kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১২ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৪ রবিউস সানি     

গণসংযোগে ব্যস্ত প্রার্থীরা চলছে প্যানেল পরিচিতি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

৮ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



গণসংযোগে ব্যস্ত প্রার্থীরা চলছে প্যানেল পরিচিতি

আর মাত্র তিন দিন পরে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বহু কাঙ্ক্ষিত নির্বাচন। নির্বাচনের জোয়ারে ভাসছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস। ব্যানার ও লিফলেটে ছেয়ে গেছে চারপাশ। সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত প্রার্থীরা ছুটছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে। নানা প্রতিশ্রুতি শুনিয়ে শিক্ষার্থীদের কাছে ভোট প্রার্থনা করছেন তাঁরা। হলে ও বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ‘প্যানেল পরিচিতি সভায়’ ব্যস্ত সময় পার করছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ও হল সংসদ নির্বাচনের প্রার্থীরা।

গতকাল বৃহস্পতিবার ক্যাম্পাসের বিভিন্ন এলাকায় বেশ কয়েকটি ‘প্যানেল পরিচিতি সভা’ চোখে পড়ে। পরিচিতি সভা করেছেন বাম ছাত্র সংগঠনগুলো, কোটা সংস্কার আন্দোলনকারী ও ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলনের প্রার্থীরা। ছাত্রলীগ প্যানেল পরিচিতি সভা করেছে গত বুধবার। ছাত্রদল প্যানেল পরিচিতি সভা করবে আজ।

হলে হলে প্যানেল পরিচিতি সভা করেছে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীরা। গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বেগম রোকেয়া ও শামসুননাহার হলে প্যানেল পরিচিতি সভা করেছেন তাঁরা। প্যানেল পরিচিতি সভায় প্রার্থীদের পরিচয় তুলে ধরা হয়। এই বিষয়ে প্যানেলটির সহসাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী ফারুক হোসেন কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমরা এই মুহূর্তে ব্যস্ত রয়েছি প্যানেল পরিচিতি সভায়। হলগুলোতে যাচ্ছি শিক্ষার্থীদের কাছে ভোট প্রার্থনা করছি। শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে ভালো সাড়া পাচ্ছি। ১১ মার্চ সুষ্ঠু নির্বাচন হলে আমাদের জয় নিশ্চিত।’

শিক্ষার্থীদের দ্বারে দ্বারে প্যানেল নিয়ে ভোট চেয়ে বেড়াচ্ছে বাম ছাত্র সংগঠনগুলোর মোর্চা প্রগতিশীল ছাত্র ঐক্য। শিক্ষার্থীদের সমস্যা সমাধানে দিচ্ছে প্রতিশ্রুতি। গতকাল বাম জোটভুক্ত সংগঠনগুলোর নেতারা আলাদাভাবে দলীয় প্রার্থীদের নিয়ে শিক্ষার্থীদের কাছে পরিচিতি করান। বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান অনুষদ, এনেক্স বিল্ডিং, কলা ভবন, টিএসসি ও কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার এলাকায় প্রচারণা চালিয়েছেন তাঁরা।

প্যানেলটির সহসাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী সাদেকুল ইসলাম সাদিক কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমরা পুরো প্যানেল নিয়ে শিক্ষার্থীদের কাছে যাচ্ছি সবাইকে পরিচিত করিয়ে দিতে। তবে আশার দিক হলো শিক্ষার্থীদের মাঝে ডাকসু নিয়ে আগ্রহ তৈরি হয়েছে। তবে প্রশাসনের কিছু কর্মকাণ্ডে শিক্ষার্থীদের মাঝে শঙ্কাও রয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় ভোটের সময় না বাড়িয়ে ভোটের দিন বাস চালুর বিষয়েও নীরব রয়েছে। আমরা চাই নির্বাচনকে গ্রহণযোগ্য করতে নির্বাচনের প্রক্রিয়া শিক্ষার্থীদের মাঝে স্পষ্ট করা হোক।’

দীর্ঘদিন ক্যাম্পাসে কোনো কর্মকাণ্ড চোখে না পড়লেও ডাকসু নির্বাচন ঘিরে ক্যাম্পাসে সরব রয়েছে ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলনের নেতাকর্মীরা। ডাকসু নির্বাচনে প্রার্থী দিয়েছে তারা। সেই প্রার্থী নিয়ে গতকাল স্বোপার্জিত স্বাধীনতা চত্বরে তারা প্যানেল পরিচিতি সভা করেছে হামদ, নাত ও দেশের গানসহযোগে। সংগঠনটির সহসভাপতি পদপ্রার্থী এস এম আতায়ে রাব্বী, সাধারণ সম্পাদক (জিএস) পদপ্রার্থী মাহমুদুল হাসান ও সহসাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী এইচ এম শরীয়াত উল্লাহ।

ক্যাম্পাসে মিছিল করেছে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলও। গতকাল ক্যাম্পাসের বিভিন্ন এলাকায় মিছিল শেষে অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে সমাবেশ করে সংগঠনটি। পরে ডাকসু নির্বাচনে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের প্যানেলকে বিজয়ী করতে নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন শীর্ষস্থানীয় নেতারা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা