kalerkantho

বুধবার । ৭ আশ্বিন ১৪২৮। ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৪ সফর ১৪৪৩

শেয়ারবাজারে কারসাজির আশঙ্কা

প্রতিরোধে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে হবে

১৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



দেশের পুঁজিবাজারের অবস্থা এখন অনেক ভালো। গত ৫ সেপ্টেম্বর মূল্যসূচক সাত হাজার পয়েন্টের মাইলফলক পাড়ি দেয়। প্রায় সাড়ে দশ বছর পর পুঁজিবাজারের মূল্যসূচক সাত হাজার ২৫৮ পয়েন্টে উঠেছে। অন্যদিকে বেড়েছে লেনদেনের পরিমাণও। সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে গত বৃহস্পতিবার লেনদেন হয়েছিল দুই হাজার ৬৯৬ কোটি ৫৮ লাখ টাকার। কিন্তু অনেক ভালোর মধ্যেও কিছু মন্দের আশঙ্কা করা হচ্ছে। এমন কিছু কম্পানির শেয়ারের দর এত দ্রুত বেড়েছে, যাকে স্বাভাবিক মনে করছেন না সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞরা। অস্বাভাবিক হারে দর বেড়ে যাওয়া কম্পানিগুলো নিজেরাও জানে না কেন তাদের শেয়ারের দর এভাবে হু হু করে বাড়ছে। এমন ৯টি কম্পানির কর্তৃপক্ষের মতামত নিয়েই ডিএসই তাদের শেয়ার সম্পর্কে সতর্কবার্তা জারি করেছে। পাশাপাশি অস্বাভাবিক দর বাড়ার কারণ জানতে একটি তদন্ত কমিটিও কাজ করছে।

কালের কণ্ঠে প্রকাশিত খবর থেকে জানা যায়, যেসব কম্পানির শেয়ারের দাম অস্বাভাবিক হারে বেড়েছে, তার মধ্যে যেমন স্বল্প মূলধনের কম্পানি রয়েছে, তেমনি রয়েছে লোকসানি, উৎপাদন বন্ধ থাকা এবং নামমাত্র আয়ের অনেক কম্পানি। এসব কম্পানির শেয়ারের এভাবে হঠাৎ করে দাম বাড়ার পেছনে কোনো যুক্তিসংগত কারণই থাকতে পারে না। ফলে ধারণা করা হচ্ছে, বাজারের এমন অস্বাভাবিক প্রবণতার পেছনে আবারও কিছু খেলোয়াড় বা কারসাজিকারীর ভূমিকা থাকতে পারে। যে ৯টি কম্পানির শেয়ার সম্পর্কে সতর্কবার্তা জারি করা হয়েছে তার মধ্যে আছে সমতা লেদার, আট কার্যদিবসে শেয়ারের দাম বেড়েছে ৪৩ শতাংশ; ইমাম বাটন, ২৫ কার্যদিবসে দাম বেড়েছে ৩৩.৮৪ শতাংশ; ডরিন পাওয়ার, ২৫ কার্যদিবসে দাম বেড়েছে ৩০.০৫ শতাংশ। অন্যগুলোরও কাছাকাছি দাম বেড়েছে।

আমাদের শেয়ারবাজারে অতীতে অনেক বড় বড় কারসাজির ঘটনা ঘটেছে। শত শত বিনিয়োগকারী তাদের সর্বস্ব হারিয়েছে। চক্রান্তকারীরা লুটে নিয়েছে হাজার হাজার কোটি টাকা। এরপর কারসাজি ঠেকাতে বাজারে অনেক ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। তা সত্ত্বেও বাজারের ওপর বিনিয়োগকারীদের আস্থা যথেষ্ট পরিমাণে ফিরে এসেছে, এমনটা বলা যাবে না। এমন অবস্থায় আবারও যদি বড় ধরনের কারসাজির ঘটনা ঘটে, তা হলে তা দেশের পুঁজিবাজারের জন্য মারাত্মক ক্ষতির কারণ হবে। আবারও হাজার হাজার বিনিয়োগকারী বড় ক্ষতির মুখোমুখি হবে। কাজেই যেখানে যেখানে কারসাজির আলামত পাওয়া যাবে, সেখানেই দ্রুত ব্যবস্থা নিতে হবে। আবার বিনিয়োগকারীদেরও সতর্ক হতে হবে। কোনো দুর্বল কম্পানির শেয়ারের দাম হঠাৎ করে কেন বাড়ছে তা বোঝার চেষ্টা করতে হবে।



সাতদিনের সেরা