kalerkantho

বুধবার । ১ বৈশাখ ১৪২৮। ১৪ এপ্রিল ২০২১। ১ রমজান ১৪৪২

এসএসসি প্রস্তুতি ♦ বাংলা প্রথম পত্র

লুৎফা বেগম, সিনিয়র শিক্ষক, বিএএফ শাহীন কলেজ কুর্মিটোলা, ঢাকা

২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



এসএসসি প্রস্তুতি ♦ বাংলা প্রথম পত্র

সৃ জ ন শী ল  প্র শ্ন

পদ্য

আমার পরিচয়

সৈয়দ শামসুল হক

১.  গ্রামের নওজোয়ান হিন্দু-মুসলমান

    মিলিয়া বাওলা গান আর মুর্শিদি গাইতাম

    আগে কী সুন্দর দিন কাটাইতাম

২.   গাহি সাম্যের গান—

     যেখানে আসিয়া এক হয়ে গেছে সব বাধা-ব্যবধান

     যেখানে মিশেছে হিন্দু বৌদ্ধ মুসলিম ক্রিশ্চান

 

ক)   ‘ঈর্ষা’ সৈয়দ শামসুল হকের কী ধরনের গ্রন্থ?

     উত্তর : ‘ঈর্ষা’ সৈয়দ শামসুল হকের একটি নাটক।

 

খ)   ‘এসেছি আমার পেছনে হাজার চরণ চিহ্ন ফেলে’—বলতে কবি কী বুঝিয়েছেন?

     উত্তর : ‘এসেছি আমার পেছনে হাজার চরণ চিহ্ন ফেলে’—বলতে কবি বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার পেছনে যে সমৃদ্ধ ইতিহাস রয়েছে, তার কথা বুঝিয়েছেন।

     সৈয়দ শামসুল হক তাঁর ‘আমার পরিচয়’ কবিতায় স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশ গড়ে ওঠার অতীত ইতিহাস তুলে ধরেছেন। অনাদি অতীতের সেই ইতিহাসে উঠে এসেছে বাঙালি জাতির চিরচেনা আলপথ, চাঁদ সওদাগরের বাণিজ্য যাত্রা, কৈবর্ত বিদ্রোহ, বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের প্রথম নিদর্শন চর্যাপদ, পালযুগের চিত্রকলা, মুসলিম ধর্ম ও সাহিত্য-সংস্কৃতির বিকাশ, বারো ভূঁইয়াদের উত্থান, মৈমনসিংহ গীতিকার জীবন, তিতুমীর আর হাজি শরীয়তের বিদ্রোহ, রবীন্দ্রনাথ-নজরুলের কালজয়ী সৃষ্টি, ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলন, ভাষা আন্দোলন এবং পরিশেষে বঙ্গবন্ধুর স্বাধীন বাংলাদেশ—এই দীর্ঘ পথ পরিক্রমণের কথাই উপর্যুক্ত চরণে প্রকাশ পেয়েছে।

 

গ)   উদ্দীপক ১ ও ২-এ ‘আমার পরিচয়’ কবিতার কোন দিকটি ফুটে উঠেছে? ব্যাখ্যা করো।

     উত্তর : উদ্দীপক ১ ও ২-এ ‘আমার পরিচয়’ কবিতার অসাম্প্রদায়িক জীবনবোধের দিকটি ফুটে উঠেছে।

