kalerkantho

রবিবার । ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২৮ নভেম্বর ২০২১। ২২ রবিউস সানি ১৪৪৩

অটুট থাক সম্প্রীতির বন্ধন

শারদীয়ার শান্তিপূর্ণ সমাপ্তি

১৭ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



অটুট থাক সম্প্রীতির বন্ধন

কুমিল্লাসহ কয়েকটি স্থানে দুঃখজনক কিছু ঘটনা ছাড়া দেশের সর্বত্র শান্তিপূর্ণভাবে শারদীয় দুর্গোৎসব পালিত হয়েছে। কিছু কিছু এলাকায় ধর্মকে ব্যবহার করে সহিংসতা সৃষ্টির চেষ্টা হয়েছে। উৎসবের রঙে দাগ লাগানোর চেষ্টা করেছে কিছু মানুষ। কিন্তু সরকার ও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সময়মতো পদক্ষেপের কারণে বড় ধরনের কোনো ঘটনা ঘটতে পারেনি। অষ্টমীর দিন কুমিল্লায় কোরআন অবমাননার কথিত অভিযোগ তুলে উত্তেজনা সৃষ্টি করা হয়। পরদিনই কঠোর হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন প্রধানমন্ত্রী। কুমিল্লার ঘটনার জের ধরে চাঁদপুরেও পূজামণ্ডপে ভাঙচুর ও সংঘর্ষ হয়, সেখানে প্রাণহানিও ঘটে। মণ্ডপে হামলা-ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে চট্টগ্রামের বাঁশখালী ও কর্ণফুলী উপজেলা, কক্সবাজারের পেকুয়া, মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ ও কুলাউড়া এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জেও। শুক্রবার ঢাকা, নোয়াখালী, চট্টগ্রামসহ দেশের কয়েকটি স্থানে বিক্ষোভ হয়।

এ ধরনের অপচেষ্টা এটাই প্রথম নয়। অথচ বাংলাদেশ একটি অসাম্প্রদায়িক দেশ। এ দেশের সম্প্রীতি এ দেশের বৈশিষ্ট্য। এই ভূখণ্ডে হাজার বছর ধরে মুসলমান, হিন্দু, বৌদ্ধ, খিস্টান, চাকমা, সাঁওতালসহ সব ধর্ম-বর্ণের মানুষ ও ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী একসঙ্গে সম্প্রীতি বজায় রেখে বসবাস করে আসছে। সব স্রোত এক ধারায় এসে মিলিত হয়ে বাঙালি সংস্কৃতিকে সমৃদ্ধ ও শক্তিশালী করেছে। আমাদের মুক্তিসংগ্রাম, মুক্তিযুদ্ধ এবং একাত্তরের ১৬ ডিসেম্বর অভূতপূর্ব বিজয় অর্জনে এককভাবে যে উপাদানটি সবচেয়ে বড় ভূমিকা রেখেছে তা হলো অসাম্প্রদায়িক বাঙালি সংস্কৃতির শক্তি। আর বাঙালি সংস্কৃতির মূল কথা হলো সম্প্রীতি। বাংলাদেশের একটি ঐতিহাসিভাবে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। এ দেশের বেশির ভাগ মানুষ ইসলাম ধর্মে বিশ্বাসী হলেও বাঙালি সংস্কৃতি ও চেতনা এর মূল চালিকাশক্তি।

একটি চিহ্নিত মহল একটি স্পর্শকাতর বিষয়কে সব সময় হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করতে চেয়েছে। এ দেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করার অপচেষ্টা করেছে। অবশ্য দেশের সচেতন মানুষ সব সময় এ ধরনের অপচেষ্টা রুখে দিয়েছে। এর নেপথ্যে রয়েছে অসাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির ঐতিহ্য। বাংলার মাটি তার শ্যামল বুকে চিরকাল সম্প্রীতিকে ধারণ করে এসেছে, পরিচর্যা করেছে গভীর ভালোবাসায়। আবহমানকাল ধরেই এ গাঙ্গেয় অববাহিকা সব মতের-ধর্মের জনগোষ্ঠীকে সমানভাবে বুকে ঠাঁই দিয়েছে, লালন করেছে পরম মমতায়। বাংলার সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির অঙ্কুর তার আবহাওয়ায়, তার লোকায়ত ঐতিহ্যে। নাতিশীতোষ্ণ জলবায়ুতে বেড়ে ওঠা এ দেশের মানুষ শান্তিপ্রিয়। সম্প্রীতির অনিঃশেষ ধারায় ধর্মীয় দর্শনের মানবিক ও সুকুমার বোধগুলো এই বাংলা সহজাতভাবেই আপনার করে নেয়। সম্প্রীতির চিরায়ত সেই বন্ধন অটুট থাকবে, এটাই আমাদের প্রত্যাশা।



সাতদিনের সেরা