kalerkantho

বুধবার । ২৯ জানুয়ারি ২০২০। ১৫ মাঘ ১৪২৬। ৩ জমাদিউস সানি ১৪৪১     

উল্টো পায়ের মানুষ

১৭ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে




উল্টো পায়ের মানুষ

মানুষ তার শরীর নিয়ে কত রকমের কাণ্ড করে তার কি ইয়ত্তা আছে? মোসেস ল্যানহামের কথাই ধরো। এই ভদ্রলোকের বাড়ি আমেরিকার মিশিগানে। বয়স ৫৩। বন্ধুরা তাঁকে মোসেস কিংবা ল্যানহাম—কোনো নামেই ডাকে না। তারা ডাকে ‘উল্টো পায়ের মানুষ’ নামে।

এমন অদ্ভুত নামে ডাকার যথার্থ কারণ আছে। এই ভদ্রলোক তাঁর পা দুটিকে ১২০ ডিগ্রি ঘোরাতে পারেন। তার মানে দাঁড়াচ্ছে, সামনের দিকে তাকিয়ে থাকলেও তাঁর পা তিনি রাখতে পারেন পেছন দিকে মুখ করে। সবচেয়ে মজার ব্যাপার হচ্ছে, উল্টো দিকে পা ঘুরিয়ে রাখার সময় তিনি হাঁটতেও পারেন।

ডাক্তাররা পরীক্ষা করে জানিয়েছেন, ল্যানহামের কোমর, হাঁটু এবং পায়ের গোড়ালিতে স্বাভাবিক মানুষের চেয়ে বেশি টিস্যু আছে। যার কারণে তিনি পা ঘোরাতে পারেন।

১৪ বছর বয়সে ল্যানহাম তাঁর এই বিশেষ গুণের কথা জানতে পারেন। একদিন জিম করতে গিয়ে ১৮ ফুট ওপর থেকে পড়ে গিয়ে তাঁর পা বেঁকে যায়। কিন্তু তখন তিনি কোনো ব্যথা পাচ্ছিলেন না। তাতেই বুঝে যান, চাইলেই তিনি পা বাঁকাতে পারবেন।

সম্প্রতি পা ঘুরিয়ে রাখার ব্যাপারে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে নাম উঠিয়েছেন। ভবিষ্যতে পা বাঁকিয়ে হেঁটে বিশ্বরেকর্ড করার ইচ্ছাও আছে তাঁর।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা