kalerkantho

শনিবার । ২৭ আষাঢ় ১৪২৭। ১১ জুলাই ২০২০। ১৯ জিলকদ ১৪৪১

মাটিদূষণ

[পঞ্চম শ্রেণির প্রাথমিক বিজ্ঞান বইয়ের দ্বিতীয় অধ্যায়ে মাটিদূষণের কথা উল্লেখ আছে]

ইন্দ্রজিৎ মণ্ডল    

২৯ মে, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মাটিদূষণ

মাটি গঠনের মূল উপাদান খনিজ পদার্থ, জৈব পদার্থ, পানি ও বায়ু ছাড়া মাটিতে ক্ষতিকর পদার্থের মিশ্রণ ঘটলে তাকে মাটিদূষণ বলে। সাধারণত প্লাস্টিক-জাতীয় দ্রব্য মাটির সঙ্গে মিশে মাটিদূষণ ঘটায়। এ ছাড়া প্লাস্টিক ও কাচ যেখানে-সেখানে ফেলা, শিল্পজাত বর্জ্য সরাসরি ভূমিতে নিষ্কাশন, অতিরিক্ত পরিমাণ বনভূমি ধ্বংস, আগাছানাশক, কীটপতঙ্গ ধ্বংসকারী কীটনাশক, সারের প্রয়োগ, ইট ভাটার ছাই, ময়লা-আবর্জনার স্তূপ, বালাইনাশক প্রভৃতি কারণে মাটি দূষিত হয়ে থাকে।

মাটিদূষণ জীবজগৎ ও পরিবেশের ওপর ভীষণভাবে প্রভাব ফেলে। দূষিত মাটিতে উৎপন্ন ফসল খাদ্য হিসেবে খেয়ে আমরা ক্যান্সারসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হই। অতিরিক্ত দূষিত মাটিতে গাছপালা জন্মায় না। ফলে পরিবেশে অক্সিজেনের ঘাটতি দেখা দেয়। মাটির উর্বরতা নষ্ট হওয়ার ফলে ফসল ভালো জন্মায় না। মাটিতে উদ্ভিদের উপকারী ব্যাকটেরিয়া অকার্যকর হয়ে পড়ে। ফলে মাটিদূষণের কারণে সে অঞ্চলের গাছপালা ধীরে ধীরে মরে যায়। গাছ না থাকায় পশুপাখিও তার বাসস্থান হারায় এবং মারা যায়। দূষিত মাটির কারণে প্রতিবছর হাজার হাজার মানুষ পরোক্ষভাবে সংক্রমিত হয়ে কিডনি ও লিভারের রোগসহ ম্যালেরিয়া, কলেরা, আমাশয় প্রভৃতি রোগে আক্রান্ত হয়ে পড়ে।

তাই মাটিদূষণ রোধ করার জন্য আমাদের এখনই সচেতন হওয়া উচিত। নির্দিষ্ট জায়গায় ময়লা- আবর্জনা ফেলা, জমিতে জৈব সার যেমন—কম্পোস্ট সার ব্যবহার করা, পলিথিন ব্যবহারের পরিবর্তে পাটের তৈরি ব্যাগ ব্যবহার করা, বনভূমি ধ্বংস না করা বা বেশি করে গাছ লাগানো প্রভৃতি কাজ করলে আমরা মাটিদূষণ হ্রাস করতে পারব।

                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                        

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা