kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৯ নভেম্বর ২০২২ । ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ ।  ৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

রুশ হামলার জের

এবার মলদোভায় বিদ্যুৎবিভ্রাট

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৪ নভেম্বর, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



এবার মলদোভায় বিদ্যুৎবিভ্রাট

ইউক্রেনের জাপোরিঝিয়া অঞ্চলের ভিলনিয়ানস্ক শহরে রুশ ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় বিধ্বস্ত দোতলা প্রসূতি ভবনের ধ্বংসাবশেষ। ছবি : এএফপি

এত দিন রাশিয়ার হামলায় ইউক্রেনজুড়ে দেখা গেছে বিদ্যুৎবিভ্রাট। এবার রুশ হামলার জেরে বিভ্রাট হলো পার্শ্ববর্তী দেশ মলদোভাতেও। গতকাল বুধবার দেশটির উপপ্রধানমন্ত্রী আন্দ্রেই স্পিনু নিশ্চিত করেন এ খবর।

স্পিনু ফেসবুকে লেখেন, ‘শেষ ঘণ্টায় ইউক্রেনের বিদ্যুৎ কাঠামোতে রাশিয়ার বোমাবর্ষণে আমরা প্রায় পুরো দেশেই বড় মাপে বিদ্যুিবভ্রাটের মুখোমুখি হয়েছি।

বিজ্ঞাপন

’ অন্যদিকে টুইটারে তিনি জানান, অর্ধেক মলদোভায় বিদ্যুিবভ্রাট দেখা দিয়েছে।

দেশটিতে সরাসরি কোনো রুশ হামলার ঘটনা ঘটেনি বলে উল্লেখ করেছে বিবিসি। মূলত ইউক্রেনের বিদ্যুৎ কাঠামোতে রুশ হামলার জেরেই ঘটেছে এ ঘটনা।

ইউক্রেনের বিভিন্ন স্থানেও বিদ্যুিবভ্রাট শুরু হয়েছে বলে জানা গেছে। উত্তর এবং কেন্দ্রীয় কিয়েভ থেকে বিদ্যুিবভ্রাটের খবর এসেছে। পশ্চিমের শহর লভিভও জানিয়েছে, হামলার জেরে বিদ্যুিবভ্রাটের কবলে পড়ার কথা।

লভিভের মেয়র আন্দ্রেই সেদভি সেখানকার বাসিন্দাদের নিরাপদ আশ্রয় নেওয়ার অনুরোধ জানান। এর আগে ইউক্রেনজুড়ে আকাশপথে হামলার সতর্কতা জারি করা হয়। বেশ কিছু স্থানে বিস্ফোরণের ঘটনাও ঘটে। লভিভের মেয়র আন্দ্রেই সেদভি জানান, শিশুদের শিক্ষকদের সঙ্গে নিরাপদ স্থানে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। অভিভাবকরা যাতে সতর্ক সংকেত জারি থাকা পর্যন্ত শিশুদের আনতে না যান, সে ব্যাপারেও সতর্ক করা হয়।

কিয়েভ এবং লভিভের পরপরই দক্ষিণ ইউক্রেন হামলার কবলে পড়ে। মিকোলাইভের গভর্নর দক্ষিণ এবং পূর্ব থেকে ‘অনেক রকেট’ আসছে বলে সতর্ক করেন।

অন্যদিকে পার্শ্ববতী জাপোরিঝিয়া অঞ্চলের এক হাসপাতালের প্রসূতি বিভাগে হামলার ঘটনায় সদ্যোজাত এক শিশু মারা গেছে। ওই অঞ্চলের জরুরি সেবা এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, দুই তলার ওই প্রসূতি ইউনিটের ভবনটি ধ্বংস হয়ে গেছে। হামলার সময় ভবনে এক নারী, এক ডাক্তার এবং শিশুটি ছিল। শিশুটি মারা গেছে। বাকিদের ধ্বংসস্তূপের নিচ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে।

জাপোরিঝিয়া অঞ্চলের প্রধান ওলেকসান্ডার স্টারুখ বলেছেন, ‘আমাদের অন্তর বেদনায় পরিপূর্ণ হয়ে উঠেছে। ’

অন্যদিকে কিয়েভে হামলার জেরে তিনজন মারা গেছেন। আহত হয়েছেন আরো ছয়জন। টেলিগ্রামে শহরটির সামরিক প্রশাসন বলেছে, ‘আক্রমণের জেরে, দোতলা একটি আবাসিক ভবন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ’

পূর্বের খারকিভ অঞ্চলেও আবাসিক ভবনে আঘাত হেনেছে রাশিয়ার গোলা। বুধবার শহরটির মেয়র ভিতালি ক্লিতশ্চিকো জানান, সেখানকার গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

সব মিলিয়ে বুধবার ইউক্রেনের বহু এলাকা রুশ হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে জানা গেছে।

‘সহিংসতার পৃষ্ঠপোষক’

এরই মধ্যে রাশিয়াকে ‘সহিংসতার পৃষ্ঠপোষক’ হিসেবে অভিহিত করেছে ইউরোপীয় পার্লামেন্ট। ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভোলোদিমির জেলেনস্কি রাশিয়ার হামলাকে দিয়েছেন ‘ত্রাস এবং হত্যা’র তকমা। সূত্র : এএফপি, বিবিসি

 



সাতদিনের সেরা