kalerkantho

রবিবার । ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১০ রবিউস সানি ১৪৪১     

কেরানীগঞ্জের ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার

মহিলা ইউনিট এখনো বুঝে পায়নি কর্তৃপক্ষ

খালেদা জিয়াকে সেখানে সরিয়ে সংস্কারকাজ শুরু হচ্ছে পুরনো কারাগারে

ওমর ফারুক   

১৩ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া সুস্থ হয়ে উঠলে তাঁকে কেরানীগঞ্জে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের মহিলা ইউনিটে নিয়ে যাওয়ার চিন্তাভাবনা করছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। তবে গতকাল পর্যন্ত এই ইউনিট কারা কর্তৃপক্ষকে বুঝিয়ে দেয়নি দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠান পিডাব্লিউডি কর্তৃপক্ষ। বাকি থাকা বিদ্যুৎ সরবরাহ ব্যবস্থার কাজ সম্পন্ন হওয়ার পর এটি বুঝিয়ে দেওয়া হবে বলে জানা গেছে। এরপর পুরনো ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে কাশিমপুর মহিলা কারাগারে নিয়ে যাওয়া নারী বন্দিদের নতুন কারাগারে স্থানান্তর করা হবে।

জানা গেছে, পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারের স্থানটিতে বিনোদন পার্কসহ নানা স্থাপনা নির্মাণ করতে যাচ্ছে সরকার। এখানেই বন্দি রয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। এ জন্য নিরাপত্তার স্বার্থে কাজ শুরু করা যায়নি। খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য গত ১ এপ্রিল বিএসএমএমইউ হাসপাতালে আনা হয়েছে। বর্তমানে তিনি সেখানে ভর্তি রয়েছেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল কয়েক দিন আগে সাংবাদিকদের জানান, খালেদা জিয়াকে কেরানীগঞ্জে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হবে।

পুরান ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের প্রায় ৩৬ দশমিক ২১ একর জমি নিয়ে একটি প্রকল্প হাতে নিয়েছে সরকার। সেখানে থাকছে বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতার কারা স্মৃতি জাদুঘর। নির্মাণ করা হবে বিশাল পার্ক। বাকি জায়গায় হবে কারা প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট ও কনভেনশন সেন্টার। কারা সদস্যদের জন্য আবাসনের ব্যবস্থাও থাকবে। করা হবে ডিজিটাল মঞ্চ, সুইমিংপুল ও সিনেপ্লেক্স। থাকবে অ্যাকুয়েস্টিক সাউন্ড সিস্টেম ও ফুডকোর্ট। তবে কারাগারের যে কক্ষগুলোতে বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতাকে রাখা হয়েছিল, সেগুলো সংরক্ষিত থাকবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে অতিরিক্ত আইজি প্রিজন্স কর্নেল ইকবাল হাসান কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘পুরনো কারাগারের স্থানে শিগগিরই কাজ শুরু হবে। প্ল্যানিং থেকে শুরু করে বিভিন্ন কাজ অনেক আগেই শুরু হয়েছে। এখন জমির ওপর কাজ শুরু হবে।’

কারা সূত্র জানায়, কেরানীগঞ্জের ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে প্রথমে পুরুষ বন্দিদের জন্য ভবন তৈরি করা হয়। মহিলা ইউনিটে ভবন নির্মাণকাজ শুরু হয় অনেক পর। ফলে পুরনো কারাগার থেকে পুরুষ বন্দিদের কেরানীগঞ্জে সরিয়ে নেওয়া সম্ভব হলেও নারীদের সেখানে সরিয়ে নেওয়া যায়নি। তখন ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের নারী বন্দিদের পাঠিয়ে দেওয়া হয় কাশিমপুর মহিলা কারাগারে।

কেরানীগঞ্জের ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের মহিলা ইউনিটের কাজ প্রায় শেষ। বাকি কাজটুকু সম্পন্ন হওয়ার পর পিডাব্লিউডি হস্তান্তর করলেই নারী বন্দিদের সেখানে স্থানান্তর করা শুরু হবে। এখানে মহিলা কারাগারে একটি তিনতলা, একটি চারতলা ও একটি দোতলা ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। তিনতলা ভবনটিতে রাখা হবে ডিভিশনপ্রাপ্ত বন্দিদের। এই ভবনে ভিআইপি সেলে খালেদা জিয়াকে রাখার বিষয়ে ভাবছে কারা কর্তৃপক্ষ।

কেরানীগঞ্জ কারাগারের মহিলা ইউনিটে চারতলার ভবনটিতে সাধারণ নারী বন্দিদের রাখা হবে। এখানে তিনতলার একটি হাসপাতাল ভবনও নির্মাণ করা হয়েছে, যেখানে শুধু নারী বন্দিরাই চিকিৎসা নিতে পারবে। একটি কিশোরী সেলও রয়েছে এই কারাগারে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা