kalerkantho

মঙ্গলবার । ২১ মে ২০১৯। ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৫ রমজান ১৪৪০

তুরাগতীরে অভিযান

টঙ্গীর বহুতল বিপণিসহ বহু স্থাপনা উচ্ছেদ

রেল সেতুর কাজ বন্ধ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৫ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



টঙ্গীর বহুতল বিপণিসহ বহু স্থাপনা উচ্ছেদ

দখলমুক্ত করতে গতকাল টঙ্গীর তুরাগতীরে চলে উচ্ছেদ অভিযান। ছবি : কালের কণ্ঠ

নদীতীর দখলমুক্ত করার অব্যাহত অভিযানে গতকাল বুধবার টঙ্গীর তুরাগতীরে দুটি মার্কেটসহ অর্ধশতাধিক স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। তৃতীয় পর্যায়ের এ অভিযানে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয় একটি কাঁচাবাজারও। নিলামে বিক্রি করা হয় বাজারে জব্দ করা প্রায় দুই লাখ টাকার মাছ। বন্ধ করে দেওয়া হয় অনুমোদন ছাড়া নির্মাণ করা টঙ্গী রেল সেতুর কাজ। বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডাব্লিউটিএ) গতকাল দিনভর এ অভিযান পরিচালনা করে।

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের টঙ্গী ব্রিজের পাশেই তুরাগের তীর দখল করে গড়ে উঠেছিল দুটি বহুতল মার্কেট। আশপাশে কাঁচাবাজারসহ বহু অবৈধ স্থাপনা। আগের দিন টঙ্গী বাজার মসজিদ মার্কেটের একাংশ ভাঙা হয়েছিল। গতকাল ৩২তম দিনের অভিযানে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয় বাকি অংশ। উচ্ছেদ করা হয় টঙ্গী কাঁচাবাজারসহ ছোট-বড় অর্ধশতাধিক বাণিজ্যিক স্থাপনা। টঙ্গীর তুরাগতীর ঘেঁষে দখল করা জায়গায় শতাধিক কাঁচা-পাকা দোকান ও বহুতল মার্কেট গড়ে তুলেছিল স্থানীয় দখলদারচক্র। অভিযানকালে তারা উধাও হয়ে গেলেও মানবিক দাবি নিয়ে উপস্থিত হয় ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা। দোকানিরা জানায়, কয়েক লাখ টাকা অগ্রিম নিয়ে দোকান ভাড়া দেওয়া হয়েছে। মালিক সমিতির নামে তখন দখলদাররা মার্কেট নিজেদের বলে দাবি করে। কিন্তু উচ্ছেদের সময় আর তারা দায় নিচ্ছে না। তারা টাকার বিনিময়ে দোকানের দখল বুঝিয়ে দিয়েছে, এখন আর কিছু করতে পারবে না বলে জানাচ্ছে। এ অবস্থায় অনেককে ব্যবসা ছেড়ে পথে বসতে হবে। অভিযান-সংশ্লিষ্টরা জানান, নদীতীর দখলমুক্ত করতে অভিযান চলছে। এখানে কারা, কবে দখল করেছে, এখন কারা ভোগ করছে এসব বিষয় বিবেচনায় আনা হচ্ছে না। আগে নদীতীর দখলমুক্ত করা হবে, পরে নেওয়া হবে আইনি পদক্ষেপ। মানবিকতা দেখাতে গেলে মূল উদ্দেশ্য ব্যাহত হবে।

এদিকে তুরাগের বিস্তর অংশ ভরাট করে ঢাকা-টঙ্গী-জয়দেবপুর রেল প্রকল্পের অধীনে সেতুর কাজ চলছে। সেখানে ময়লা-আবর্জনা ফেলে রীতিমতো ভাগাড়ে পরিণত করা হয়েছে। পাশেই বসেছে বাজার। প্রকল্পের মালপত্র রাখা হয়েছে নদীর জায়গায়। নদীর নাব্যতায় বাধা সৃষ্টি ও বিআইডাব্লিউটিএর অনুমোদন ছাড়া নির্মাণকাজ করায় এ সেতুর কাজ বন্ধের নির্দেশ দেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এর আগে আরেকটি সেতুর কাজ বন্ধ করা হয় অভিযানে।

মন্তব্য