kalerkantho

মঙ্গলবার  । ২০ শ্রাবণ ১৪২৭। ৪ আগস্ট  ২০২০। ১৩ জিলহজ ১৪৪১

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনরোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন

অনারারি কনসাল জেনারেলদেরও ভূমিকা চায় ঢাকা

কূটনৈতিক প্রতিবেদক   

১২ জুন, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়ায় বাংলাদেশে কর্মরত বিভিন্ন দেশের অনারারি কনসাল জেনারেল এবং বিদেশে বাংলাদেশের অনারারি কনসাল জেনারেলদের ভূমিকা চায় সরকার। পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন সম্প্রতি এ বিষয়ে তাঁদের চিঠি পাঠিয়েছেন। ওই চিঠিতে তিনি রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়ায় বিভিন্ন দেশের সরকার ও নাগরিক সমাজকে ভূমিকা রাখতে উদ্বুদ্ধ করার অনুরোধ জানিয়েছেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী তাঁর চিঠিতে অনারারি কনসাল জেনারেলদের বলেছেন যে মিয়ানমার থেকে জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত বিশাল রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর বোঝা বাংলাদেশ অনির্দিষ্টকাল ধরে বহন করতে সক্ষম নয়। যুগ যুগ ধরে মৌলিক অধিকার বঞ্চিত ও দুর্দশাগ্রস্ত এ জনগোষ্ঠীর অবস্থান এ দেশে দীর্ঘায়িত হলে এ অঞ্চলের নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা হুমকির মুখে পড়তে পারে।

ড. মোমেন লিখেছেন, রোহিঙ্গা সমস্যার স্থায়ী সমাধানের উদ্দেশ্যে বাংলাদেশ মিয়ানমারের সঙ্গে তিনটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছে। বাংলাদেশ ১৯৭৮ ও ১৯৯২ সালের মতো মিয়ানমারের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয়ভাবে এ সমস্যা সমাধানে আন্তরিকভাবে চেষ্টা করছে। মন্ত্রী আরো লিখেছেন, দ্বিপক্ষীয় চুক্তি অনুযায়ী নিরাপদ, সম্মানজনক ও স্বেচ্ছায় প্রত্যাবাসনের জন্য রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গাদের জন্য দৃশ্যমান সহায়ক পরিবেশ সৃষ্টিতে মিয়ানমারের ব্যর্থতা ও চরম অনাগ্রহের কারণে এখনো রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর স্বদেশে প্রত্যাবর্তন শুরু অনিশ্চয়তার মধ্যেই আছে। এ বিষয়ে বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সক্রিয় ভূমিকা প্রত্যাশা করে।

অনেক চ্যালেঞ্জ ও প্রতিবন্ধকতা সত্ত্বেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মানবিক দিক বিবেচনায় এই অসহায় লোকদের অস্থায়ী আশ্রয় দেওয়ার মতো অত্যন্ত সাহসী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন বলেও মন্ত্রী তাঁর চিঠিতে উল্লেখ করেন।

মন্তব্য