kalerkantho

সোমবার । ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ৪ ফাল্গুন ১৪২৬। ২২ জমাদিউস সানি ১৪৪১

যানজটে বাড়ছে আর্থিক ক্ষতি

দ্রুত বিজ্ঞানসম্মত সমন্বিত ব্যবস্থা নিন

১১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রাজধানী ঢাকার নাগরিকদের সবচেয়ে বড় বিরক্তির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে যানজট। একদিকে উন্নয়নের কাজ চলছে, অন্যদিকে রাস্তায় চলছে ফিটনেসবিহীন যানবাহন। এই দুয়ে মিলে দূষিত হচ্ছে পরিবেশ। রাস্তায় বেরিয়ে যানজটে নষ্ট হচ্ছে কর্মঘণ্টা। গতকাল কালের কণ্ঠে প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে, পরিবেশ ও স্বাস্থ্যগত ক্ষতি বাদ দিয়েও বছরে প্রায় এক লাখ কোটি টাকার আর্থিক ক্ষতি হচ্ছে ঢাকার যানজটে। এই ক্ষতি দেশের জাতীয় বাজেটের প্রায় ২০ শতাংশের সমান। মহানগরে নিয়মিত চলাচলকারী যাত্রীদের দীর্ঘক্ষণ যানজটে থেকে মানসিকভাবে ‘যুদ্ধ’ করতে হচ্ছে। এক গবেষণার বিষয়ে উল্লেখ করে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যানজট প্রভাব ফেলছে কমপক্ষে ৯টি মানবিক আচরণে। বিদেশি বিনিয়োগকারীদের উৎসাহ ঢাকায় এসেই কমে যাচ্ছে যানজটের কারণে।

ঢাকার যানজট নিরসনের লক্ষ্যে প্রায় ৪৩ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প নেওয়া হয়েছে গত ১০ বছরে। তার পরও ঢাকায় যানজট কমছে না। ২০১৮ সালে পরিচালিত বুয়েটের এক গবেষণায় বলা হয়েছে, ঢাকার সড়কে যানজটে একটি গাড়ি ঘণ্টায় চলতে পারে পাঁচ কিলোমিটার। অথচ ১৩ বছর আগে চলতে পারত ঘণ্টায় ২১ কিলোমিটার। গবেষণায় উঠে এসেছে, শুধু কর্মঘণ্টা নষ্টের জন্য আর্থিক ক্ষতি বছরে ৩৭ হাজার কোটি টাকা। গবেষকরা বলছেন, এ ক্ষতির ৬০ শতাংশ বা ২২ হাজার কোটি টাকা সাশ্রয় করা সম্ভব। তা করা সম্ভব হচ্ছে না সমন্বয় না থাকায়। গত ডিসেম্বরে বিশ্বব্যাংকের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ঢাকার যানজট অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে। প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, সীমিত সড়ক ও যানবাহনের আধিক্যে মাত্রাতিরিক্ত যানজট বাড়ছে। বিশ্বব্যাংকের প্রতিবেদন অনুসারে ২০০১ থেকে ১৩ বছরে ঢাকার সড়কে গাড়ি বেড়েছে ১৬ গুণ।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সরকার ঢাকা মহানগরের যানজট নিরসনের জন্য মেগাপ্রকল্প হাতে নিয়েছে। মেট্রো রেল, বিআরটিএর মতো প্রকল্প আরো আগেই বাস্তবায়ন করা উচিত ছিল। তাঁদের মতে, ঢাকার সড়ক ব্যবস্থাপনা বিজ্ঞানসম্মত নয়। প্রকল্পভিত্তিক সমাধানের চেয়ে ব্যবস্থাপনাভিত্তিক কর্মসূচি জরুরি। সরকার ঢাকা মহানগরের যানজট নিরসনের জন্য মেগাপ্রকল্প হাতে নিয়েছে। সড়কের পাশাপাশি গণপরিবহন ব্যবস্থার উন্নতি করতে না পারলে ঢাকার যানজট নিরসন সম্ভব নয়। আর সে কারণেই উন্নত গণপরিবহনব্যবস্থা নিয়ে ভাবতে হবে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ সঠিক ব্যবস্থা নেবে—এটাই আমাদের প্রত্যাশা।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা