kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৫ অক্টোবর ২০১৯। ৩০ আশ্বিন ১৪২৬। ১৫ সফর ১৪৪১       

নজরুল হত্যা মামলা

দোহারের ১৫ জনের ফাঁসি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২১ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দোহারের ১৫ জনের ফাঁসি

ঢাকার দোহারের নজরুল ইসলামকে হত্যার দায়ে ১৫ জনকে মৃত্যুদণ্ড ও দুইজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। গতকাল বুধবার ঢাকার প্রথম অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ প্রদীপ কুমার রায় এ রায় দেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন সিরাজ ওরফে সেরু কারিগর, মিনহাজ ওরফে মিনু, খলিল কারিগর, শাহজাহান, দিদার, এরশাদ, কালু ওরফে কুটি, আজাহার কারিগর, মিয়াজ উদ্দিন, মোজাম্মেল ওরফে সুজা, আ. জলিল, জালাল, বিল্লাল, ইব্রাহিম ও আ. লতিফ। যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্তরা হলেন মজিদন ওরফে মাজেদা ও চায়না বেগম। প্রত্যেক আসামিকে ২০ হাজার টাকা করে জরিমানাও করা হয়েছে।

রায়ে বলা হয়েছে, আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় তাদের শাস্তি দেওয়া হলো। মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের রশিতে ঝুলিয়ে দণ্ড কার্যকর করতে নির্দেশ দিয়ে রায়ে বলা হয়েছে, মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার আগে ফৌজদারি কার্যবিধির ৩৭৪ ধারা অনুযায়ী হাইকোর্টের অনুমোদন নিতে হবে। এ জন্য নথি হাইকোর্টে পাঠানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের মধ্যে দিদার, এরশাদ, আ. জলিল, ইব্রাহিম এবং যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত মজিদন ওরফে মাজেদা ও চায়না বেগম পলাতক থাকায় তারা গ্রেপ্তার বা আত্মসমর্পণের পর রায় কার্যকর হবে বলে রায়ে বলা হয়েছে।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে ২০০৮ সালের ৩ এপ্রিল আসামিরা কাপড় ব্যবসায়ী নজরুল ইসলামকে মারধর করে। এতে তিনি গুরুতর আহত হন। পরে  ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নজরুল মারা যান।

নিহত নজরুলের মামা নাজিমুদ্দিন আহমেদ ওই দিনই বাদী হয়ে দোহার থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। রাষ্ট্রপক্ষে ঢাকা জেলার অতিরিক্ত পিপি কাজী শাহানারা ইয়াসমিন ও আসামিপক্ষে অ্যাডভোকেট মো. কামরুজ্জামান ও মো. আনোয়ারুল ইসলাম চৌধুরী মামলা পরিচালনা করেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা