kalerkantho

বুধবার । ১৭ জুলাই ২০১৯। ২ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৩ জিলকদ ১৪৪০

কালের কণ্ঠে প্রতিবেদন

সাততলা বস্তির নর্দমা পরিষ্কারে নামল ডিএনসিসি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১২ জুন, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মহাখালীর সাততলা বস্তির নর্দমা পরিষ্কারের কাজ শুরু করেছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি)। গতকাল মঙ্গলবার সংস্থাটির বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের এক নির্বাহী প্রকৌশলীর নেতৃত্বে নর্দমা পরিষ্কারের কাজে নেমেছে ১৫ জন শ্রমিক। গত সোমবার ‘সাততলা বস্তির নর্দমা পরিষ্কার করবে কে?’ শিরোনামে কালের কণ্ঠে প্রতিবেদন প্রকাশের পর ডিএনসিসি মেয়র আতিকুল ইসলাম নর্দমা পরিষ্কারের উদ্যোগ নেন।

ডিএনসিসি জানায়, বস্তি এলাকায় নর্দমা তৈরি ও নির্মাণের নজির ছিল না সিটি করপোরেশনের। সাততলা বস্তির বাসিন্দারা একটি বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থার সহযোগিতায় নর্দমা তৈরি করে। নর্দমা পরিষ্কারের জন্য কোনো বরাদ্দ না থাকায় নর্দমায় বর্জ্য আটকে মারাত্মক জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। এ কারণে ঠিকমতো ঈদ উদ্‌যাপন করতে পারেনি বস্তিবাসী। এ ছাড়া পয়োবর্জ্যের দুর্গন্ধে অসুস্থ হয়ে পড়ে অনেক বস্তিবাসী। এ ব্যাপারে কালের কণ্ঠে একটি সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশিত হলে বিষয়টি দৃষ্টিগোচর হয় ডিএনসিসি মেয়রের। দ্রুততম সময়ের মধ্যে সাততলা বস্তির নর্দমা পরিষ্কার করে জলাবদ্ধতা থেকে রক্ষা করতে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগকে নির্দেশ দেন তিনি। মেয়রের নির্দেশে প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা এয়ার কমোডর মো. মঞ্জুর হোসেন গতকাল মঙ্গলবার সাততলা বস্তির নর্দমা পরিষ্কারের জন্য ১৫ জন শ্রমিক এবং একটি ট্রাক পাঠান।

সাততলা বস্তির বাসিন্দা ওমর ফারুক কেরু বলেন, ‘বস্তির নর্দমা এত দিন সিটি করপোরেশন পরিষ্কার করত না। পত্রিকায় প্রতিবেদন প্রকাশের পর মঙ্গলবার শ্রমিক দিয়ে সাততলা বস্তির নর্দমা পরিষ্কারের কাজ শুরু করা হয়েছে। আমরা সিটি করপোরেশনের প্রতি কৃতজ্ঞ।’

ডিএনসিসি মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘বস্তি এলাকার অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ ও অপরিষ্কার নর্দমার ব্যাপারে কালের কণ্ঠের মাধ্যমে জেনেছি। এভাবেই গণমাধ্যমগুলো তথ্য দিয়ে আমাকে কাজ করতে উৎসাহিত করছে। সাততলা বস্তির নর্দমা পরিষ্কারের কাজ শুরু হয়েছে।’

মন্তব্য