kalerkantho

মঙ্গলবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১২ রবিউস সানি     

রোজকার ভুল

১০ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



রোজকার ভুল

কিডনি রোগ, চিকিৎসা ইত্যাদি নিয়ে কিছু ভ্রান্ত ধারণা রয়েছে মানুষের। এ রকম প্রচলিত কিছু ভুল ধারণার সুলুকসন্ধান করে পরামর্শ দিয়েছেন অ্যাডভান্সড সেন্টার অব কিডনি অ্যান্ড ইউরোলজির (আকু) চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. সোহরাব হোসেন সৌরভ

 

বেশি পানি খেলে কিডনি ভালো থাকে

অনেকের ধারণা, বেশি পানি খেলে কিডনি ভালো থাকে। প্রকৃতপক্ষে দিনে দু-তিন লিটার পানি বা তরলজাতীয় খাবার খেলেই যথেষ্ট। দেহের জন্য পানি পান করা খুব জরুরি; কিন্তু অবশ্যই তা মাত্রাতিরিক্ত নয়। অনেক সময় কিডনিতে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র পাথর বা স্টোন থাকলে, প্রস্রাবে ইনফেকশন থাকলে ওই সব রোগীকে পরিমাণে একটু বেশি পানি পান করার কথা বলা হয়। কিন্তু কিডনিতে জটিলতা তৈরি হলে তখন চিকিৎসকের পরামর্শে পানি পান করতে হবে। অতিরিক্ত পানি পান শ্বাসকষ্টের কারণসহ আরো নানা সমস্যা তৈরি করতে পারে। 

 

বিকল কিডনি রোগের চিকিৎসা হেমোডায়ালিসিস

কিবল কিডনি রোগের জন্য দেয়া হেমোডায়ালিসিস আসলে কিডনির কোনো চিকিৎসা নয়, এর মাধ্যমে কিডনি ভালোও হয়ে যায় না। কিডনি যখন পরিপূর্ণ বিকল হয়ে যায়, কিডনি তখন সঠিকভাবে কাজ করতে পারে না বিধায় শরীরে বর্জ্য পদার্থগুলো জমে যায়। ওই সময় রোগীকে হেমোডায়ালিসিস দেওয়ার কথা বলা হয়। এই ডায়ালিসিস হচ্ছে রক্ত পরিশোধনের একটি আধুনিকতম প্রক্রিয়া। যখন ডায়ালিসিস করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, তখন কিডনি সংযোজন ছাড়া অন্য কোনো বিকল্প থাকে না। কিডনি না বদলানো পর্যন্ত রোগী যত দিন বেঁচে থাকবে, তত দিন এই প্রক্রিয়ায় কিডনিকে সচল রাখতে হয়। ডায়ালিসিস একবার শুরু করে বন্ধ করে দেওয়া মানে মৃত্যুর প্রহর গোনা। তবে হঠাৎ কিডনি বিকল রোগীদের অনেক সময় সাময়িক ডায়ালিসিস লাগতে পারে। কিডনি সঠিকভাবে কাজ শুরু করার পর অনেক সময় তা আর লাগে না।

 

কেউ চাইলেই কিডনি দান করতে পারেন

এটিও ভুল ধারণা। ইচ্ছা করলেই একজন আরেকজনকে অঙ্গ দান করতে পারেন না। কিডনিদাতা ও গ্রহীতা উভয়ের রক্তের টিস্যু টাইপিংসহ আরো কিছু বিষয়ে যথেষ্ট মিল থাকতে হবে। দাতা বা উভয়ের হেপাটাইটিস বি এবং সি, এইচআইভি ইনফেকশন, শরীরে জীবাণুজনিত ইনফেকশন থাকা, উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিস বা কিডনিতে অন্য কোনো ধরনের অসুখ থাকলে হবে না। ১৪ জন নিকটাত্মীয় কিডনি দিতে পারবেন। যিনি কিডনি দান করবেন, তাঁকে অবশ্যই স্বেচ্ছায় দান করতে হবে। মানবদেহে অঙ্গসংযোজন আইনে বলা আছে, কিডনিদাতার ওপর কোনো ধরনের চাপ প্রয়োগ, কিডনি বিক্রিতে প্রলুব্ধ করা, পত্রিকায়, টেলিভিশনে বা অন্য কোন মিডিয়ায় এ সংক্রান্ত বিজ্ঞাপন দেওয়াও শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা