kalerkantho

মঙ্গলবার । ২২ অক্টোবর ২০১৯। ৬ কাতির্ক ১৪২৬। ২২ সফর ১৪৪১              

জানা-অজানা

গারো পাহাড়

[বিভিন্ন শ্রেণির বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় বইয়ে গারো পাহাড়ের কথা উল্লেখ আছে]

১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



গারো পাহাড়

ভারতের মেঘালয় রাজ্যের গারো-খাসিয়া পর্বত-শ্রেণির একটি অংশ গারো পাহাড়। এর কিছু অংশ রয়েছে ভারতের আসাম রাজ্যে ও বাংলাদেশের শেরপুর জেলার নালিতাবাড়ী উপজেলায়। ময়মনসিংহ, নেত্রকোনা, কিশোরগঞ্জ জেলাসমূহ এ পাহাড়ের পাদদেশে অবস্থিত। গারো পাহাড়ের বিস্তৃতি প্রায় ৮০০০ বর্গকিলোমিটার। এর সর্বোচ্চ শৃঙ্গের নাম নকরেক, যা ভারত অংশে অবস্থিত। উচ্চতা ১৪০০ মিটার। পাহাড়ের দীর্ঘতম নদী সিমসাং নকরেক থেকে উৎপত্তি হয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। মেঘালয় রাজ্যের রাজধানী শিলং এ পাহাড়েই অবস্থিত। গারো পাহাড় জীববৈচিত্র্যে সমৃদ্ধ—বিল, হাওর, ঘন সবুজ বন এবং বিরল প্রজাতির উদ্ভিদ ও প্রাণী এ পাহাড়কে করেছে অনন্যবৈশিষ্ট্যমণ্ডিত। এ ছাড়া গারো পাহাড়ের বাংলাদেশ অংশের শেরপুর জেলায় রয়েছে মনোমগ্ধকর ‘গজনী অবকাশ কেন্দ্র’ ও ‘মধুটিলা ইকোপার্ক’ নামে দুটি পর্যটন বা পিকনিক স্পট।

♦ আব্দুর রাজ্জাক

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা