kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০২২ । ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

স্থায়ী সমাধান দরকার

সবার জন্য শৌচাগার

২২ নভেম্বর, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গত শনিবার ছিল বিশ্ব টয়লেট দিবস। ‘বাদ যাবে না একজনও’ প্রতিপাদ্যে দিবসটি বাংলাদেশেও পালিত হয়েছে। ওই দিনই কালের কণ্ঠে প্রকাশিত এক খবরে বলা হয়েছে, বাংলাদেশে এখনো প্রায় পাঁচ লাখ পাঁচ হাজার পরিবার শৌচাগার সুবিধা থেকে বঞ্চিত। বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর করা ‘জনশুমারি ও গৃহগণনা ২০২২’-এর প্রাথমিক প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, শৌচাগার সুবিধায় সবচেয়ে পিছিয়ে রংপুর বিভাগের মানুষ।

বিজ্ঞাপন

দ্বিতীয় অবস্থানে সিলেট বিভাগ। এরপর আছে রাজশাহী, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম, খুলনা ও বরিশাল বিভাগ। প্রতিবেদন অনুযায়ী রাজধানী ঢাকায়ও ০.২৮ শতাংশ বা প্রায় ৩২ হাজার ৫৬১টি পরিবারের টয়লেট নেই।

রাজধানীর সড়কের পাশে যত্রতত্র প্রস্রাব করার কারণে ঠেকানো যাচ্ছে না পরিবেশদূষণ। পরিবেশের পাশাপাশি মানুষের মধ্যেও রোগব্যাধির প্রকোপ বাড়ছে। রাজধানীর অনেক ফুটপাতে নাকে হাত দিয়ে হাঁটতে হয়। রাজধানী ঢাকায় গণশৌচাগার না থাকায় সবচেয়ে বেশি সমস্যায় পড়তে হচ্ছে ট্রাফিকে কর্মরত পুলিশ সদস্যদের। ট্রাফিক সার্জেন্ট, কনস্টেবলসহ কয়েক হাজার ট্রাফিক পুলিশ সদস্য দায়িত্ব পালন করেন বিভিন্ন সড়কে। এর মধ্যে ৫৪ জন নারী সার্জেন্টসহ রাজধানীর বিভিন্ন সড়কে প্রায় ১০০ জন নারী পুলিশ সদস্য দায়িত্ব পালন করছেন। অথচ তাঁদের জন্য শৌচাগারের ব্যবস্থা খুব কম। এমনিতেই বেশির ভাগ ট্রাফিক পুলিশ সদস্য শ্বাসকষ্টে ভোগেন, এর মধ্যে এটা এক বড় সমস্যা।

প্রায় দুই কোটি মানুষের বাস যে শহরে, সেখানে পাবলিক টয়লেটের সংখ্যা নিতান্তই অপ্রতুল। এমনিতেই যানজটে প্রচুর সময় চলে যায়। অনেক স্থানে পার্ক বা ফুটপাতকে পথচারীরা বানিয়ে ফেলেছে অস্থায়ী শৌচাগার। পর্যাপ্ত শৌচাগার না থাকায় রাজধানীতে নারীদের সবচেয়ে বেশি অসুবিধায় পড়তে হয়। এতে ক্ষতি হচ্ছে তাদের। দীর্ঘ মেয়াদে অনেকের রোগাক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কাও আছে।

সময়মতো ইউরিনেট না করলে ব্লাডারের ওপর চাপ বেড়ে আয়তন বেড়ে যেতে পারে। অনেক সময় ব্লাডারের অপারেশনও করতে হয়। ব্লাডারের ক্ষতির পাশাপাশি কিডনিরও সমস্যা দেখা দেয়। দীর্ঘ সময় টয়লেট চেপে রাখার কারণে ইউরিনারি ট্র্যাক্ট ইনফেকশন হওয়াও অস্বাভাবিক নয়।   

এই সমস্যার স্থায়ী সমাধান করতে হবে। বিকল্প কিছু ভাবতে হবে। শপিং সেন্টার ও মসজিদগুলোকে এ ধরনের সেবার আওতায় এনে পাবলিক টয়লেটের উন্নয়ন করে জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত করা যেতে পারে।

 



সাতদিনের সেরা