     ‘আমার পরিচয়’ কবিতার কবির বিশ্বাস মানুষ হিসেবে স্বীকৃতি পেয়ে পরিচিত হয়ে ওঠার চেয়ে সত্য ও সম্মানের আর কিছুই হতে পারে না। জাতি-ধর্ম-বর্ণ-সম্প্রদায়-নির্বিশেষে বাংলার মানুষ বিভিন্ন আন্দোলনের পাশাপাশি সামাজিক সম্প্রীতিতে যে ঐক্যবদ্ধ হয়েছে, তার পরিচয় ফুটে উঠেছে বারো ভূঁইয়াদের উত্থান, তিতুমীর, হাজি শরীয়ত, ক্ষুদিরাম ও সূর্য সেনের আন্দোলন থেকে। কবি তাই বাংলার মানুষকে অতীত-বর্তমানের মতো ভবিষ্যতেও একসঙ্গে সাহসী মানুষের মতো বেঁচে থাকার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন। একইভাবে তিনি অসাম্প্রদায়িক এক মানবসমাজ গঠনের প্রত্যয়ও ঘোষণা করেছেন।

     উদ্দীপক ১ ও ২-এ ও মানবিক মেলবন্ধনের কথা বলা হয়েছে, যা জাতি-ধর্ম-সম্প্রদায়-নির্বিশেষে সকল মানুষকে ঐক্যবদ্ধ করে। উদ্দীপকের অসাম্প্রদায়িক জীবনবোধের এই দিকটিই ‘আমার পরিচয়’ কবিতার উপর্যুক্ত বক্তব্য প্রকাশ পেয়েছে।

ঘ)   উদ্দীপকে ফুটে ওঠা দিকটিতে কি ‘আমার পরিচয়’ কবিতার সম্পূর্ণ ভাব ফুটে উঠেছে? তোমার বক্তব্যের পক্ষে যুক্তি দাও।

     উত্তর : ‘আমার পরিচয়’ কবিতার কবি বিবর্তনের বিচিত্র বাঁকের মধ্য দিয়ে বিপুল বাংলাদেশের যে অনবদ্য রূপ তুলে ধরেছেন, তা উদ্দীপকে নেই।

     ‘আমার পরিচয়’ কবিতায় কবি গভীর মমত্বের সঙ্গে আজকের স্বাধীন-সার্বভৌম রাষ্ট্র বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার সমৃদ্ধ ইতিহাস বর্ণনা করেছেন। কবির সেই বর্ণনায় উঠে এসেছে গ্রামবাংলার জমির সীমানা নির্দেশক চিরচেনা আলপথ, কোমল পলিমাটিতে ফেলা পদচিহ্ন, নদীমাতৃক বাংলাদেশের তেরো শ নদী, বৌদ্ধবিহারের জ্ঞান চর্চা, নদীপথে ব্যবসা-বাণিজ্য, কৈবর্ত বিদ্রোহ, পালযুগে শিল্প-সাহিত্যের বিকাশ, প্রত্নতাত্ত্বিক ঐতিহ্যের নিদর্শন হিসেবে পাহাড়পুরের বৌদ্ধবিহার, মসজিদ-মন্দির, বারো ভুঁইয়াদের উত্থান, মৈমনসিংহ গীতিকার জীবন, রবীন্দ্র-নজরুলের কালজয়ী সৃষ্টির কথা। এ ছাড়া যুগে যুগে বিভিন্ন আন্দোলনে তিতুমীর, হাজি শরীয়ত, ক্ষুদিরাম ও সূর্য সেনের মতো বিপ্লবীর আত্মদান, ভাষা আন্দোলন এবং পরিশেষে বঙ্গবন্ধুর স্বাধীন বাংলাদেশ ‘আমার পরিচয়’ কবিতায় অনবদ্য রূপ লাভ করেছে।

     অন্যদিক উদ্দীপকে বাংলার মানুষের অনাদিকাল থেকেই অসাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিতে বেঁচে থাকার কথা বলা হয়েছে, যা কবিতার একটি মাত্র দিক।

     উপর্যুক্ত বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে তাই বলা যায়, যুগে যুগে নানা আন্দোলন-বিপ্লব-বিদ্রোহ ও মতাদর্শের বিকাশ হতে হতে আজকের যে বাংলাদেশ গড়ে উঠেছে, তার অংশবিশেষই কেবল উদ্দীপকটি ধারণ করেছে।

মন্তব্য