kalerkantho

সোমবার। ১৭ জুন ২০১৯। ৩ আষাঢ় ১৪২৬। ১৩ শাওয়াল ১৪৪০

তিন রেস্টুরেন্টকে জরিমানা

পাউরুটিতে ছত্রাক, পচা-বাসি রং মেশানো খাবার

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৪ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



পাউরুটিতে ছত্রাক, পচা-বাসি রং মেশানো খাবার

রাজধানীর বাবুবাজার এলাকায় গতকাল দিনভর র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত নির্বাহী হাকিম সারওয়ার আলমের নেতৃত্বে বিভিন্ন ফার্মেসিতে অভিযান চালান। ছবি : কালের কণ্ঠ

মেয়াদ উত্তীর্ণ পাউরুটিতে জমেছে ছত্রাক। আর তা দিয়েই তৈরি হচ্ছিল জালি কাবাব। প্লাস্টিকের বালতিতে হালিম সংরক্ষণ করা হচ্ছে কিচেনে, সেখানে নোংরা আবর্জনার মাঝে ঘুরছে মাছি। ভোক্তাদের সঙ্গে এ রকম অনাচারের অভিযোগে ধানমণ্ডির ক্রিমসনকাপ কফি হাউস, হাক্কা ঢাকা ও মোহাম্মদপুরের নাহার হোটেল অ্যান্ড রেস্টুরেন্টকে জরিমানা করেছেন পুলিশের ভ্রাম্যমাণ আদালত। নোংরা পরিবেশ, পচা-বাসি ও রং মিশ্রিত খাবার বিক্রির অভিযোগে তিন প্রতিষ্ঠানকে দুই লাখ ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

মোহাম্মদপুরে কৃষি মার্কেটসংলগ্ন নাহার হোটেল অ্যান্ড রেস্টুরেন্ট রমজান মাসে ব্যাপক ব্যস্ত। ইফতারসামগ্রীর পাশাপাশি অন্যান্য খাবারের বিস্তর আয়োজন। সরু গলির মুখে হোটেলটিতে ক্রেতাদের থাকে বেজায় ভিড়। গতকাল বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে এ ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানকে এক লাখ টাকা জরিমানা করেছেন। পচা-বাসি খাবার বিক্রি ও নোংরা পরিবেশের কারণে এ জরিমানা করা হয়। নাহার হোটেলের নোংরা মেঝে, মাছি ঘুরছে চারদিকে। ফ্রিজে পচা-বাসি খাবার। এমনকি জব্দ করা পাউরুটিতে দেখা যায় ছত্রাক। তা দিয়ে ইফতারের জালি কাবাব তৈরি করা হয় বলে জানান স্টাফরা। ভ্রাম্যমাণ আদালত পচা-বাসি খাবার রাখা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার প্রস্তুতের অভিযোগে এ রেস্টুরেন্টকে জরিমানা করেন।

ডিএমপির নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল্লাহ আল মামুনের নেতৃত্বে গতকাল দুপুরে একটি টিম পৌঁছে ধানমণ্ডি এলাকায়। ডিবি ও ক্রাইম বিভাগের সমন্বয়ে গঠিত পুলিশের টিমটি আকস্মিক ক্রিমসনকাপ কফি হাউসে ঢুকে পরিবেশ পর্যবেক্ষণ করতে থাকে। ম্যানেজারসহ স্টাফরা রেস্টুরেন্টটির কিচেন ছাড়া সব কিছু দেখাতে থাকেন। ম্যাজিস্ট্রেট রান্নাঘরে ঢুকে দেখতে পান নোংরা পরিবেশ। এক কর্নারে থালাবাসন পরিষ্কার করা হয় বেসিনে। সেখানে আবর্জনা ও পরিত্যক্ত খাবার ছড়ানো-ছিটানো। বিভিন্ন খাবারে বিস্তর রং ব্যবহারের আলামত দেখা যায়। ইফতার আয়োজনের উপাদান পাউরুটি দেখা যায় মেয়াদ উত্তীর্ণ। একই এলাকার হাক্কা ঢাকা নামের প্রতিষ্ঠানে পাওয়া যায় নোংরা পরিবেশ। ম্যাজিস্ট্রেট ক্রিমসনকাপ কফি হাউসকে এক লাখ টাকা ও হাক্কা ঢাকাকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, ‘রেস্টুরেন্টগুলো ক্রেতাদের ধোঁকা দিতে বাইরের পরিবেশে চাকচিক্য আনছে। কিন্তু যে খাবারের জন্য ক্রেতারা সেখানে ভিড় করছে তা প্রস্তুত হচ্ছে অস্বাস্থ্যকর উপায়ে। রান্নাঘরগুলো ভীষণ অপরিষ্কার। পচা-বাসি খাবার পরিবেশন করা হয় কৌশলে।’

ভেজাল খাদ্য প্রতিরোধে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান পরিচালনা করছেন। রমজান মাসে অভিযান জোরদার করা হয়েছে। প্রতিদিন বিভিন্ন হোটেল ও রেস্টুরেন্টে হানা দিচ্ছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

মন্তব্য