kalerkantho

মঙ্গলবার । ৩০ চৈত্র ১৪২৭। ১৩ এপ্রিল ২০২১। ২৯ শাবান ১৪৪২

বন্ধ হয়নি হয়রানি

গণপরিবহন হোক নারীবান্ধব

৯ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



যে শহরের গণপরিবহন ব্যবস্থা যত ভালো ও সুশৃঙ্খল, সে শহর তত বেশি নাগরিকবান্ধব, বাসযোগ্য। সে বিচারে রাজধানী ঢাকা কি বাসযোগ্য? এই মহানগরীতে এখনো নারীর জন্য আলাদা গণপরিবহন ব্যবস্থা নেই। রাজধানীতে প্রতিদিন অসংখ্য নারীকে পরিবহনের জন্য এমন বিড়ম্বনায় পড়তে হয়। বাস না পেয়ে অনেকে রিকশায় চড়ে যেতে বাধ্য হয়। হেঁটেও চলাচল করে অনেকে। নিরাপত্তাহীনতার শঙ্কা নিয়েই পথ চলে তারা।

গণপরিবহনে যাতায়াত করতে গিয়ে নারীকে প্রতিনিয়ত হেনস্তা ও যৌন হয়রানির শিকার হতে হয়। একটি গবেষণা বলছে, গণপরিবহন ব্যবহার করেন নারী যাত্রীদের বেশির ভাগই কোনো না কোনোভাবে যৌন হয়রানির শিকার হন। গবেষণায় উল্লেখ করা হয়েছে, হয়রানির শিকার নারীর একটি বড় অংশ পরবর্তী সময়ে তাদের চলাচল সীমিত করতে বাধ্য হয়েছে। একটি বেসরকারি সংস্থার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০১৯ সালে গণপরিবহনে ৫২টি ঘটনায় ৫৯ জন নারী ধর্ষণ ও যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। কেন গণপরিবহনকে নারীবান্ধব করা গেল না?

অথচ প্রতিবেশী দেশ ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লিসহ আরো অনেক দেশের রাজধানী শহরে নারীদের জন্য আলাদা পরিবহনের ব্যবস্থা রয়েছে। বাসে তাদের জন্য আসন সংরক্ষণের নিয়মও মানা হয়। অনেক ক্ষেত্রে নারীদের দিয়েই চালানো হয় নারীদের পরিবহন; কিন্তু রাজধানী ঢাকার চিত্র একেবারেই উল্টো। বেসরকারি ছয় হাজার বাস ও মিনিবাসের একটিও নারীদের জন্য বরাদ্দ নয়। সরকারি সংস্থা বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশন নগরীতে ২০টি রুটে নারীদের জন্য বাস চালু করেছিল। সেগুলো এখন আর খুঁজে পাওয়া যায় না। বিআরটিসির পাশাপাশি ২০১৮ সালে পরিবহন সংস্থা দোলনচাঁপা মিরপুর-১২ থেকে মতিঝিল পর্যন্ত প্রথম বেসরকারিভাবে নারীদের জন্য বাস সার্ভিস চালু করে। কর্তৃপক্ষ তখন বলেছিল, ধীরে ধীরে বাসের সংখ্যা বাড়ানো হবে; কিন্তু এই বাস বন্ধ হয়ে গেছে। কবে থেকে কেন বন্ধ হয়েছে সে সম্পর্কে কেউ জানে না। রাজধানীর বেশ কিছু স্থানে নারীদের বাস থামার-ছাড়ার নির্ধারিত স্থান রয়েছে, সাইনবোর্ডও আছে। কিন্তু সেসব স্থানে নারী যাত্রীরা বাস পায় না। আবার রাজধানীর গণপরিবহনে সংরক্ষিত যে ৯টি আসন বাসে আছে তা-ও রক্ষা করা হয় না। ফলে নারীরা বাসে উঠলেও জায়গা পায় না।

নারীদের জন্য আরো বিশেষ সার্ভিস চালু করা উচিত। বাসগুলোয় সংরক্ষিত আসনও বাড়ানো প্রয়োজন। নারীবান্ধব গণপরিবহন ব্যবস্থা গড়ে তোলার কোনো বিকল্প নেই।

 

 

মন্তব্য