kalerkantho

রবিবার । ১ কার্তিক ১৪২৮। ১৭ অক্টোবর ২০২১। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

বাংলাচর্চা

চলিত রীতি

শরীফুল ইসলাম শরীফ, সিনিয়র শিক্ষক, আদমজী ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল, ঢাকা

৩ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



চলিত রীতি

[বিভিন্ন শ্রেণির বাংলা ব্যাকরণে ‘চলিত রীতি’ সম্পর্কে আলোচনা রয়েছে]

বাংলা ভাষার লৈখিক বা লেখ্যরূপের দুটি রীতি : একটি চলিত রীতি, অন্যটি সাধু রীতি। সাধু ভাষার তুলনায় চলিত ভাষা নবীন। নির্দিষ্ট অঞ্চলে একটি নির্দিষ্ট এলাকার শিক্ষিত ও শিষ্টজনের মৌখিক ভাষাকে মান ধরে চলিত ভাষা হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হয়। উল্লেখ্য, ভাগীরথী নদীর তীরবর্তী এলাকা এবং কলকাতার ভদ্র ও শিক্ষিত সমাজে ব্যবহৃত মৌখিক ভাষাটিকে অল্পবিস্তর পরিমার্জিত করে একটি সর্বজনবোধ্য আদর্শ কথ্য ভাষা গড়ে তোলা হয়। এটি হলো বাংলার আদর্শ চলিত ভাষা। চলিত ভাষা বর্তমানে একাধারে লেখার ভাষা ও মুখের ভাষা।

 

চলিত রীতির বৈশিষ্ট্য

♦ চলিত রীতি সর্বজনবোধ্য, মার্জিত ও গতিশীল।

♦ চলিত রীতি পরিবর্তনশীল।

♦ চলিত রীতিতে তদ্ভব শব্দের ব্যবহার বেশি।

♦ চলিত রীতিতে সর্বনাম ও ক্রিয়াপদ সংক্ষিপ্তরূপে ব্যবহৃত হয়।

♦ চলিত রীতি বক্তৃতা, ভাষণ, নাটকের সংলাপ এবং আলাপ-আলোচনার উপযোগী।



সাতদিনের সেরা