kalerkantho

মঙ্গলবার। ১৬ জুলাই ২০১৯। ১ শ্রাবণ ১৪২৬। ১২ জিলকদ ১৪৪০

বঙ্গবন্ধু মেডিক্যালে প্রথম লিভার প্রতিস্থাপন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৬ জুন, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বঙ্গবন্ধু মেডিক্যালে প্রথম লিভার প্রতিস্থাপন

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে প্রথমবারের মতো এক রোগীর লিভার প্রতিস্থাপন করা হয়েছে। ২০ বছর বয়সের ওই রোগীকে তাঁর মা নিজের লিভারের অংশবিশেষ দিয়েছেন। তাঁরা দুজনেই ভালো আছেন। এটি নিয়ে দেশে মোট পাঁচজনের লিভার প্রতিস্থাপন করা হয়। অন্য চারজনের লিভার প্রতিস্থাপন হয়েছিল অন্য দুটি বেসরকারি হাসপাতালে। গতকাল মঙ্গলবার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়। এ সময় এ বিশ্ববিদ্যালয়ের এই লিভার প্রতিস্থাপনের ঘটনাকে হেপাটোবিলিয়ারি, প্যানক্রিয়েটিক ও লিভার ট্রান্সপ্লান্ট সার্জারি বিভাগে চিকিৎসাসেবার ঐতিহাসিক সাফল্য বলে অভিহিত করা হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক, স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব মো. আসাদুল ইসলাম, বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ) সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন বক্তব্য দেন। তবে মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া এবং হেপাটোবিলিয়ারি, প্যানক্রিয়েটিক ও লিভার ট্রান্সপ্লান্ট সার্জারি বিভগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মো. জুলফিকার রহমান খান।

সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, দেশে চিকিৎসা খাতে যে অগ্রগতি সাধিত হচ্ছে তার সঙ্গে আরেকটি মাইলফলক যুক্ত হয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথমবারের মতো এক রোগীর লিভার প্রতিস্থাপনের ঘটনায়। এখন এই বিশ্ববিদ্যালয়ের এই চিকিৎসাকে আরো সহজতর ও কার্যকর করতে প্রয়োজনীয় সব সহযোগিতা সরকারের তরফ থেকে দেওয়া হবে। প্রধানমন্ত্রী নিজেও এই রোগীর চিকিৎসার বিষয়ে খোঁজখবর নিয়েছেন এবং নিচ্ছেন। 

মন্ত্রী বলেন, ‘বছরে দেশের প্রায় ৫০০ মানুষ লিভার প্রতিস্থাপনের জন্য দেশের বাইরে গিয়ে কোটি কোটি টাকা খরচ করছে। এখন আমরা দেশেই এই চিকিৎসা সফল করতে পারলে মানুষ খুবই উপকৃত হবে, খরচ অনেক কম লাগবে। যেমনটা আরো কয়েকটি চিকিৎসার ক্ষেত্রেই ঘটছে।’

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, গত সোমবার প্রায় ১৬ ঘণ্টা সময় ধরে ওই রোগীর লিভার প্রতিস্থাপন সম্পন্ন করা হয়েছে। মোট ৬০ জন চিকিৎসক ও অন্যান্য বিশেষজ্ঞের একটি সমন্বিত টিম এই কাজে অংশ নিয়েছে। রোগীর দেহে এ সময় ২০ ব্যাগ রক্ত লেগেছে, যার সবই দিয়েছেন এই বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসকরা। একই সঙ্গে জানানো হয়, এই রোগীর লিভার প্রতিস্থাপনের সময় প্রয়োজনীয় সব সাপোর্ট এই ইউনিটে ছিল না, ফলে বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যান্য ইউনিটের সহায়তা নিয়ে এই কাজ করা হয়েছে। আগামী মাসে আরো দুই রোগীর লিভার প্রতিস্থাপনের পরিকল্পনা রয়েছে।

 

মন্তব্য