kalerkantho

বুধবার । ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ১ ডিসেম্বর ২০২১। ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩

দ্রুত হোক চূড়ান্ত আইন

পিএসসি পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁসে সাজা

২২ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সরকারি কর্ম কমিশনের অধীনে অনুষ্ঠিত পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁসের মতো অপরাধে ১০ বছরের কারাদণ্ডের বিধান রেখে ‘বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন আইন-২০২১’-এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দিয়েছেন মন্ত্রিসভা। খসড়া আইনের ৮ ধারায় পাবলিক সার্ভিস কমিশনের পরীক্ষাসংক্রান্ত কিছু অপরাধের কথা বলা হয়েছে। কেউ যদি পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বন করে, তাহলে সর্বোচ্চ দুই বছর, সর্বনিম্ন এক বছরের কারাদণ্ড বা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ড হতে পারে। প্রশ্ন ফাঁসের সঙ্গে জড়িত থাকলে খসড়া আইনে সর্বোচ্চ ১০ বছর কারাদণ্ডের কথা বলা হয়েছে। এ ক্ষেত্রে সর্বনিম্ন তিন বছর কারাদণ্ড বা অর্থদণ্ডে দণ্ডিত হবে।

পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসের বিষয়টি দুরারোগ্য ব্যাধির মতো জেঁকে বসেছে। শুধু যে সরকারি কর্ম কমিশনের অধীনে অনুষ্ঠিত পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁসের ঘটনা ঘটছে তা নয়। প্রাথমিকের সমাপনী পরীক্ষা থেকে শুরু করে মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক, বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা, এমনকি বিভিন্ন নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগও আছে। কিছু সংঘবদ্ধ চক্র প্রশ্ন ফাঁসের ঘটনার সঙ্গে জড়িত। গত কয়েক বছরে প্রশ্ন ফাঁসের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে অনেককে গ্রেপ্তারও করা হয়েছে। সরকারের নানা উদ্যোগ সত্ত্বেও প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকানো যায়নি। পাবলিক পরীক্ষা থেকে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি, চাকরিতে নিয়োগ পরীক্ষা, এমনকি পাবলিক সার্ভিস কমিশনের পরীক্ষাসহ প্রায় সব পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁস যেন নিয়মিত ঘটনায় পরিণত হয়েছে। এটা তো অস্বীকার করার উপায় নেই, যে বা যারা প্রশ্ন ফাঁসের মতো জঘন্য ও নিন্দনীয় একটি কাজের সঙ্গে জড়িত, তারা প্রকৃতপক্ষে দেশ এবং জাতির শত্রু। তাদের নীতিনৈতিকতা বলে কিছু নেই। শুধু অর্থের বিনিময়ে তারা যা খুশি তা-ই করতে পারে। করেও যাচ্ছে এসব চক্র, যার সঙ্গে এক শ্রেণির প্রশ্নকারী, শিক্ষক, সংরক্ষক, সরবরাহকারী, মুদ্রাকর, সর্বোপরি কোচিং সেন্টার, শিক্ষার্থী, অভিভাবক পর্যন্ত জড়িত প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে।

এই বিধ্বংসী অপরাধ প্রতিরোধের সহজ উপায় হচ্ছে অপরাধীদের চিহ্নিত করে কঠোর শাস্তির মুখোমুখি করা। প্রশ্ন ফাঁসের ঘটনা প্রতিরোধে দেশে আইন আছে; কিন্তু আইনের প্রয়োগ নেই। এখন সরকারি কর্ম কমিশনের অধীনে অনুষ্ঠিত পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁসের মতো অপরাধে ১০ বছরের কারাদণ্ডের বিধান রেখে ‘বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন আইন-২০২১’-এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

শুধু আইন করলে হবে না, আইনের কঠোর প্রয়োগও নিশ্চিত করতে হবে।



সাতদিনের সেরা