kalerkantho

শনিবার। ২ মাঘ ১৪২৭। ১৬ জানুয়ারি ২০২১। ২ জমাদিউস সানি ১৪৪২

জন্মগত ত্রুটি

ঠোঁট কাটা তালু ফাটা

অধ্যাপক ডা. বিজয় কৃষ্ণ দাস, বিভাগীয় প্রধান, শিশু সার্জারি বিভাগ, কেয়ার মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল

২৮ নভেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৬ মিনিটে



ঠোঁট কাটা তালু ফাটা

ঠোঁঁট কাটা ও তালু ফাটা এক ধরনের জন্মগত ত্রুটি, যাকে বলা হয় Orofacial Clefts। বিশ্বে গড়ে প্রতি ৭০০ জনের মধ্যে একজন শিশু এসব সমস্যা নিয়ে জন্মায়। সেই হিসাবে প্রতিদিন ৫৪০ জন, বছরে এক লাখ ৯৭ হাজার ১০০ জনেরও বেশি ঠোঁট কাটা ও তালু ফাটা শিশু জন্মায়।

 

বৈশিষ্ট্য

গর্ভাবস্থার প্রথম তিন মাসের মধ্যে শিশুর অঙ্গ-প্রত্যঙ্গসহ দেহের পূর্ণ অবয়ব তৈরি হয়। পাঁচটি অংশের সমন্বয়ে গঠিত হয় মুখমণ্ডল, যা ঠিকমতো মিলিত না হলে ঠোঁট কাটা ও তালু ফাটা শিশুতে পরিণত হয়। এসব শিশুর কিছু বৈশিষ্ট্য প্রকাশ পায়। যেমন—

► ঠোঁট কাটা ও তালু ফাটা শিশুদের ওপরের ঠোঁটের এক বা একাধিক অংশে জন্ম থেকেই অল্পবিস্তর কাটা থাকতে পারে।

► দাঁতের মাড়ি, মুখগহ্বরের তালু বা টাকরা, আলজিবও কাটা থাকতে পারে।

► কোনো কোনো ক্ষেত্রে শুধু আলজিবসহ মুখগহ্বরের তালু বা টাকরা ফাটা থাকতে পারে।

► অন্যান্য জন্মগত ত্রুটি যেমন—চোখ না থাকা, ছোট কান, অধিক আঙুল, জোড়া আঙুল, বাঁকা হাত, মুগুর পা, হৃৎপিণ্ডে ত্রুটি, রক্তনালির ত্রুটি ইত্যাদিও থাকতে পারে।

 

কারণ

ঠোঁট কাটা, তালু ফাটাসহ কোনো জন্মগত ত্রুটির সঠিক কারণ এখন পর্যন্ত জানা যায়নি। তবে এ সমস্যার জন্য কিছু বিষয়কে দায়ী করা হয়। যেমন—

► বংশগত (মা-বাবা)

► আত্মীয়-স্বজনের মধ্যে বিয়ে

► পরিবেশদূষণ, তেজস্ক্রিয়তা

► গর্ভাবস্থায় ফলিক এসিড, ভিটামিন ‘বি’ ইত্যাদির স্বল্পতা

► গর্ভাবস্থায় পুষ্টিহীনতা/স্থূলতা

► গর্ভাবস্থায় তামাক, ধূমপান, মদ ইত্যাদি নেশাদ্রব্য গ্রহণ

► গর্ভাবস্থায় ভুল ওষুধ সেবন

► ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া

► গর্ভাবস্থায় কোনো জটিল রোগ, যেমন—ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ ইত্যাদি থাকা।

 

কিছু ভুল ধারণা

চন্দ্র-সূর্য গ্রহণ, গর্ভাবস্থায় মাছ, মাংস বা তরকারি কাটা, ঠোঁট কাটা ও তালু ফাটা রোগী দেখা, জিন-ভূতের আছর, মা-বাবার কর্মফল/চালচলন, তাবিজকবচ, কারো অভিশাপ ইত্যাদি কারণে ঠোঁট কাটা ও তালু ফাটা শিশু জন্মায় বলে বর্তমান সমাজে কিছু ভুল ধারণা প্রচলিত রয়েছে। এসবের আসলে কোনো বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই, যা কুসংস্কার।

 

জটিলতা

► ঠোঁট কাটা, তালু ফাটাসহ যেকোনো জন্মগত ত্রুটির সময়মতো চিকিৎসা না নিলে শারীরিক, মানসিক, সামাজিক, অর্থনৈতিকসহ নানা ধরনের সমস্যায় ভোগে শিশু ও তার পরিবার।

► সময়মতো চিকিৎসা না পেলে খেতে অসুবিধা, ঘন ঘন শ্বাসতন্ত্রে প্রদাহ, কান পাকা, নিউমোনিয়া, অপুষ্টিসহ বিভিন্ন শারীরিক অসুস্থতায় ভোগে, এমনকি অনেকে অকালে মারাও যায়। যারা বেঁচে থাকে তারা বড় হলে নানা শারীরিক ও সামাজিক সমস্যায় ভোগে।

► সমাজে আর দশটি শিশুর মতো না হওয়ায় এদের থাকে মানসিক পীড়া। তালু ফাটা রোগীদের কথা অন্যরা বুঝতে পারে না। ঠোঁট কাটা রোগীদের নাম ধরে না ডেকে ঠোঁট কাটা বলে ডাকে। এসব টিটকারীর কারণে তারা স্কুলে যেতে অনাগ্রহ দেখায়, কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হয় না, উপযুক্ত স্থানে বিয়েও হয় না। ফলে শুধু শিশুটি নিজে নয়, তার মা-বাবা, পরিবারও ভোগে নানা অশান্তিতে।

► শিশুর ঠোঁট কাটার কারণে মায়ের তালাক হচ্ছে প্রায়ই। আবার শিশুকে রেখে মাকে চলে যেতে দেখা গেছে অনেক ক্ষেত্রে।

► এ ধরনের শিশুর পরিবারে অনেকে আত্মীয়তা করতে চায় না। কারণ তারা মনে করে এটা অভিশপ্ত পরিবার। অনেক মা-বাবা আবার এ ধরনের শিশুকে নিয়ে সমাজের অন্তরালে চলে যান।

► ঠোঁট কাটা ও তালু ফাটা শুধু শারীরিক ও সামাজিক সমস্যা নয়, শিশু ও শিশুর পরিবার অর্থনৈতিক সমস্যায়ও ভোগে।

 

চিকিৎসা

সময়মতো অপারেশন করালে এবং ক্ষেত্রবিশেষে কথা বলার প্রশিক্ষণ দিলে এরা আর দশজনের মতো স্বাভাবিক জীবন যাপন করতে পারে এবং দেশের অর্থনীতিতে অবদান রাখতে পারবে। ভালো ফল পেতে হলে দীর্ঘমেয়াদি চিকিৎসা প্রয়োজন। এক বা একাধিক অপারেশনও লাগতে পারে। অপারেশন-পরবর্তী সময়ে কথা বলার প্রশিক্ষণ, দাঁতের চিকিৎসা ইত্যাদিরও প্রয়োজন হতে পারে। শারীরিকভাবে সুস্থ থাকলে তিন মাস বয়সের মধ্যে ঠোঁট, ৬-৯ মাস বয়সের মধ্যে তালু, চার-পাঁচ বছর বয়সে বিকৃত নাক, ছয়-সাত বছর বয়সে দাঁতের মাড়ির অপারেশন করানো যেতে পারে। প্রাইভেট ক্লিনিকে একেকবার অপারেশনে ৭০-৮০ হাজার টাকা বা তারও বেশি খরচ হয়।

 

কথা বলার প্রশিক্ষণ

অপারেশনের পর শিশুর কথা বলার ধরন পরীক্ষা করতে হবে। যত অল্প বয়সে সম্ভব কথা বলার সঠিক প্রশিক্ষণ দিলে শিশুরা বেড়ে ওঠার পাশাপাশি সুন্দরভাবে কথা বলতে পারবে। শিশুরা শব্দ তৈরি করা বা কথা বলা শুরু করলেই তা পর্যবেক্ষণ করতে হবে। তবে শিশুকে কথা বলার জন্য জোর করা যাবে না। এ জন্য পারিবারিক সহযোগিতা প্রয়োজন। শিশুটি সঠিক বা সঠিকের কাছাকাছি শব্দ উচ্চারণ করতে পারলে উৎসাহ দিতে হবে।

 

দাঁতের যত্ন নেওয়াও জরুরি

অপারেশন সফলভাবে করার পরও অনেক সময় শিশুর দাঁত এলোমেলোভাবে ওঠে। তাই সব দুধ দাঁত পড়ে নতুন দাঁত ওঠার পর তথা ১৪-১৫ বছর বয়সে দাঁতের চিকিৎসা করানো উচিত।

 

প্রতিরোধে করণীয়

চিকিৎসার চেয়ে প্রতিরোধব্যবস্থাই উত্তম। কিছু প্রতিরোধব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারলে জন্মগত ত্রুটি অনেকাংশেই কম হয়। যেমন—

► গর্ভাবস্থায় নিয়মিত ডাক্তারের পরামর্শে থাকা

► পুষ্টিকর খাবার গ্রহণ করা

► গর্ভাবস্থায় মায়ের মানসিক প্রশান্তি

► গর্ভাবস্থায় ফলিক এসিড, ভিটামিন ‘বি’ ইত্যাদি ভিটামিনজাতীয় খাবার গ্রহণ।

► তামাক, ধূমপান, মদ ইত্যাদি সম্পূর্ণ পরিহার

► নিকটাত্মীয়ের মধ্যে বিয়ে পরিহার

► বিয়ের আগে বা সন্তান ধারণের আগে ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া।

► অনেকেই জন্মগত হৃদরোগসহ নানা জটিল রোগ নিয়ে জন্ম নিতে পারে। তাই জন্মের পরপরই চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া।

► জন্মের পরপরই সব শিশুর মাথা, চোখ, নাক, কান, মুখগহ্বর, মলদ্বার, যৌনাঙ্গ পরীক্ষা করে দেখা উচিত। তালু ফাটা বাইরে থেকে দেখা যায় না, সে জন্য মুখগহ্বর দেখতে হয়।

 

শিশুকে বুকের দুধ খাওয়াতে করণীয়

► ঠোঁট কাটা ও তালু ফাটা অনেক শিশু ঠিকমতো মায়ের দুধ টানতে পারে না। তাদের মায়ের দুধ কোনো পরিষ্কার পাত্রে নিয়ে চামচ বা ড্রপার অথবা বড় ছিদ্রযুক্ত ফিডার দিয়ে খাওয়ানো যেতে পারে। তবে কোনোভাবেই শোয়ানো অবস্থায় খাওয়ানো যাবে না। অর্ধশোয়া, অর্ধবসা ভঙ্গিতে অথবা বসানো অবস্থায় খাওয়াতে হবে।

► খাওয়ানোর পর শিশুকে কাঁধে নিয়ে ঢেকুর তুলতে হবে।

► মায়ের দুধের পরিমাণ কম হলে প্রয়োজনে চিকিৎসকের পরামর্শে গরুর দুধ বা টিনের দুধ খাওয়াতে হবে। অনেক সময় লাগতে পারে, তাই ধৈর্য ধরে খাওয়াতে হবে। তাদের পুষ্টি সঠিক রাখতে হবে।

 

আছে স্মাইল ট্রেন

সামাজিক দায়বদ্ধতা ও মানবিকতার সেবায় জন্মগত ঠোঁট কাটা ও তালু ফাটা শিশুদের অপারেশন ও চিকিৎসাসেবায় এগিয়ে এসেছে বিশ্বের বড় দাতব্য সংগঠন www.smiletrain.org। বর্তমানে ‘স্মাইল ট্রেন’ ৮৭টি দেশে চিকিৎসা দিচ্ছে। বিশ্বে প্রতি পাঁচ মিনিটে একজন শিশু এই সংগঠন কর্তৃক চিকিৎসা পাচ্ছে। বাংলাদেশে ২০০৩ সাল থেকে কার্যক্রম শুরু করে এ পর্যন্ত ৫০ হাজারের বেশি জন্মগত ঠোঁট কাটা ও তালু ফাটা রোগীর অপারেশন সম্পন্ন করেছে সম্পূর্ণ বিনা মূল্যে। ঢাকার কেয়ার মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, চট্টগ্রামের ডেল্টা হেলথ কেয়ার, অন্যান্য সংস্থা ও ব্যক্তিগত মিলে আমার তত্ত্বাবধানে এ পর্যন্ত আট হাজারেরও বেশি অপারেশন সম্পন্ন হয়েছে।

মন্তব্য