kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০২২ । ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

ইউরোপের ৪৪ দেশের সম্মেলন

ইউক্রেনের সমর্থনে ঐক্য ধরে রাখার আহ্বান

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৭ অক্টোবর, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ইউক্রেনের সমর্থনে ঐক্য ধরে রাখার আহ্বান

যুদ্ধকবলিত ইউক্রেনের জাপোরিঝিয়ায় প্রাণ বাঁচাতে গতকাল ভূগর্ভস্থ আশ্রয়কেন্দ্রে ঠাঁই নেয় অনেকে। পরস্পরকে জড়িয়ে ধরে আতঙ্ক কাটাতে চাওয়া এই দম্পতি তাদেরই অংশ। ছবি : এএফপি

ইউক্রেনের সমর্থনে ঐক্য তুলে ধরতে ইউরোপীয় দেশগুলোর একটি সম্মেলন গতকাল বৃহস্পতিবার শুরু হয়েছে। ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাখোঁ তাঁর আহ্বানে আয়োজিত এ সম্মেলনের উদ্বোধনীতে ইউরোপের দেশগুলোকে ইউক্রেন ইস্যুতে ঐক্য বজায় রাখার আহ্বান জানান। এদিকে বৈঠক শুরুর দিন ইউক্রেনের জাপোরিঝিয়ায় রুশ হামলায় তিনজন নিহত হয়।

ইউরোপের ৪৪টি দেশের দুই দিনের এ সম্মেলন চেক প্রজাতন্ত্রের রাজধানী প্রাগে শুরু হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

ইউক্রেন যুদ্ধে রাশিয়ার সাম্প্রতিক ‘পিছু হটার’ পরিপ্রেক্ষিতে ‘ইউরোপীয় রাজনৈতিক সম্প্রদায়ের’ এ অনুষ্ঠানের উদ্দেশ্য সম্পর্কে ইমানুয়েল মাখোঁ বলেন, ‘(রাাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ) পরিস্থিতি আমাদের ইউরোপকে কিভাবে প্রভাবিত করছে, তা নিয়ে পরস্পরের স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয়ে আলোচনা করাই মূল লক্ষ্য এবং সঙ্গে রয়েছে অভিন্ন কৌশল প্রণয়নের লক্ষ্যও। ’ এ ছাড়া সম্মেলনের জন্য প্রাগে পৌঁছেই ফরাসি রাষ্ট্রপ্রধান সম্মেলন সম্পর্কে বলেন, এটি সবার আগে একটি ঐক্যের বার্তা পাঠায়।

ওই সম্মেলনে বেলজিয়ামের প্রধানমন্ত্রী আলেক্সান্ডার দি ক্র বলেন, ‘রাশিয়া ও বেলারুশ ছাড়া সমগ্র ইউরোপ মহাদেশ এখানে রয়েছে। সুতরাং এই দৃশ্য আমাদের দেখিয়ে দেয় যে ওই দুটি দেশ কতটা বিচ্ছিন্ন। ’

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী লিজ ট্রাস বলেন, ‘আমাদের অবশ্যই ইউক্রেনের সমর্থনে দৃঢ়ভাবে দাঁড়াতে হবে, যাতে তারা এই যুদ্ধে জয়লাভ করে। ’

পর্যবেক্ষকরা বলছেন, ইউরোপের দেশগুলো একত্র হলেও রাশিয়ার বিরুদ্ধে নিরঙ্কুশ অবস্থান দেখানো কঠিন হবে। কারণ এর মধ্যে বেশ কিছু দেশ রয়েছে, যারা রাশিয়ার সঙ্গে জ্বালানিসহ কিছু বিষয়ে আলাদা সম্পর্কে আবদ্ধ।

জাপোরিঝিয়ায় গতকাল হামলায় ধসে পড়া এক ভবনে ইউক্রেনীয় উদ্ধারকর্মীদের তত্পরতা।     ছবি : এএফপি

ইউরোপের নেতারা যখন প্রাগে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধে কিয়েভের সমর্থনে ঐক্য দেখাতে মরিয়া, ঠিক তখন জাপোরিঝিয়ায় রকেট হামলায় তিনজন নিহত হয়। গত সপ্তাহেও এখানে রুশ হামলায় কয়েক ডজন মানুষের প্রাণহানি ঘটে। ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভোলোদিমির জেলেনস্কি জাপোরিঝিয়ার কয়েকটি গ্রাম পুনর্দখলের ঘোষণা দেওয়ার কয়েক ঘণ্টা পরই গতকাল ওই হামলার খবর আসে।

মস্কো দাবি করে, জাপোরিঝিয়ার রাজধানী শহর ছাড়া পুরো অঞ্চল তাদের নিয়ন্ত্রণে। কয়েক দিন আগে জাপোরিঝিয়াসহ লুহানস্ক, দোনেত্স্ক ও খেরসনকে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন রাশিয়ার অন্তর্ভুক্ত করে নেন। সম্প্রতি এসব অঞ্চলের কিছু জায়গা থেকে পিছু হটা সত্ত্বেও মস্কো হামলা অব্যাহত রেখেছে।

গতকাল হামলার পর জাপোরিঝিয়ার ইউক্রেনীয় গভর্নর ওলেখসাদ্র স্তারুখ বলেন, ‘অ্যাম্বুল্যান্সে একজন নারীসহ দুজন নিহত হয়েছে। ’ তিনি আরো জানান, ধ্বংসস্তূপের নিচে আরো পাঁচজন আটকা পড়েছে। কয়েক ঘণ্টা পর আরো একজনের মৃত্যুর তথ্য জানা যায়।

এর আগে বুধবার জাপোরিঝিয়ার পরমাণু বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি নিজেদের সম্পদ হিসেবে ঘোষণা করে মস্কো। এ সময় পুতিন বলেন, ‘আমরা ধারণা করছি যে অধিভুক্ত অঞ্চলগুলোর পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে। ’

কর্নেল জেনারেল হলেন রমজান কাদিরভ

চেচেন সম্প্রদায়ের নেতা রমজান কাদিরভকে বুধবার রাশিয়ার সেনাবাহিনীর কর্নেল জেনারেল হিসেবে পদোন্নতি দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। এটি দেশটির সেনাবাহিনীর তৃতীয় সর্বোচ্চ পদ। কাদিরভ প্রেসিডেন্ট পুতিনের একজন কট্টর সমর্থক হিসেবে পরিচিত। পদোন্নতির পর কাদিরভ বলেন, এটি তাঁর জন্য বড় সম্মান। পুতিন ‘ব্যক্তিগতভাবে’ তাঁকে এই সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন।

৪৬ বছর বয়সী কাদিরভ চেচনিয়া অঞ্চলের শাসক। তাঁর বিরুদ্ধে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ রয়েছে। সম্প্রতি ইউক্রেনে স্বল্প ক্ষমতার পরমাণু অস্ত্র ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছিলেন তিনি। তিন ছেলেকে যুদ্ধে পাঠানোর ঘোষণা দিয়েও বেশ আলোচনার জন্ম দেন তিনি। সূত্র : এএফপি, গার্ডিয়ান

 



সাতদিনের সেরা