kalerkantho

রবিবার । ২৮ আষাঢ় ১৪২৭। ১২ জুলাই ২০২০। ২০ জিলকদ ১৪৪১

আপনার প্রশ্ন বিশেষজ্ঞের পরামর্শ

কভিড-১৯ বিষয়ক বাছাই প্রশ্ন

পরামর্শ দিয়েছেন : অধ্যাপক ডা. এস এম মোস্তফা জামান
অধ্যাপক, হৃদরোগ বিভাগ
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়

২ জুন, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



কভিড-১৯ বিষয়ক বাছাই প্রশ্ন

সমস্যা : আমার বয়স ৫২ বছর, ওজন ৫৫ কেজি। গত মাসে জ্বরের সমস্যা থাকায় এজিথ্রোমাইসিন ফুল ডোজ খেয়েছিলাম। চলতি মাসে আবারও জ্বর, সর্দি, কাশি। প্যারাসিটামল খাচ্ছি। এখনো কি আমাকে অ্যান্টিবায়োটিক খেতে হবে?

 

সাজেদা বেগম, মিরপুর, ঢাকা।

পরামর্শ : এত ঘন ঘন অ্যান্টিবায়োটিক সেবন না করাই ভালো। এখন জ্বর, সর্দির জন্য প্যারাসিটামল ও অ্যান্টিহিস্টামিনজাতীয় ওষুধ খেতে থাকুন। কাশির জন্য সিরাপও খেতে পারেন। তবে এসব সমস্যায় ঘরোয়া পদ্ধতি ভালো কাজ দেয়। দীর্ঘদিন ধরে জ্বর না কমলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

 

সমস্যা : আমার বয়স ৪৮ বছর, ওজন ৫২ কেজি। আমি ১০-১২ বছর আগে বাইপাস সার্জারি করিয়েছিলাম। এখন ডায়াবেটিসসহ বিভিন্ন রোগে ভুগছি। চিকিৎসক বলেছেন হরহামেশা অ্যান্টিবায়োটিক না খেতে। তিন দিন ধরে জ্বর, সর্দি-কাশি। হিস্টাসিন ও প্যারাসিটামল খাচ্ছি। আমাকে কী ওষুধ খেতে হবে?

এম. হারুন-অর-রশিদ, তেঁতুলিয়া, পঞ্চগড়।

পরামর্শ : বাইপাস সার্জারি হলে হার্টের কিছু ওষুধ নিয়মিত খেতে হয়। পাশাপাশি ডায়াবেটিস থাকলে তারও ওষুধ সেবন করতে হবে। তবে জ্বর বা অন্যান্য উপসর্গের জন্য অ্যান্টিবায়োটিক খাওয়া যাবে না—এমন কোনো কথা নেই। এখন যেহেতু করোনাকাল, সেহেতু জ্বর বেশিদিন থাকলে কভিড-১৯ পরীক্ষাটি করিয়ে নেওয়া ভালো। পাশাপাশি প্যারাসিটামলসহ অন্যান্য ওষুধ খেতে থাকুন, গরম পানির ভাপ নিন, গার্গল করুন ইত্যাদি। আশা করি এতে ফল পাবেন।

 

সমস্যা : কিছুদিন আগে ঠাণ্ডা ও জ্বর ছিল। এখন জ্বর, ঠাণ্ডা নেই, তবে মাথা ভারী হয়ে থাকে। স্থানীয় ফার্মেসিতে যাওয়ার পর তারা Scabo 6 দিয়েছে। এটা নিয়ে দ্বিধায় আছি, খেলে কোনো সমস্যা হবে?

মাহমুদ আপেল, কালিতলা, দিনাজপুর।

পরামর্শ : আপাতত স্ক্যাবো বা আইভারমেকটিন খাওয়ার দরকার নেই। এই ওষুধ দিয়ে এখন কভিড-১৯-এ আক্রান্ত রোগীর চিকিৎসা হচ্ছে; যদিও এটা নিয়ে যথেষ্ট বিতর্ক আছে। মাথা ভারের জন্য আপনি নাপা এক্সট্রা বা প্যারাসিটামলজাতীয় অন্য কোনো ওষুধ খেতে পারেন। এর পাশাপাশি স্টিম বা গরম পানির ভাপ গ্রহণ করুন। অনেক সময় নাকে স্প্রে দিলেও নাক খুলে যায় এবং মাথার ভার ভার ভাব কমে যায়।

 

সমস্যা : আমার বয়স ৪২ বছর, ওজন ৭৮ কেজি। দুদিন ধরে ১০২-১০৩ ডিগ্রি জ্বর। এখনো Napa Extend দুটি করে খাচ্ছি তিন বেলা। আরো কি কিছু খেতে হবে?

মিজানুর রহমান, বেলকুচি, সিরাজগঞ্জ।

পরামর্শ : জ্বর ১০১ ডিগ্রি বা তার বেশি থাকলে আমরা প্যারাসিটামল খেতে বলি। কভিড-১৯ ছাড়া এই সময়টা ডেঙ্গুরও। এ ছাড়া ফুসফুস, প্রস্রাবেও ইনফেকশন থাকতে পারে। ভাইরাল ফিভার হলে অ্যান্টিবায়োটিকের কোনো ভূমিকা নেই। এর পরও অ্যান্টিবায়োটিক দেওয়া হয় ব্যাকটেরিয়াল সংক্রমণ প্রতিহত করার জন্য। জ্বর পাঁচ-ছয় দিন ধরে হলে কভিড-১৯ শনাক্তরণ, ইউরিন ইনফেকশনসহ আরো কিছু পরীক্ষা করা দরকার। তবে প্যারাসিটামল খাওয়ার পর জ্বর নিয়ন্ত্রণে চলে এলে এসবের দরকার নেই। জ্বর হলে গা মুছে দেওয়াসহ অন্য নিয়মগুলো মেনে চলুন।

 

সমস্যা : আমার বয়স ৩২ বছর, ওজন ৫৫ কেজি। চার দিন ধরে জ্বর। সঙ্গে হালকা কাশি। এক চিকিৎসকের পরামর্শে Fexo 120. Ace plus 500. Rozith 500 খাচ্ছি। এখন জ্বর কমে গেছে, কিন্তু গতকাল থেকে আমার স্বামীরও হঠাৎ ১০১-১০০ ডিগ্রি জ্বর উঠানামা করছে। এখন আমি তাঁকে কী ওষুধ খেতে দেব? তাঁর হার্টের সমস্যা আছে।

সামিয়া জেবিন, মধ্যবাড্ডা, ঢাকা।

পরামর্শ : হার্টের সমস্যা থাকলে এবং এই ওষুধ খেলে কোনো সমস্যা নেই। এটি কভিডের জন্যও কোনো চিকিৎসা না। Rozith হচ্ছে অ্যান্টিবায়োটিক, যা প্রস্রাবের ইনফেকশন, নিউমোনিয়া, টাইফয়েড ইত্যাদিতে কাজ করে। সুতরাং আপনার স্বামীকেও অন্যান্য ওষুধসহ সিঙ্গল ডোজ ওই অ্যান্টিবায়োটিক দিতে পারেন। পাশাপাশি অন্যান্য স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাড়িতেই আইসোলেশনে থাকুন, যাতে অন্যদের থেকে একটু দূরে থাকতে হয়।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা