরিবাহী এবং অপরিবাহী পদার্থের মাঝামাঝি, সেসব পদার্থকে অর্ধপরিবাহী বলে।

৫। ওহমের সূত্রটি বিবৃত করো।

    উত্তর : তাপমাত্রা স্থির থাকলে কোনো পরিবাহীর মধ্য দিয়ে যে তড়িৎ প্রবাহ চলে তা ওই পরিবাহীর দুই প্রান্তের বিভব পার্থক্যের সমানুপাতিক।

৬। রোধ কী?

    উত্তর : পরিবাহীর যে ধর্মের জন্য এর মধ্য দিয়ে তড়িত্প্রবাহ বাধাগ্রস্ত হয় তাকে রোধ বলে।

৭। এক ওহম কাকে বলে?

    উত্তর : যে পরিবাহীর দুই প্রান্তের বিভব প্রার্থক্য ১ঠ হলে তার মধ্য দিয়ে ১অ তড়িত্প্রবাহ চলে, তার রোধকে এক ওহম বলে।

৮। রোধক কী?

    উত্তর : নির্দিষ্ট মানের রেখাবিশিষ্ট যে পরিবাহী তার কোনো বর্তনীতে ব্যবহার করা হয় তাকে রোধক বলে।

৯। তড়িচ্চালক শক্তি কাকে বলে?

    উত্তর : কোনো তড়িৎ উৎস একক ধনাত্মক আধানকে বর্তনীর এক বিন্দু থেকে উৎসসহ সম্পূর্ণ বর্তনী ঘুরিয়ে আবার ওই বিন্দুতে আনতে যে পরিমাণ কাজ সম্পন্ন করে তথা উৎস যে তড়িত্শক্তি ব্যয় করে, তাকে ওই উেসর তড়িচ্চালক শক্তি বলে।

১০।     আপেক্ষিক রোধ কাকে বলে?

    উত্তর : কোনো নির্দিষ্ট তাপমাত্রায় একক দৈর্ঘ্য ও প্রস্থচ্ছেদের ক্ষেত্রফল বিশিষ্ট কোনো পরিবাহীর রোধকে ওই তাপমাত্রার উপাদানের আপেক্ষিক রোধ বলে।

১১। শ্রেণি বর্তনী কাকে বলে?

    উত্তর : যে বর্তনীর তড়িৎ উপকরণগুলো পর পর সাজানো থাকে তাকে শ্রেণি বর্তনী বলে।

১২। সমান্তরাল বর্তনী কাকে বলে?

    উত্তর : যে বর্তনীতে তড়িৎ উপকরণগুলো এমনভাবে সাজানো থাকে যে প্রত্যেকটির এক প্রান্ত একটি সাধারণ বিন্দুতে এবং অপর প্রান্ত অন্য একটি সাধারণ বিন্দুতে সংযুক্ত থাকে তবে তাকে সমান্তরাল বর্তনী বলে।

১৩। তুল্য রোধ কাকে বলে?

    উত্তর : রোধের কোনো সন্নিবেশের পরিবর্তে যে একটি মাত্র রোধ ব্যবহার করলে বর্তনীর প্রবাহমাত্রা ও বিভব পার্থক্যের কোনো পরিবর্তন হয় না, তাকে ওই সন্নিবেশের তুল্য রোধ বলে।

১৪। এক কিলোওয়াট ঘণ্টা কাকে বলে?

    উত্তর : এক কিলোওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন কোনো তড়িৎ যন্ত্র এক ঘণ্টা ধরে কাজ করলে যে পরিমাণ তড়িত্শক্তিকে অন্য শক্তিতে রূপান্তর করে বা ব্যয় করে তাকে এক কিলোওয়াট ঘণ্টা বা এক ইউনিট বলে।

১৫।     কিভাবে অর্ধপরিবাহীর পরিবাহকত্ব বৃদ্ধি করা যায়?

    উত্তর : সুবিধামতো অপদ্রব্য মিশিয়ে অর্ধপরিবাহী পদার্থের তড়িৎ পরিবাহকত্ব বৃদ্ধি করা যায়।

১৬।     লোডশেডিং কী?

    উত্তর : কোনো নির্দিষ্ট এলাকার বিদ্যুতের চাহিদা উৎপাদন বা সরবরাহের তুলনায় বেশি হলে তখন বিদ্যুৎ উপকেন্দ্রের পক্ষে চাহিদা মেটানো সম্ভব হয়ে ওঠে না। তখন বাধ্য হয়ে উপকেন্দ্র কর্তৃপক্ষ বিতরণ ব্যবস্থার নির্দিষ্ট কিছু এলাকার কিছু সময়ের জন্য বিদ্যুৎ বিতরণ বন্ধ করে দেয় বা বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে। একে লোডশেডিং বলে।

১৭।     সিস্টেম লস কী?

    উত্তর : বিদ্যুৎ সঞ্চালনের সময় পরিবাহী তারে যে বিদ্যুত্শক্তি তাপশক্তিতে রূপান্তরিত হয় তাকে সিস্টেম লস বলে।

১৮। তড়িৎ তীব্রতা কাকে বলে?

    উত্তর : তড়িৎ ক্ষেত্রের কোনো বিন্দুতে একটি একক ধনাত্মক আধান স্থাপন করলে সেটি যে বল অনুভব করে তাকে ওই বিন্দুর তড়িৎ তীব্রতা বলে।