kalerkantho

শনিবার । ২১ চৈত্র ১৪২৬। ৪ এপ্রিল ২০২০। ৯ শাবান ১৪৪১

হতাশার চিত্র বিবিএস জরিপে

সমাজকে এগিয়ে নিতে ব্যবস্থা নিন

২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



হতাশার চিত্র বিবিএস জরিপে

বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো-বিবিএস গত সোমবার যে মাল্টিপল ইন্ডিকেটর ক্লাস্টার সার্ভে ২০১৯ প্রকাশ করেছে, তাতে হতাশ না হয়ে কোনো উপায় নেই। জরিপে আজকের বাংলাদেশের নারীদের অবস্থা যেভাবে উঠে এসেছে, তাতে মনেই হয় না, ছয় বছর আগের তুলনায় বর্তমানে নারীদের মধ্যে উচ্চশিক্ষার হার বেড়েছে। বিবিএসের জরিপ বলছে, স্বামীর অনুমতি না নিয়ে বাইরে যাওয়া, বাচ্চাদের প্রতি যত্নশীল না হওয়া, স্বামীর সঙ্গে তর্ক করা, যৌন সম্পর্ক করতে অস্বীকৃতি জানানো এবং খাবার পুড়িয়ে ফেলা—এই পাঁচ কারণের অন্তত একটির জন্য দেশের প্রতি চারজন বিবাহিত নারীর একজন স্বামীর হাতে প্রহৃত হন। এখানেই হতাশাজনক তথ্যের শেষ নয়। বিবিএসের তথ্য বলছে, আশঙ্কাজনকভাবে শিশুদের প্রতি সহিংস শাসন বেড়েছে। ১ থেকে ১৪ বছর বয়সের শিশুদের প্রায় ৮৯ শতাংশ সমীক্ষা চলাকালীন আগের এক মাসে অন্তত একবার শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের শিকার হয়েছে। ছয় বছর আগে ৮২ দশমিক ৩ শতাংশ শিশু এ ধরনের নির্যাতনের শিকার হতো। বিবিএসের জরিপে ইতিবাচক কিছু নেই, তা নয়। জরিপ বলছে, সমীক্ষায় অংশ নেওয়া পরিবারগুলোর মধ্যে ৯৫ দশমিক ৯ শতাংশ পরিবারে অন্তত একটি মোবাইল ফোন বা ল্যান্ডফোন আছে। বাল্যবিয়ে পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে। উন্নতি হয়েছে শিশুমৃত্যু পরিস্থিতিরও। ১৫ থেকে ২৪ বছর বয়সী নারীদের ৮৮ দশমিক ৭ শতাংশ শিক্ষিত। ৯২ শতাংশের পরিবারে বিদ্যুতের সংযোগ আছে। আর ৮৪ শতাংশের বেশি পরিবারে উন্নত স্যানিটেশন সুবিধা আছে। কিন্তু নারী ও শিশু নির্যাতনের যে চিত্র এ সমীক্ষায় উঠে এসেছে, তা রীতিমতো লজ্জার। এ চিত্র একটি সভ্য সমাজে কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য হতে পারে না। স্ত্রীর প্রতি স্বামীর এই সহিংস আচরণ কি শুধুই পুরুষতান্ত্রিক আধিপত্যবাদী সমাজের মানসিকতা থেকে আমরা বের হয়ে আসতে পারছি না বলে? নাকি নারীরা আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী না হওয়ার কারণেই স্বামীরা এ সুযোগ পান? তাহলে শিশুর ওপর নির্যাতন দিন দিন বাড়ছে, তার কারণ কী? এ সমাজকে কি আমরা সভ্য সমাজ বলতে পারি? বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এ চিত্র সব অর্জনকে ধুলোয় মিশিয়ে দেবে।

বাংলাদেশে পারিবারিক নির্যাতন অনেক পুরনো। নারী নির্যাতন প্রতিরোধে দেশে পারিবারিক সহিংসতা (প্রতিরোধ ও সুরক্ষা) আইন পাস হয়েছে। কিন্তু সেই আইনের সুফল কোথায়? বিবিএসের জরিপে এমন হতাশার চিত্র কেন? এ কোন যুগে বাস করছি আমরা! দেশ উন্নয়নের রোল মডেল হয়েছে। অর্থনৈতিকভাবে এগিয়ে যাচ্ছে। উন্নত দেশ হিসেবে আমরা মাথা তুলে দাঁড়াতে চাইছি। কিন্তু সত্যিকারের মানবিক সমাজ গঠন করা কেন সম্ভব হচ্ছে না? বিষয়টি নিয়ে ভাবতে হবে। সমাজকে এগিয়ে নিয়ে যেতে কার্যকর ব্যবস্থা এখনই না নিলে আমাদের সব অর্জন ব্যর্থ হয়ে যাবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা