kalerkantho

শনিবার । ২৪ শ্রাবণ ১৪২৭। ৮ আগস্ট  ২০২০। ১৭ জিলহজ ১৪৪১

বসুন্ধরা খাতা | জানা - অজানা

বায়ুদূষণ

৪ জুলাই, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বায়ুদূষণ

[পঞ্চম শ্রেণির প্রাথমিক বিজ্ঞান বইয়ের দ্বিতীয় অধ্যায়ে বায়ুদূষণের কথা উল্লেখ আছে]

বায়ুদূষণ হচ্ছে প্রাকৃতিকভাবে অথবা মানুষের কর্মকাণ্ডের ফলে সৃষ্ট ক্ষতিকর ও বিষাক্ত পদার্থের দ্বারা বায়ুমণ্ডলের দূষণ। বায়ুর সঙ্গে যখন বিভিন্ন ক্ষতিকর পদার্থের কণা ও ক্ষুদ্র অণু অধিক অনুপাতে মেশে তখন বায়ুদূষণ হয়। এটি এক নীরব ঘাতক। বায়ুদূষণের ফলে আমাদের স্বাস্থ্যের ক্ষতি হয়, পরিবেশ ও সম্পদ নষ্ট হয়, পশুপাখি ও ফসলের ক্ষতি হয়; এমনকি এর ফলে বায়ুমণ্ডলের ওজোনস্তর পাতলা হয়ে যায়। যার প্রভাব পড়ে জলবায়ুর পরিবর্তনের ওপর। বিশ্বে দূষিত বায়ুর শহরগুলোর মধ্যে ঢাকা দ্বিতীয় অবস্থানে আছে। সুস্থ জীবন ও পরিবেশের জন্য বায়ুদূষণ বড় ধরনের বাধা।

বায়ুুদূষণের প্রধান উত্সগুলো হচ্ছে গাড়ি থেকে নির্গত ধোঁয়া, বিদ্যুৎ ও তাপ উৎপাদনকারী যন্ত্র থেকে উৎপন্ন ধোঁয়া, শিল্পকারখানা এবং কঠিন বর্জ্য পোড়ানোর ফলে সৃষ্ট ধোঁয়া। বায়ুদূষণের আরো একটি কারণ অ্যান্টার্কটিকা মহাদেশের ঊর্ধ্বে বায়ুমণ্ডলের ওজোনস্তরে ক্রমবর্ধমান ফাটল সৃষ্টি হওয়া।

দূষিত বায়ুর কারণে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ নানা রোগব্যাধিতে আক্রান্ত হচ্ছে। স্বাস্থ্যঝুঁকি ও নিরাপত্তা সমস্যা ক্রমাগত বাড়ছে, বিশেষ করে শিশু ও বয়স্কদের ক্ষেত্রে এ অবস্থা খুব আশঙ্কাজনক। বায়ুদূষণের সঙ্গে ডায়াবেটিসের ঝুঁকি বাড়ার বেশ গুরুত্বপূর্ণ সম্পর্ক আছে বলে যুক্তরাষ্ট্রের এক নতুন গবেষণা থেকে জানা যায়। দূষিত বায়ুর কারণে সর্দি-কাশি, অ্যালার্জি, ফুসফুসের অসুখ, শ্বাসকষ্ট, অ্যাজমা বা নিউমোনিয়া, চর্মরোগ, হৃদেরাগ, স্ট্রোক, মানসিক অবসাদ, মাথা ধরা, ঝিমুনি, স্মৃতিভ্রংশ, ক্যান্সার প্রভৃতি রোগ হয়ে থাকে; এমনকি বায়ুদূষণ মানুষের মৃত্যুর কারণ হয়ে দাঁড়ায়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডঐঙ)-এর ২০১৪ সালের রিপোর্ট অনুযায়ী ২০১২ সালে বায়ুদূষণে প্রায় সাত মিলিয়ন মানুষ মারা গেছে।

বায়ুদূষণ থেকে রেহাই পেতে বেশি বেশি গাছ লাগাতে হবে, ক্ষতিকর রাসায়নিক ব্যবহার বন্ধ বা কমানোর ব্যবস্থা করতে হবে, পশুপাখির মৃত দেহ, ময়লা-আবর্জনা ও বর্জ্য মাটিতে পুঁতে ফেলতে হবে, বাইরে চলাফেরার সময় মাস্ক ব্যবহার করতে হবে, রাস্তা নির্মাণ বা মেরামতের কাজ দ্রুততম সময়ে সম্পন্ন করতে হবে ইত্যাদি।

ইন্দ্রজিৎ মণ্ডল

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা