kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২ রজব জমাদিউস সানি ১৪৪১

নির্বাচনের তারিখ নিয়ে জটিলতা

কমিশনই সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারে

১৯ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নির্বাচনের তারিখ নিয়ে জটিলতা

৩০ জানুয়ারি ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের নির্বাচনের দিন নির্ধারণ হয়ে আছে। ভোট সামনে রেখে প্রার্থীরা প্রচারও চালিয়ে যাচ্ছেন। কিন্তু ওই দিনই সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সরস্বতীপূজা। পূজার দিন ভোটের তারিখ নির্ধারণ করার বিষয়ে নানা মহল থেকে আপত্তি উঠেছে। পূজা উদ্যাপিত হয়ে থাকে এ রকম প্রতিষ্ঠানে ৭৩টি ভোটকেন্দ্র রয়েছে। এর মধ্যে উত্তর সিটি করপোরেশন এলাকার ২৭টি এবং দক্ষিণ সিটি করপোরেশন এলাকার ২৬টিতে পূজা হয়ে থাকে। নির্বাচনের তারিখ পরিবর্তনের দাবিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু), জগন্নাথ হল ছাত্র সংসদসহ সাধারণ শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করছেন। আমরণ অনশন করছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে অনশনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে একাত্মতা ও সংহতি জানিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বলেছেন, অসাম্প্রদায়িক ধর্মীয় মূল্যবোধের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে এই তারিখ নিয়ে সময় নষ্ট করা উচিত হবে না। যেহেতু নির্বাচনের তারিখ নির্ধারণ করার এখতিয়ার নির্বাচন কমিশনেরই, সেহেতু তারিখ পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত নেওয়া জরুরি।

বাংলাদেশে ধর্মীয় উৎসব অনুষ্ঠানের কারণে নির্বাচনের তারিখ পরিবর্তনের নজির রয়েছে। জাতীয় সংসদের সাধারণ নির্বাচনসহ অন্যান্য নির্বাচনের তফসিলেও কয়েকবার পরিবর্তন আনা হয়েছে মুসলিম ও অন্য ধর্মীয় সম্প্রদায়ের উৎসবের কারণে। কিন্তু এবারের মতো বিতর্ক, আন্দোলন ও আদালতে রিট আবেদনের ঘটনা কখনো ঘটেনি। ভোটের তারিখ পরিবর্তনের জন্য হাইকোর্টে রিট আবেদন করেছিলেন একজন আইনজীবী। হাইকোর্ট বেঞ্চ গত মঙ্গলবার সেই আবেদন সরাসরি খারিজ করে দিলে বৃহস্পতিবার আপিল বিভাগে আসেন তিনি। আজ রবিবার আপিল বিভাগের চেম্বার আদালতে ওই আবেদনের ওপর শুনানি হতে পারে।

প্রকাশিত খবরে বলা হচ্ছে, ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের ভোটের তারিখ পরিবর্তনের বিষয়ে রাজনৈতিক দল, প্রার্থীসহ সংশ্লিষ্ট পক্ষগুলোর মধ্যে নমনীয়তা দেখা গেছে। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, নির্বাচনের তারিখ পরিবর্তন হলে আপত্তি নেই আওয়ামী লীগের। ঢাকা উত্তর সিটিতে আওয়ামী লীগের মেয়র পদপ্রার্থী আতিকুল ইসলাম নির্বাচন পেছানোর দাবি জানিয়ে নির্বাচন কমিশনকে বিষয়টি বিবেচনার অনুরোধ জানিয়েছেন। একই দিন একই সিটিতে বিএনপির মেয়র পদপ্রার্থী তাবিথ আউয়াল বলেছেন, সরস্বতীপূজার দিন নির্বাচন হওয়ায় সনাতন ধর্মাবলম্বীরা তাঁদের মনের ক্ষোভ ভোটের বাক্সে প্রকাশ করবেন। ঢাকা দক্ষিণে আওয়ামী লীগের মেয়র পদপ্রার্থী শেখ ফজলে নূর তাপস একই দিন পূজা ও ভোট হওয়ায় সনাতন ধর্মাবলম্বীদের প্রতি সমবেদনা ও সহমর্মিতা জানিয়েছেন। আর বিএনপির মেয়র পদপ্রার্থী ইশরাক হোসেনও সরস্বতীপূজার বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে ভোটের তারিখ পেছানোর জন্য নির্বাচন কমিশনকে অনুরোধ করেছেন।

নির্বাচনের তারিখ নির্ধারণ করার এখতিয়ার নির্বাচন কমিশনের। নির্বাচন কমিশন সংশ্লিষ্ট রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে বসে আলোচনা করে সঠিক সিদ্ধান্ত নেবে, এটাই আমাদের প্রত্যাশা।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা