kalerkantho

মঙ্গলবার। ২০ আগস্ট ২০১৯। ৫ ভাদ্র ১৪২৬। ১৮ জিলহজ ১৪৪০

মিলেছে বেতন-বোনাস

স্বস্তি নিয়ে বাড়ির পথে পোশাক শ্রমিকরা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৪ জুন, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



স্বস্তি নিয়ে বাড়ির পথে পোশাক শ্রমিকরা

শতভাগ উৎসব ভাতা ও মে মাসের মজুরি পেয়ে আপনজনদের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করে নিতে রাজধানী থেকে বাড়ির পথে রওনা হতে শুরু করেছে পোশাক শ্রমিকরা। দেশের শীর্ষ রপ্তানি আয়ের এ খাতের শ্রমিকদের জন্য এবার বাড়তি সুবিধা যোগ করেছে বাংলাদেশ তৈরি পোশাক প্রস্তুতকারক ও রপ্তানিকারক সংগঠনের (বিজিএমইএ) যাতায়াতব্যবস্থা। তবে অল্প কিছু শ্রমিক সংকট এড়াতে পারেনি।

এবার পোশাক শ্রমিকদের বাড়ি ফেরার সুবিধার্থে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশনের (বিআরটিসি) বাস রিজার্ভ করা হয়েছে। রাজধানীর বিভিন্ন স্থান থেকে এসব বাস শুধু পোশাক শ্রমিকদের নিয়ে গন্তব্যে যাবে। শ্রমিকদের সরকারের নির্ধারিত ভাড়া পরিশোধ করতে হবে। গতকাল সোমবার বিজিএমইএ, শিল্প পুলিশ ও পোশাক শ্রমিকদের সংগঠনগুলো থেকে এসব তথ্য নিশ্চিত হওয়া গেছে।

বিজিএমইএ সভাপতি ড. রুবানা হক বলেন, ‘বিজিএমইএ সদস্য এমন কারখানার মধ্যে শতভাগ কারখানার উৎসব ভাতা গতকাল দিয়ে দেওয়া হয়েছে।’ যেসব কারখানা মে মাসের মজুরি দিতে পারেনি ওই সব কারখানা ঈদের ছুটির আগে শেষ কর্মদিবসে মে মাসের মজুরি পরিশোধ করছে বলে জানান তিনি। তবে কিছু কারখানা মে মাসের ২০ দিনের মজুরি দিয়েছে। শ্রমিকদের যাতায়াতব্যবস্থার ব্যাপারে বিজিএমইএ সভাপতি বলেন, ‘এবার প্রথমবারের মত অর্ধশতাধিকের বেশি বিআরটিসির বাস পোশাক খাতের শ্রমিকদের দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে নিয়ে যাবে। এ ছাড়া বাদামতলী ও সদরঘাট থেকে বিজিএমইএর পক্ষে লঞ্চের ব্যবস্থা করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবারও একই সময়ে একই স্থান থেকে লঞ্চ ছেড়ে যাবে।’

শিল্প পুলিশের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক আবদুস সালাম জানান, গতকাল পর্যন্ত দেশের পোশাক খাতের প্রায় সব কারখানায় উৎসব বোনাস এবং মে মাসের মজুরি দেওয়া হয়েছে। দুয়েকটি কারখানায় সমস্যা হতে পারে। বাংলাদেশে পোশাক শিল্প শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি তৌহিদুর রহমান বলেন, ‘পোশাক খাতের শ্রমিকদের ঈদ বোনাস ও মে মাসের মজুরি প্রায় ৯০ শতাংশ কারখানার মালিকরা দিয়ে দিয়েছেন।’

বিজিএমইএ জনসংযোগ বিভাগ জানায়, মতিঝিল থেকে ১৮টি, গাজীপুর থেকে ২৮টি, গাবতলী থেকে ছয়টি ও জোয়ারসাহারা থেকে ১৪টি বিআরটিসির বাস পোশাক শ্রমিকদের নিয়ে রওনা হবে। এ ছাড়া মিরপুরের শ্রমিকদের জন্য নির্ধারিত ১০টি বাস ছেড়ে যাবে গাজীপুর চৌরাস্তা থেকে। ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সাধারণ সম্পাদক জলি তালুকদার জানান, শেষ মুহূর্তে মজুরি পাওয়া শ্রমিকরা বেশ বেকায়দায় পড়েছে। কোনো কোনো মালিক মে মাসের মজুরির নামে নামমাত্র মজুরি দিয়ে কর্মীদের বিদায় করেছেন। ফলে প্রয়োজনীয় মজুরি না পাওয়ায় তারা শেষ মুহূর্তে ভীষণ অস্থিরতায় পড়েছে।

মন্তব্য