kalerkantho

বৃহস্পতিবার  । ১৯ চৈত্র ১৪২৬। ২ এপ্রিল ২০২০। ৭ শাবান ১৪৪১

জানা-অজানা

প্রাথমিক চিকিৎসা বাক্স

২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রাথমিক চিকিৎসা বাক্স

[পঞ্চম শ্রেণির বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় বইয়ের নবম অধ্যায়ে প্রাথমিক চিকিৎসা বাক্সর কথা উল্লেখ আছে]

যে ছোট বাক্স বা থলিতে প্রাথমিক চিকিৎসার সব ধরনের জরুরি উপকরণ মজুদ থাকে তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা বাক্স বলে। ইংরেজিতে এটি ফার্স্ট এইড বক্স নামে পরিচিত। এই বাক্স হচ্ছে অতি দরকারি জিনিস। প্রয়োজনের সময় হাতের নাগালে এটি থাকলে খুব সহজেই রোগীকে প্রাথমিকভাবে সামাল দেওয়া যায়। এতে রোগীসহ আশপাশের লোকজনের অস্থিরতাও অনেক কমে। এটি সহজেই বহনযোগ্য এবং এর উভয় দিকে FIRST AID BOX লেখা থাকে।

১৮৮৮ সালে বহুজাতিক চিকিৎসা সরঞ্জাম প্রস্তুতকারী ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান জনসন অ্যান্ড জনসনের প্রতিষ্ঠাতা রবার্ট হুড জনসন তাঁর কারখানার কর্মচারী ও শ্রমিকদের মাঝে সর্বপ্রথম এই বাক্সের প্রচলন করেন। আন্তর্জাতিক মান সংস্থা (ওঝঙ) প্রাথমিক চিকিৎসা বাক্সে সবুজের ওপর সাদা ‘ক্রশ’ চিহ্ন প্রতীক হিসেবে ব্যবহার করে। সাদার ওপর লাল ‘ক্রশ’ চিহ্ন ব্যবহার করে রেড ক্রিসেন্ট প্রতিষ্ঠানটি। আবার জরুরি চিকিৎসাব্যবস্থা বোঝাতে কিছু কিছু বাক্সে ‘স্টার অব লাইফ’ প্রতীক ব্যবহৃত হয়।

প্রাথমিক চিকিৎসা বাক্স স্কুল-কলেজ, অফিস-আদালত, কলকারখানা, এমনকি বাসাবাড়িতে বা গাড়িতেও রাখা যায়। বাসায় ও গাড়িতে প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য খুব অল্প সময়ের মধ্যে এই বাক্স থেকে প্রয়োজনের জিনিসটা তুলে নেওয়া যায়। একটি প্রাথমিক চিকিৎসা বাক্সে সাধারণত থাকে জীবাণুমুক্ত গজ কাপড়, রোলার ব্যান্ডেজ, কাঁচি ও চিমটা, হাতমোজা, লিউকোপ্লাস্ট, পচনরোধক মলম, ক্রেপ পট্টি, বার্ন  ক্রিম, ব্যথার ওষুধ, অ্যান্টিহিস্টামিন, নিরাপদ পিন, থার্মোমিটার, রক্তচাপ পরীক্ষণ যন্ত্র, লেখার খাতা ইত্যাদি। লেখার খাতা থাকে জরুরি ফোন নম্বর ও মন্তব্য লেখার জন্য, বিশেষ করে ডাক্তার ও অ্যাম্বুল্যান্স নম্বর লিখে রাখা হয় এই খাতায়। ব্যথার ওষুধ হিসেবে প্যারাসিটামল, আইবুপ্রফেন, ডাইক্লোফেনাক ইত্যাদি থাকে। ব্যথার ওষুধের পাশাপাশি কিছু গ্যাস্ট্রিকের ওষুধও রাখা যায়।

প্রতিটি বাসাবাড়িতে প্রাথমিক চিকিৎসার বাক্স রাখা জরুরি। তবে বাসার এমন স্থানে তা রাখতে হবে, যাতে প্রয়োজনের সময় যে কেউ সেটা ব্যবহার করতে পারে। খেয়াল রাখতে হবে, বাক্সের কোনো ওষুধের মেয়াদ পার হয়েছে কি না। হলে তা পাল্টে নতুন ওষুধ রাখতে হবে। পরিবারের সবাইকে এই সরঞ্জামের ব্যবহার শেখাতে হবে।         

 

►ইন্দ্রজিৎ মণ্ডল

মন্তব্য