kalerkantho

বুধবার । ২৯ জানুয়ারি ২০২০। ১৫ মাঘ ১৪২৬। ৩ জমাদিউস সানি ১৪৪১     

শুরুতে হাসো

১৭ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



 

 

♦           প্রথম বন্ধু : জানিস, বস আমার কাজে খুশি হয়ে আমাকে ৫০ হাজার টাকার একটা চেক দিয়েছে।

            দ্বিতীয় বন্ধু : তো চেকটা দিয়ে কী করলি?

            প্রথম বন্ধু : আলমারিতে যত্ন করে রেখে দিয়েছি।

            দ্বিতীয় বন্ধু : কেন? কেন?

            প্রথম বন্ধু : বস বলেছে, আগামী ১০ বছর যদি এভাবে কাজ করি, তবে চেকটাতে সই করে দেবে।

 

♦           নাতি : দাদু, তুমি পেয়ারা খেতে পারো?

            দাদু : না রে ভাই! সব দাঁত পড়ে গেছে যে।

            নাতি : তাহলে এই পেয়ারাগুলো ধরো তো, আমি আরো পেড়ে আনি।

♦           শিক্ষক : কী রে কামাল, তোর আর তুহিনের গরুর রচনা হুবহু এক রকম হলো কী করে?

            কামাল : স্যার আমরা দুজন একই গরু দেখে লিখেছি যে!

 

♦           ছোট্ট ছেলে অনেকক্ষণ ধরে কাঁদছে।

            বাবা ও মা : কী হয়েছে খোকা? কাঁদছ কেন?

            ছেলে : (অভিমানের সুরে) তোমাদের বিয়েতে দাওয়াত করোনি কেন? আমার কথা কি তোমাদের মনেও ছিল না?

 

♦           ডাক্তারের ভিজিটের নিয়ম হলো—প্রথমবার ৫০০, দ্বিতীয়বার ৪০০ আর তৃতীয়বার ৩০০ টাকা।

            এক লোক চালাকি করে ডাক্তারের কাছে গিয়ে বলল, ‘এবার আমি তৃতীয়বার আসলাম।’

            ডাক্তার চালাকি ধরতে পেরেছিলেন। জিহ্বা দেখে বললেন, ‘৩০০ টাকা দেন, আর ওষুধ আগেরটা খাবেন।’

 

♦           শিক্ষক : তোমাকে না কতবার বলেছি দেখে দেখে লিখবে না!

            ছাত্র : আমি চোখ বন্ধ করে লিখতে পারি না স্যার।

 

♦           বিচারক : আমি এখন রায় ঘোষণা করব। রায়ের মধ্যে কেউ কথা বললে তাকে কিন্তু বের করে দেব।

            এ কথা শুনে আসামি বলে উঠল, ‘হুজুরের জয় হোক।’

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা