kalerkantho

শুক্রবার । ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৫ জুন ২০২০। ১২ শাওয়াল ১৪৪১

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ান

দেহের ইমিউন সিস্টেম বা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ভালো থাকলে ভাইরাসসহ যেকোনো জীবাণুর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে টিকে থাকা যায়, শরীরকেও সুস্থ রাখা যায়। স্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস ও সঠিক জীবন যাপন পদ্ধতির মাধ্যমে এটা অর্জন করা যায়। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে আমরা কী করতে পারি তা জানাচ্ছেন রাড্ডা এমসিএইচ-এফপি সেন্টারের মা ও শিশু পুষ্টি বিশেষজ্ঞ সোনিয়া সুলতানা

১ এপ্রিল, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ান

ভিটামিন ‘সি’ যুক্ত ফল

প্রতিদিন আমলকী, লেবু, পেয়ারা, আমড়া, বরই, কমলা, মাল্টা ও জাম্বুরার মতো ভিটামিন ‘সি’যুক্ত ফল গ্রহণ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারে।

 

সবুজ শাকসবজি

পালংশাক, পুঁইশাক, ডাঁটাশাক, কচুশাক, শজিনাশাকে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন, খনিজ ও অ্যান্টি অক্সিডেন্ট, যা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে বাড়িয়ে দেয়।

এ ছাড়া করলা, ব্রকলি, ক্যাপসিকাম, লাউ, মিষ্টি কুমড়া, গাজর, ঢেঁড়স প্রভৃতি সবজি গ্রহণে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।

 

মসলা

আদা, গোলমরিচ, পেঁয়াজ ও রসুনে মতো মসলার মধ্যে কার্মিনেটিভ, অ্যান্টি মাইক্রোবায়াল, অ্যান্টিসেপটিক এবং অ্যান্টিবায়োটিক জাতীয় পদার্থ মজুদ রয়েছে।

 

আমিষ

ডিম, মাছ, ডাল, শিমের বিচি, কুমড়ার বিচি ও বাদামের মতো আমিষজাতীয় খাবারে রয়েছে বিভিন্ন উপকারী ভিটামিনস ও মিনারেলস। মাংসে থাকা কার্নোসিন রক্তকে পরিষ্কার করে এবং ফ্রি রেডিক্যাল ও যেকোনো ধরনের ইনফেকশন থেকে দেহ কোষগুলোকে রক্ষা করে।

 

প্রবায়োটিকস

টক দই, ঘোল, ছানা—এগুলো প্রবায়োটিকস হিসেবে পরিচিত, যা পাকস্থলীতে উপকারী ব্যাকটেরিয়ার সংখ্যা বৃদ্ধি করে।

 

পরিহার করুন

কোমল পানীয় বা কার্বোনেটেড ড্রিংক, অ্যালকোহল, বিড়ি, সিগারেট, তামাক প্রভৃতি থেকে দূরে থাকুন।

 

আরো কিছু উপায়

► একেবারে দুশ্চিন্তামুক্ত থাকুন। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। মনকে শান্ত রাখতে ধ্যান বা মেডিটেশন করুন।

► রোজ শরীরচর্চা করুন। এটা শুধু মন এবং শরীরকেই ইতিবাচকভাবে প্রভাবিত করে না, শরীরকে রোগের বিরুদ্ধে লড়াই করার উপযুক্ত হিসেবে গড়ে তোলে। এ সময় ঘরেই হালকা যোগব্যায়াম ও খোলা ছাদে জগিং করতে পারেন। এতে রক্ত সঞ্চালন ও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে।

► পর্যাপ্ত পরিমাণ নিরাপদ পানি পান করুন।

► প্রতিদিন আধা ঘণ্টা সূর্যের আলোয় থাকুন, এটি শরীরে ভিটামিন ‘ডি’ তৈরিতে সহায়তা করবে।

► আট ঘণ্টা টানা ঘুম ভীষণ জরুরি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা