kalerkantho

বুধবার । ২৮ শ্রাবণ ১৪২৭। ১২ আগস্ট ২০২০ । ২১ জিলহজ ১৪৪১

অ্যাজমা রোগীরা অধিক সতর্ক থাকুন

ডা. এস এম রওশন আলম, বিভাগীয় প্রধান, কমিউনিটি মেডিসিন বিভাগ, রংপুর মেডিক্যাল কলেজ

১১ জুলাই, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অ্যাজমা রোগীরা অধিক সতর্ক থাকুন

ফুসফুসের রোগ অ্যাজমা। আর করোনাভাইরাসের অন্যতম লক্ষ্যস্থল এই ফুসফুস। তাই অ্যাজমা অথবা সিওপিডি রোগীদের করোনাঝুঁকিও অন্যদের চেয়ে বেশি। এ জন্য তাদের অধিক সতর্ক থাকতে হবে।

 

ঝুঁকি কতটা?

যুক্তরাজ্যে উল্লেখযোগ্যসংখ্যক কভিড আক্রান্ত অ্যাজমা রোগী পাওয়া গেছে। অ্যাজমা রোগীরা কভিড আক্রান্ত হলে তাদের সবারই যে জটিলতা বাড়বে তা কিন্তু নয়। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ও সুরক্ষা ব্যবস্থার কারণে ব্যক্তি ও দেশভেদে ঝুঁকি আলাদা হতে পারে। তবে যাদের অ্যাজমার প্রকোপ বেশি তারা থাকে অধিকতর ঝুঁকিতে। কভিড আক্রান্ত অ্যাজমা রোগীদের মৃত্যুর হারও বেশি পৃথিবীব্যাপী।

 

অ্যাজমা রোগীর জন্য পরামর্শ

যাদের অ্যাজমা আছে অর্থাৎ যারা অ্যাজমার রোগী—এই সময়টাতে তাদের বিশেষ সতর্ক থাকতে হবে। তাদের জন্য কিছু পরামর্শ হলো :

♦ কেউ কভিডে আক্রান্ত হন বা না হন, এই সময় অ্যাজমার রোগীরা ঘরেই থাকবেন, যাকে বলে হোম কোয়ারেন্টিন। খুব বেশি জরুরি না হলে ঘরের বাইরে যাবেন না। দূষিত বায়ু সর্বদা এড়িয়ে চলুন।

♦ এখন সবাইকে মাস্ক ব্যবহারের পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। তবে কোনো কোনো অ্যাজমা রোগীর মাস্ক ব্যবহার পরিস্থিতিকে আরো জটিল করে তুলতে পারে। মাস্ক ব্যবহার করলে যাদের শ্বাস-প্রশ্বাসের সমস্যা হয়, তারা যেন না ব্যবহার করে।

♦ অ্যাজমার রোগীরা নিয়মিত চিকিৎসকের সঙ্গে যোগাযোগ রাখুন। যাঁরা ইনহেলার ব্যবহার করছেন তাঁরা চিকিৎসকের পরামর্শে তা অ্যাডজাস্ট করে নিন। অ্যাজমার অন্য ওষুধপথ্যও নিয়মিত সেবন করুন। 

♦ কভিড আক্রান্ত সাধারণ মানুষের চিকিৎসা বাসাবাড়িতে সম্ভব হলেও কভিড আক্রান্ত অ্যাজমা রোগীকে বাসাবাড়িতে রেখে চিকিৎসা দেওয়া অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ। তাই অ্যাজমা রোগীদের কেউ কভিডে আক্রান্ত হলে সঙ্গে সঙ্গে তাকে হাসপাতালে নিতে হবে। কডিভ ডেডিকেটেড, আইসিইউ ও ভেন্টিলেটর সাপোর্ট আছে এমন হাসপাতাল হলে ভালো হয়।

♦ ধূমপান বা ধোঁয়ার সংস্পর্শ একদম নয়।

♦ উদ্বেগ ও বিষণ্নতা অনেক অ্যাজমা রোগীর সঙ্গী। এটা মানসিক ভারসাম্যেও আঘাত হানতে পারে। তাই বিষণ্নতা এড়িয়ে সদা হাসিখুশি বা উত্ফুল্ল থাকার চেষ্টা করুন।

♦ যতটুকু পারুন সক্রিয় থাকুন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্বাস্থ্যের যত্ন নিন, সামাজিক যোগাযোগ রক্ষা করে চলুন।

♦ শ্বাসকষ্ট হলে বা অন্য কোনো সমস্যা অনুভব হলে নিকটস্থ কাউকে দ্রুত জানান।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা