kalerkantho

সোমবার । ৩ মাঘ ১৪২৮। ১৭ জানুয়ারি ২০২২। ১৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

শীতে পুড়ে গেলে

ডা. মাহবুব হাসান, সহকারী অধ্যাপক (প্লাস্টিক সার্জারি), শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউট

৪ ডিসেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শীতে পুড়ে গেলে

শীতে দেখা যায় আমাদের হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে পোড়া রোগীর সংখ্যা আশঙ্কাজনক হারে বেড়ে যায়। কারণ আর কিছুই না, আমাদের কিছু অসাবধানতা।

►      সাধারণত গ্রামাঞ্চলে শীতকালে আগুন পোহানো হয়। এ সময় পোশাকের বাড়তি অংশ, যেমন—শাড়ির আঁচল, ওড়না, লুঙ্গিতে আগুন লেগে যায়।

►      আগুন পোহানো শেষে গরম ছাইয়ের সংস্পর্শে আসার কারণে শিশুদের পুড়ে যাওয়ার ঘটনা বেড়ে যায়।

►      ইলেকট্রিক হিটার যথেচ্ছ ব্যবহারের কারণে শর্টসার্কিটের ফলে দুর্ঘটনার সংখ্যা বৃদ্ধি পায়।

►      শীতকালে সাধারণত গোসল, অজুসহ নানাবিধ কাজে গরম পানির ব্যবহার দেখা যায়। যথাযথ সতর্কতা অবলম্বন না করলে গরম পানি দিয়ে অঘটন ঘটে।

 

সাবধানতা

►      আগুন পোহানোর সময় নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখা। শিশুদের দিকে বিশেষ নজর দেওয়া। কাপড়ের বাড়তি অংশ যেন কোনোভাবেই আগুনের সংস্পর্শে না আসে তা লক্ষ রাখা।

►      তাপ পোহানো শেষে ছাই ঠিকভাবে নেভানো হয়েছে কি না তা নিশ্চিত করা।

►      ইলেকট্রিক ওয়াটার হিটার ও রুম হিটার ব্যবহারের ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যবিধি মেনে তৈরীকৃত মানসম্মত যন্ত্র ব্যবহার করা।

►      গরম পানি এক স্থান থেকে অন্য স্থানে আনা-নেওয়ার সময় সাবধান থাকা।

►      চুলা জ্বালিয়ে কাপড় শুকানো থেকে বিরত থাকা।

 

পুড়ে গেলে কী করবেন

►      আগুন লাগলে তাৎক্ষণিক মাটিতে শুয়ে গড়াগড়ি করে আগুন নেভানোর চেষ্টা করবেন।

►      শরীর থেকে পোড়া কাপড় সরিয়ে ফেলবেন।

►      আক্রান্ত স্থানে প্রচুর পরিমাণ ট্যাপের স্বাভাবিক তাপমাত্রার পানি ২০-৩০ মিনিট ধরে ঢালবেন।

►      সিলভার সালফাডায়াজিন ক্রিম আক্রান্ত স্থানে লাগাবেন (যদি হাতের কাছে থাকে)।

►      আক্রান্ত ব্যক্তিকে দ্রুত নিকটস্থ হাসপাতালে নিয়ে যাবেন।

 

যা যা করবেন না

►      আক্রান্ত স্থানে ফ্রিজের ঠাণ্ডা পানি বা বরফ লাগানো থেকে বিরত থাকবেন।

►      টুথপেস্ট, স্যাভলন বা স্পিরিট জাতীয় কোনো কিছু লাগাবেন না।

►      ফোস্কা পড়লে তা গালাবেন না।

►      চিকিৎসকের পরামর্শ ব্যতীত কোনো মলম ব্যবহার করবেন না।

►      আশঙ্কাজনক রোগী, বিশেষ করে শিশু ও বৃদ্ধদের ক্ষেত্রে হাসপাতালে নিতে দেরি করবেন না।



সাতদিনের সেরা