kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৫ অক্টোবর ২০১৯। ৩০ আশ্বিন ১৪২৬। ১৫ সফর ১৪৪১       

ঢাকায় আন্তর্জাতিক শিশু চলচ্চিত্র উৎসব

খুদে নির্মাতা-চলচ্চিত্রপ্রেমীদের ভিড় গণগ্রন্থাগার প্রাঙ্গণে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৪ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



খুদে নির্মাতা-চলচ্চিত্রপ্রেমীদের ভিড় গণগ্রন্থাগার প্রাঙ্গণে

রাজধানীর চিলড্রেনস ফিল্ম সোসাইটি, বাংলাদেশের উদ্যোগে শুরু হওয়া ১২তম আন্তর্জাতিক শিশু চলচ্চিত্র উৎসবের দ্বিতীয় দিন চলচ্চিত্র দেখতে খুদে দর্শনার্থীদের ভিড়। ছবি : কালের কণ্ঠ

মিরপুর থেকে চার বছরের ছেলেকে নিয়ে সস্ত্রীক ঢাকার কেন্দ্রীয় গণগ্রন্থাগারে এসেছিলেন নাজমুল হাসান শাওন। তিনি বলেন, ‘শিশুদের মানসিক বিকাশে চলচ্চিত্রের ভূমিকার কথা ভেবে ওকে নিয়ে এসেছি।’ মা-বাবার সঙ্গে উৎসবে আসতে পেরে উচ্ছ্বসিত ছোট্ট আফরাজ হাসান আয়ানও। তার প্রতিক্রিয়া ছিল এমন, ‘সারা দিন অনেক খেলাধুলা করেছি, ছবি দেখেছি। আবার আসব।’

কেন্দ্রীয় গণগ্রন্থাগার ঘুরতে ঘুরতে ছবি তুলছিল সাউথ পয়েন্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজের গ্রেড সিক্সের শিক্ষার্থী শমিত আনোয়ার। শমিত বলল, ‘আমি সকাল সকাল চলে এসেছি। এমন উৎসবের সঙ্গে থাকতে খুবই ভালো লাগে, ছবি তুলতে ভালো লাগে। আমরা সবাই মজায় মজায় কাজ করি। বড় হয়ে আমি অনেক সুন্দর ও ভালো ছবি (চলচ্চিত্র) বানাব।’

আনন্দময় জীবনের প্রতিটি মুহূর্ত উপভোগ করতে ফ্রেমে মাটি ও মানুষের কথা তুলে ধরার প্রত্যয় এক দল খুদে চলচ্চিত্র নির্মাতার। তাদের সেসব চলচ্চিত্র নিয়ে রাজধানীর চিলড্রেনস ফিল্ম সোসাইটি, বাংলাদেশের উদ্যোগে শুরু হওয়া ১২তম আন্তর্জাতিক শিশু চলচ্চিত্র উৎসব ২০১৯-এর দ্বিতীয় দিন রবিবার সারা দিন কেন্দ্রীয় গণগ্রন্থাগার প্রাঙ্গণ এমন শত শত খুদে চলচ্চিত্রপ্রেমী ও নির্মাতার পদচারণে ছিল মুখরিত। দেশি-বিদেশি স্বল্পদৈর্ঘ্যের চলচ্চিত্র প্রদর্শনী, শিশু-কিশোরদের জন্য চলচ্চিত্র সম্পর্কিত কর্মশালা, খেলাধুলাসহ নানা আয়োজনে গতকাল মুখরিত ছিল জাতীয় জাদুঘর, কেদ্রীয় গণগ্রন্থাগার, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি ও ব্রিটিশ কাউন্সিল প্রাঙ্গণ।

উৎসবটির দ্বিতীয় দিন সোমবার সকাল ১১টায় লালমাটিয়া হাউজিং সোসাইটি হাই স্কুল ও মতিঝিল কলোনি হাই স্কুলের শিক্ষার্থীরা কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরি মিলনায়তনে চলচ্চিত্র উপভোগ করে। সকাল ১০টায় উৎসবে শিশু- কিশোর চলচ্চিত্র নির্মাতাদের নিয়ে কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরির সেমিনার কক্ষে এক কর্মশালায় প্রতিনিধিত্ব করেন চলচ্চিত্র নির্মাতা রেজাউর রহমান খান পিপলু। এরপর বিকেল ৩টায় জাতীয় জাদুঘরের সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে সামাজিক ও বাংলাদেশি চলচ্চিত্র নির্মাতাদের শিশুদের জন্য নির্মিত চলচ্চিত্রগুলো দেখানো হয়। সন্ধ্যা ৬টায় চলচ্চিত্র নির্মাতাদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন চলচ্চিত্র নির্মাতা শাহিন দিল রিয়াজ।

চিলড্রেনস ফিল্ম সোসাইটি, বাংলাদেশের সাধারণ সম্পাদক মুনিরা মোরশেদ মুননী বলেন, ‘ছয় থেকে ১৮ বছর বয়স পর্যন্ত সময়টা হলো একটা মানুষের সবচেয়ে মূল্যবান একটি সময়। শিশুদের মানসিক বিকাশের চর্চা করার সুযোগ তৈরি করতে আমাদের এই উদ্যোগ।’

তৃতীয় দিনে আজ যা থাকছে : আন্তর্জাতিক শিশু চলচ্চিত্র উৎসবের তৃতীয় দিন আজ সোমবার সকাল ১০টায় কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরির শওকত ওসমান মিলনায়তন ও জাতীয় জাদুঘরের সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে চলচ্চিত্র নির্মাতা রুবাইয়াত হোসেন এবং শিশু-কিশোর চলচ্চিত্র নির্মাতাদের নিয়ে কর্মশালা অনুষ্ঠিত হবে। এ ছাড়া জাতীয় জাদুঘরের সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে সন্ধ্যা ৬টায় নির্মাতাদের সঙ্গে চলচ্চিত্র নির্মাতা পিউস চন্দ্র কানত পানজুয়ানির মতবিনিময়। তা ছাড়া কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরির শওকত ওসমান মিলনায়তনে আজ সকাল ১১টায়, দুপুর ২টায়, বিকেল ৪টায় ও সন্ধ্যা ৬টায়; ব্রিটিশ কাউন্সিলে সকাল ১১টায়, দুপুর ২টায়; জাতীয় জাদুঘরের সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে বিকেল ৩টায় এবং শিল্পকলায় সকাল ১১টায়, দুপুর ২টায় ও বিকেল ৪টায় চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা