kalerkantho

শনিবার । ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৬ জুন ২০২০। ১৩ শাওয়াল ১৪৪১

শরীর ও মন

গরমে সতর্কতা

গরম পড়তে শুরু করেছে ইদানীং। এখন বাড়িতে থাকার কারণে অতটা গরম অনুভব করতে পারছ না হয়তো। কিন্তু যারা গ্রামে থাক তারা ঠিকই টের পেয়েছ। গরমের সতর্কতা নিয়ে পরামর্শ দিয়েছেন লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিক্যাল অফিসার ডা. যুগোল কিশোর রায়

৫ এপ্রিল, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



গরমে সতর্কতা

পানিশূন্যতা

গরমের কারণে কিশোর-কিশোরীদের মধ্যে দেখা দেয় পানিশূন্যতা। তীব্র গরমের ফলে যেমন তৃষ্ণা পায়, ঠিক তেমনি দেহে পানির ঘাটতি হয়। তাই প্রচুর পরিমাণে পানি পান করতে হবে। চাইলে স্যালাইনও পান করতে পার। ডাব, আনারস, তরমুজসহ যেকোনো রসালো ফল বা ফলের জুস খেতে পার। চাইলে একাধিকবার গোসল করে নিতে পার। আর গরমের সময় উচ্চ প্রোটিনযুক্ত খাবার কম পরিমাণে খাওয়া ভালো।

 

আলো-বাতাসপূর্ণ ঠাণ্ডা ঘর

তোমাদের মধ্যে অনেকে আছ, ঘরের দরজা-জানালা সব বন্ধ করে রাখ। কিন্তু আলো-বাতাসপূর্ণ ঘরে বসবাস করা উত্তম। সব সময় রুমের জানালা খুলে রাখবে হবে, যাতে পর্যাপ্ত আলো-বাতাস ঘরে আসতে পারে। আর ফ্যান বা এসি চালানোর ক্ষেত্রে সতর্ক থাকবে। অনেক সময় দেখা যায় ভোররাতে ঠাণ্ডা পড়লেও ফ্যান বা এসি চালিয়ে রাখ। এতে তোমাদের ঠাণ্ড লেগে যেতে পারে।

 

ত্বকের সমস্যা

গরমের কারণে শরীর থেকে অতিরিক্ত ঘাম বের হয়। ফলে দেহে দুর্গন্ধ সৃষ্টিসহ ত্বকেও সমস্যা দেখা দিতে পারে। শরীরের জমাট বাঁধা ঘাম থেকে ফাঙ্গাল ইনফেকশন হতে পারে। গ্রীষ্মের অতিরিক্ত গরমে ঘামাচির সমস্যাও বেড়ে যায়। এ জন্য নিয়মিত গোসল করতে হবে। প্রচুর পরিমাণে পানি পান করতে হবে আর ভিটামিন ‘সি’ সমৃদ্ধ খাবার খেতে হবে। খাদ্যতালিকায় বেশি বেশি শাকসবজি রাখ। গরমে আরেকটি সমস্য দেখা দেয় তা হলো হিটস্ট্রোক। তাই করোনাভাইরাসের এই মহামারির প্রকোপ শেষে যখন বাইরে বের হবে অবশ্যই ছায়া আছে এমন স্থান দিয়ে হাঁটার চেষ্টা করবে কিংবা কতটুকু হাঁটার পর ছায়াযুক্ত স্থানে বসে জিরিয়ে নিবে।  ত্বকের যত্নে সানস্ক্রিন লোশন ব্যবহার করতে পার।

 

রাস্তায় বেরোলে ছাতা থাকা চাই

তীব্র গরমে বাইরে রোদও প্রখর। অনেকে বাইরে বের হলে বল রোদের তাপে ত্বক পুড়ে যাচ্ছে। তাই বাইরে বেরোলে অবশ্যই ছাতা নিয়ে বের হতে হবে। চোখের জন্য সানগ্লাস ব্যবহার করতে পার। মাথায় রাখতে পার টুপি। এবার আসি পোশাক-পরিচ্ছদ নিয়ে। নরম সুতি কাপড় গরমে পরার জন্য আরামদায়ক। সিনথেটিক কাপড় যতটা সম্ভব এড়িয়ে চল। অনেকে বলে থাকেন, হালকা রঙের পোশাক পরা গরমের জন্য ভালো।

 

বাইরের খোলা খাবার মোটেও না

গরমে ধুলাবালি একটু বেশিই উড়ে থাকে। ফলে বাইরের ঝালমুড়ি, ফুচকা, তেলে ভাজা খোলা খাবার থেকে বিরত থাক।  অন্যদিকে গরমে সহজেই খাবার দূষিত হয়। তাই এ ব্যাপারেও সতর্ক থাকতে হবে।

 

অনুলিখন : অনয় আহম্মেদ

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা