kalerkantho

রবিবার । ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১০ রবিউস সানি ১৪৪১     

মালয়েশিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনা

পাঁচ বাংলাদেশির লাশ দেশে পৌঁছেছে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৩ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মালয়েশিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত পাঁচ বাংলাদেশির লাশ দেশে পৌঁছেছে। মালয়েশিয়া এয়ারলাইনসের একটি ফ্লাইটে গতকাল শুক্রবার রাত পৌনে ১টার দিকে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পাঁচজনের লাশ পৌঁছায়।

যাঁদের লাশ দেশে আনা হয়েছে তাঁরা হলেন চাঁদপুরের হাজিগঞ্জ উপজেলার দেবপুর ৪ নম্বর ওয়ার্ডের আনোয়ারের ছেলে সোহেল (২৪), একই জেলার ফরিদগঞ্জ উপজেলার চরভাগল ৩ নম্বর ওয়ার্ডের আমির হোসেনের ছেলে আলামিন (২৫), কুমিল্লার লাকসাম উপজেলার দুরলবপুর গ্রামের তাজুল ইসলামের ছেলে মহিন (৩৭), একই জেলার দাউদকান্দি উপজেলার হাসানপুর কলেজপাড়ার ঢাকাগাঁও গ্রামের ইউনুস মুন্সির ছেলে রাজিব মুন্সি (২৭) ও নোয়াখালীর চাটখিল থানার নোয়াখোলা ২ নম্বর ওয়ার্ডের নুর মোহাম্মদের ছেলে গোলাম মোস্তফা।

গত রবিবার রাত ১১টা ১০ মিনিটে এ দুর্ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনায় গাড়িচালকসহ ১০ জন নিহত হন। বাসটিতে মোট ৪৩ যাত্রী ছিলেন। এর মধ্যে পাঁচজন বাংলাদেশি প্রবাসী মারা যান।

স্বজনদের অপেক্ষা

লাশ দেশে আসার খবর পেয়ে বিমানবন্দরে হাজির হন স্বজনরা। রাজিব মুন্সীর লাশ নিতে এসেছেন মা কোহিনুর বেগম ও চাচাতো ভাই সাইদুল হাসান ইকবাল। সাইদুল হাসান ইকবাল বলেন, ‘ছেলের মৃত্যুর কথা শোনার পর থেকেই পাগলের মতো হয়ে গেছেন রাজিবের মা। ছেলের লাশ বুঝে নিতে তিনিও বিমানবন্দরে চলে এসেছেন। ছেলেটিই ছিল কোহিনুর বেগমের একমাত্র অবলম্বন।’

মহিনের লাশ নিতে এসেছেন বাবা তাজুল ইসলাম ও চাচা আমিনুল ইসলাম। সবাই সন্ধ্যার পর থেকে লাশের জন্য অপেক্ষায় থাকেন। তাজুল ইসলাম কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, ‘ছেলেকে বিদেশে পাঠিয়েছিলাম নিজের সুখের জন্য, কিন্তু এখন আসতেছে ছেলের লাশ। বুকটাকে কোনোভাবেই বুঝাইতে পারছি না।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা