kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০২২ । ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব নারীদের ওপর

জাতিসংঘের প্রতিবেদন

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২ অক্টোবর, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



‘দক্ষিণ এশিয়া এবং হিন্দুকুশ হিমালয় অঞ্চলের জেন্ডার সমতা এবং জলবায়ু পরিবর্তনের পরিস্থিতি’ শীর্ষক এক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ পরিবেশবিষয়ক কর্মসূচি (ইউএনইপি), নারীবিষয়ক সংস্থা ইউএন উইমেন এবং সমন্বিত পর্বত উন্নয়নবিষয়ক আন্তর্জাতিক কেন্দ্র (আইসিআইএমওডি)।

গত বৃহস্পতিবার প্রকাশিত ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণ এবং পরিণতির মধ্যে একটি চক্রাকার সম্পর্ক রয়েছে। খাদ্যাভাব, নিরাপত্তাহীনতা, দারিদ্র্যের পাশাপাশি সামাজিক ও জেন্ডার বৈষম্য জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে আরো বাড়ছে এবং এগুলোই আবার পরিবর্তনের ক্ষেত্রে মূল কারণ হিসেবে ভূমিকা রাখছে।

পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউটের জলবায়ু পরিবর্তন এবং কৃষি বিশেষজ্ঞ শোভা পউডেল বলেন, ‘জলবায়ু পরিবর্তন সবার ওপরই প্রভাব ফেলে, কিন্তু এর সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার সক্ষমতার অভাব এবং বিদ্যমান ত্রুটির কারণে নারীদের ওপর আরো বেশি প্রতিকূল প্রভাব পড়ে।

বিজ্ঞাপন

প্রতিবেদনে জেন্ডার সমতাসংক্রান্ত জলবায়ু নীতি এবং কর্মসূচির প্রয়োজনীয়তার কথা উল্লেখ করা হয়েছে। জানা গেছে, প্রতিবেদনটিতে দক্ষিণ এশিয়ার ১০টি দেশ আফগানিস্তান, বাংলাদেশ, ভুটান, চীন, ভারত, মালদ্বীপ, মিয়ানমার, নেপাল, পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কা এবং হিন্দুকুশ হিমালয় অঞ্চলে জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে আক্রান্ত তিন খাতে ‘জেন্ডার ডাইমেনশন’ বিশ্লেষণ করা হয়েছে। আক্রান্ত খাত তিনটি হলো কৃষি, পানি এবং জ্বালানি।

এতে বলা হয়েছে, বৈশ্বিক জলবায়ুসংক্রান্ত সব দুর্যোগের প্রায় ৪০ শতাংশ দক্ষিণ এশিয়া এবং হিন্দুকুশ হিমালয় অঞ্চলে ঘটছে এবং এ অঞ্চলের নারী ও মেয়েদের ওপর এর বিরূপ প্রভাব পড়ছে। এ ছাড়া জলবায়ু পরিবর্তন লিঙ্গ বৈষম্য এবং অন্যান্য বিদ্যমান সামাজিক বিভেদ বৃদ্ধি করছে। সূত্র : কাঠমাণ্ডু পোস্ট

 



সাতদিনের সেরা